বর্ষবরণে কলকাতায় প্রথম দুটি মঙ্গল শোভাযাত্রা

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৫ এপ্রিল ২০১৭, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৫০
প্রতীকী ছবি
এবারই প্রথম বাংলাদেশের প্রেরণায় কলকাতায় বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়েছিল। পর পর দু’দিনে বের হওয়া এই দুটি মঙ্গল শোভাযাত্রা নিয়ে মানুষের মধ্যে উদ্দীপনাও ছিল। কলকাতা তথা পশ্চিমবঙ্গে পুরনো ক্যালেন্ডার মতে বাংলাদেশের একদিন পরে নববর্ষ পালিত হয়। আর বাংলাদেশে পালিত হয় একদিন আগে। অবশ্য দুই বাংলায় একই দিনে নববর্ষ পালনের কথা বলেছেন অনেকেই। কলকাতায় এ যাবৎ কালের মধ্যে প্রথম মঙ্গল শোভা যাত্রাটি বেরিয়েছিল গত শুক্রবার বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনের তরফে।
এদিন সুরাবর্দী এভিনিউয়ে অবস্থিত বাংলাদেশ উপ হাইকমিশনের নিজস্ব গ্রন্থাগারের সামনে থেকে বেরিয়ে শোভাযাত্রাটি শেষ হয়েছিল বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনে। নানা ধরণের লোকায়ত মুখোশ নিয়ে শোভাযাত্রায় সামিল হয়েছিলেন হাইকমিশনের কর্মী ও তাদের পরিবারের সকলে। যোগ দিয়েছিলেন বিশিষ্ট মানুষজনও। পরে উপহাইকমিশনের এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান, নাচ ও আবৃত্তি পরিবেশিত হয়। বর্ষবরণ উপলক্ষ্যে নানা ধরনের পিঠে, মুড়ি, বাতাসা, নকুলদানা আমন্ত্রিতদের পরিবেশন করা হয়েছে। ছিল নাগরদোলা ও পুরনো দিনের কলের গান। স্বাগত ভাষণে উপহাইকমিশনার বলেছেন, অসাম্প্রদায়িক এই উৎসবে জাতি, ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবাই মিলিত হয়ে বর্ষবরণ করেন। এখানেও চালু হল এই বর্ষবরণ। কলকাতায় এই প্রথম উপহাইকমিশনের উদ্যোগে মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। এদিকে শনিবার এপারের বর্ষবরণ উপলক্ষ্যে কলকাতার দক্ষিণ প্রান্তের গাঙ্গুলি বাগান থেকে সকালে বের হয়েছিল মঙ্গল শোভাযাত্রা, শেষ হয় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে। সেখানে দুই বাংলার শিল্পী সমন্বয়ে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ঢাকার প্রেরণায় আয়োজিত এই মঙ্গল শোভাযাত্রার পথ ছিল আলপনায় শোভিত। শোভাযাত্রায় ছিল কাঠি নাচ, সাঁওতালি নাচ, রণপা নাচ, ছৌ নাচ। বাউল, ফকির আর লোকগীতিতে মুখরিত হয়ে উঠেছিল এই শোভাযাত্রা। অংশ নিয়েছিলেন কলকাতার সাধারণ মানুষের পাশাপাশি বিশিষ্টজনেরা।  শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেছেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার। ঢাকার লোকজ সংস্কৃৃতির্চ্চা বিকাশ কেন্দ্রের সহযোগিতায় কলকাতার বাংলা নববর্ষ উদযাপন পরিষদ এই প্রথম মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন করেছিল। মঙ্গল শোভাযাত্রা উপলক্ষ্যে তৈরি হয়েছিল বাঘ, প্যাঁচার  নানা ধরণের মুখোশ ও লোকজ প্রতীক। এজন্য ঢাকা থেকে এসেছিলেন একদল শিল্পী। তারা কয়েকদিন ধরে তৈরি করেছিলেন নানা ধরণের মুখোশ ও লোকজ প্রতীক। কলকাতার বাংলা নববর্ষ উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক অধ্যাপক সিদ্ধার্থ দত্ত বলেছেন, এবারের এই মঙ্গল শোভাযাত্রা কলকাতার সংস্কৃতি অঙ্গনে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। আয়োজকরা অবশ্য এই মঙ্গল শোভাযাত্রার ভাবনাকে আগামীতে গোটা পশ্চিমবঙ্গে ছড়িয়ে দেবার কথা ভাবছেন। তবে প্রথম আয়োজিত এবারের মঙ্গল শোভাযাত্রায় অবশ্য এক ডজনের বেশি সংগঠন যোগ দিয়েছিল। 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

সশস্ত্র বাহিনী জাতির এক গর্বিত প্রতিষ্ঠান: খালেদা জিয়া

কেরানীগঞ্জে বিএনপি অফিসে পুলিশের তালা

সিলেটের টার্গেট ১৭০

‘প্রধানমন্ত্রীর সামনে এখন বিদায়ের দুটি পথ খোলা’

আহত ২০, বিএনপির ৬১ জন আটক

১৩ বছরের প্রতিবন্ধীকে ৬৫ বছরের বৃদ্ধের ধর্ষণ

সাংসদের গাড়ি উল্টোপথে, ট্রাফিক পুলিশের বাধা(ভিডিওসহ)

পঙ্কজ রায়ের জামিন মঞ্জুর

মাছ পরিবহনের কাভার্ডভ্যানে এক লাখ ২০ হাজার ইয়াবা

আম্পায়ারের সঙ্গে সাকিবের এ কেমন আচরণ!

‘ফাঁকা মাঠে গোল দিয়ে ক্ষমতায় যেতে চাই না’

পৌরসভা থেকে সিটি করপোরেশন হচ্ছে ময়মনসিংহ

রাজধানীর নতুন থানা হাতিরঝিল

জঙ্গি হামলায় আরেক অর্থ সরবরাহকারী গ্রেপ্তার

সৌদি আরবে ২৪ হাজার অবৈধ অভিবাসী গ্রেপ্তার

রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় তারেক রহমানসহ চারজনের বিচার শুরু