তিন তালাক নিয়ে সরকার কারও কাছে মাথা নোয়াবে না: মোদী

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৭ এপ্রিল ২০১৭, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৩০
মুসলিমদের তিন তালাক প্রথা নিয়ে সরকার কারও কাছে মাথা নোয়াবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বিজেপির জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকে মোদী বলেছেন, মুসলিম নারীদের ন্যায় বিচার দিতেই হবে। সমাজকেও এই ন্যায় প্রতিষ্ঠার জন্য উঠে দাঁড়াতে হবে। গত রোববার ওড়িশার রাজধানী ভুবনেশ্বরে বিজেপির কর্মসমিতির বৈঠকে এ কথা বলেছেন তিনি। সেই সঙ্গে তিনি মুসলিমদের মধ্য থেকে পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর ব্যাকওয়ার্ড কমিশনে আরও অংশগ্রহণ জরুরি বলে মন্তব্য করেছেন । বৈঠক শেষে মোদির বক্তব্য সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়ে কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহনমন্ত্রী নীতিন গড়গড়ি জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে স্পষ্ট করেছেন, কেউ যেন শোষণের শিকার না হন। সামাজিক অন্যায় হলে তা সকলকে নিয়ে প্রতিহত করতে হবে। ইভিএম নিয়ে নানা মহলে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। সেই প্রসঙ্গে কটাক্ষ করে মোদি বলেছেন, বিরোধীরা অভিযোগের কারখানা তৈরি করেছেন। দিল্লি ভোটের সময় গির্জা আক্রমণ নিয়ে সরব হলেন, বিহার ভোটের সময় পুরস্কার ফেরত, আর এখন ইভিএম কারচুপির অভিযোগ তোলা হচ্ছে। নানা বিষয়ে দলীয় কর্মীদের মতামত দেওয়া থেকে বিরত থাকতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। কর্মসমিতির বৈঠকে ব্যাকওয়ার্ড কমিশনকে সাংবিধানিক সংস্থার মর্যাদা দেওয়া নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ১৯৯৩ সালে আইন এনে ব্যাকওয়ার্ড ক্লাসের জন্য জাতীয় কমিশন গঠন করা হয়। এখন সরকার ‘ন্যাশনাল কমিশন ফর ব্যাকওয়ার্ড ক্লাসেস’-–এর বিলোপ করে কোনও সাংবিধানিক সংস্থা আনতে চাইছে। এই বিলের সাহায্যে যে কোনও সম্প্রদায়কে ব্যাকওয়ার্ড ঘোষণার অধিকার দেওয়া হয়েছে সংসদকে। লোকসভায় এই বিল পাস হয়েছে। কিন্তু রাজ্যসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতার অভাবে বিলটি পাস করাতে পারেনি কেন্দ্রীয় সরকার। বিলটি এখন সিলেক্ট কমিটিতে রয়েছে। বিলটি সমর্থন না করার জন্য রোববার বিরোধীদের সমালোচনা করেছে বিজেপি। মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর বলেছেন, ৩০ বছর ধরে ওবিসিরা কমিশনকে সাংবিধানিক সংস্থা হিসেবে চাইছে। কংগ্রেস ভোট ব্যাঙ্ক রাজনীতি ছাড়া কিছু বোঝে না। এদিন বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি। আগামী পাঁচ বছরে নতুন কোনও কর বসানো হবে না।

 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন