ইসরাইলের কারাগারে বন্দি ফিলিস্তিনিরা গণঅনশনে

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৮ এপ্রিল ২০১৭, মঙ্গলবার
ইসরাইলি কারাগারে ফিলিস্তিনের প্রায় ১৫০০ রাজনৈতিক বন্দি সোমবার থেকে গণঅনশন শুরু করেছেন। মৌলিক অধিকার ও ইসরাইলি কারাগারে কঠিন মানবিক অবস্থার দিকে বিশ্ববাসীর নজর ফেরাতে তারা এ পদক্ষেপ নিয়েছেন বলে জানিয়েছে ফিলিস্তিনি প্রিজনার্স সেন্টার ফর স্টাডিজ। এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা। খবরে বলা হয়, সাম্প্রতিক বছরগুলোর অন্যতম বৃহৎ গণঅনশন এটি। ফিলিস্তিনি কারাবন্দি দিবসের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে এ কর্মসূচি শুরু করেছেন ফিলিস্তিনি বন্দিরা। প্রতি বছর ১৭ই এপ্রিল এ দিবস পালন করেন ফিলিস্তিনিরা। বর্তমানে কারাগারের এ অনশন কর্মসূচির নেতৃত্বে রয়েছেন ফাতাহ নেতা মারওয়ান বার্গৌতি। ফিলিস্তিনের বিভিন্ন রাজনৈতিক মতাদর্শের বন্দিরা ইসরাইলের অভ্যন্তরের ৬টি কারাগারে এ কর্মসূচি একযোগে পালন করছেন। ফিলিস্তিনি প্রিজনার্স সেন্টারের মুখপাত্র আমিনা আল-তাওয়িল বলেন, ‘তাদের কিছু মূল দাবি রয়েছে। সেগুলো পালন হওয়ার আগ পর্যন্ত অনশন করবে বন্দিরা। তারা মনে করেন, নিজেদের দাবি আদায়ের একমাত্র পথই হলো এটি।’ তার ভাষ্য, ‘যদিও এটি খুবই বিপজ্জনক ও কঠিন একটি সিদ্ধান্ত। তবুও তারা এই পথ বেছে নিয়েছে। কারণ, কারাগারের ভেতরকার পরিস্থিতি আরো খারাপ হয়েছে।’ বন্দিদের এই কর্মসূচির সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে রামাল্লা, হেবরব ও নাবলুসসহ দখলকৃত ফিলিস্তিনের বড় বড় শহরগুলোতে সমাবেশ হওয়ার কথা রয়েছে। ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী রামি হামদালাহ এই অনশন কর্মসূচিকে সামনে রেখে ফিলিস্তিনি বন্দি ও জনগণের উদ্দেশ্যে একটি বিবৃতি দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘এই দিন আমাদের কারাবন্দিত্বের যন্ত্রণা, দখলদারিত্বের নিষ্ঠুরতা ও কারাগারের ভেতরকার অবিচারের কথা মনে করিয়ে দেয়। পাশাপাশি আমরা স্মরণ করি আমাদের দৃঢ়তা ও আত্মত্যাগের গৌরব।’ তিনি দেশের জনগণ ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতি এ কর্মসূচির প্রতি আরো একাত্মতা প্রদর্শনের আহ্বান জানান।
উল্লেখ্য, ইসরাইলের কারাগারে বর্তমানে প্রায় ৬ হাজার ৫০০ ফিলিস্তিনি রাজনৈতিক বন্দি রয়েছেন। এদের মধ্যে ৫ শতাধিক বন্দিই বিচার ছাড়া প্রশাসনিক বন্দিত্ব কাটাচ্ছেন।


 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন