দালাই লামাকে হুঁশিয়ারি উলফার

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২৯ মার্চ ২০১৭, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৫০
তিব্বতের নির্বাসিত ধর্মগুরু দালাই লামাকে আসামের সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী উলফার পরেশ বড়–য়া অংশের পক্ষ থেকে চীনের হয়ে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। আগামী  ৪ঠা এপ্রিল অরুণাচল প্রদেশের তাওয়াংয়ে বৌদ্ধ মঠে যাওয়ার কথা ৮১ বছর বয়সী বৌদ্ধ ধর্মগুরু দালাই লামার।  কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরেন রিজিজুরও দালাই লামার উপস্থিতির সময়ে সেখানে থাকার কথা। তার আগে, ১লা এপ্রিল আসাম যাওয়ার কথা দালাই লামার। সরাসরি চীনের হয়ে উলফার সওয়াল করার ঘটনা এই প্রথম বলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা জানিয়েছেন। উলফা (আই) গোষ্ঠীর নেতা পরেশ বড়–য়া দীর্ঘদিন চীনে আশ্রিত বলেই দাবি জানিয়ে আসছে ভারত। পরেশ বড়–য়ার নেতৃত্বাধীন উলফা (আই) গোষ্ঠীর অভিজিৎ আসোমের লেখা চিঠিতে দালাই লামাকে স্পষ্ট বলা হয়েছে, চীনকে চটাবেন না।
এতে শুধু ভারত ও চীনের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কই নষ্ট হবে না, আপনার প্রিয় তিব্বতও এর ফলে বিপন্ন হবে। কারণ ভারতের পরমাণু অস্ত্র মজুত রাখা আছে আসামের মাটিতে। একে প্রতিহত করতে পরমাণু অস্ত্রের পূর্ণ সদ্ব্যবহার করতে তৈরি চীনও, যার ফল ভুগতে হবে ভারতসহ তিব্বতকে। উলফা আরও জানিয়েছে, দালাই লামার কোনও অনুষ্ঠান অরুণাচল প্রদেশে করা, কিংবা সেই অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর উপস্থিতি কিছুতেই মেনে নেবে না চীন। অথচ চীনের সঙ্গে আসামের সাংস্কৃতিক ও ভাষাগত মিল অনেক। তাই চীনকে শত্রু করে দেওয়া আসাম তথা ভারতের পক্ষেও ঠিক হবে না। এর আগে দালাই লামার অরুণাচল সফর নিয়ে চীন কয়েকবারই ভারতকে প্রচ্ছন্ন হুঁশিয়ারি দিয়েছে। দালাই লামাকে তিব্বতি বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা বলেই মনে করে চীন। সেইসঙ্গে অরুণাচল প্রদেশের উপর অধিকার দাবি করে আসছে চীন বহুদিন ধরে।  তবে ভারত সরকার জানিয়ে দিয়েছে, দালাই লামা ভারতের সম্মানিত অতিথি। তাই তিনি ভারতের যেখানে খুশি যেতে পারেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন