এক মিটিংয়েই বদলে গেল সব

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২১ মার্চ ২০১৭, মঙ্গলবার
নিজেদের শততম টেস্টে কি করবে বাংলাদেশ? মুশফিকুর রহীম বাহিনী শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার আগ থেকে এই নিয়ে শুরু হয় আলোচনা। ক্রিকেটভক্তরা বেশির ভাগই স্বপ্নের  রঙিন বেলুনও উড়াতে শুরু করে। কিন্তু গল টেস্টে ২৫৯ রানের পরাজয়ে সেই বেলুন যেতে থাকে চুপসে। তবে কলম্বো  টেস্টে ইতিহাসকে হাতছাড়া করেনি টাইগার বোলার ও ব্যাটসম্যানরা। প্রথম দিনের প্রথম সেশনেই ৪ উইকেট তুলে নিয়ে লঙ্কানদের কোণঠাসা করেন টাইগার বোলাররা। আর তৃতীয়দিন ব্যাট হাতে পারফরমেন্সে ছড়িয়ে দিতে থাকেন স্বপ্ন সত্যি হওয়ার সুবাস।
অবশেষ লঙ্কানদের ৪ উইকেটে হারিয়ে স্বপ্ন সত্যিও করেন তারা। কিন্তু লঙ্কার বিপক্ষে চলতি সিরিজে দুই টেস্টে সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুস্তাফিজুর রহমানদের দেখা গেছে ভিন্ন দু’টি রূপ। অনেকেই রহস্য খুঁজেছেন কিভাবে রাতারাতি বদলে গেল তাদের শরীরের ভাষা ও তাদের আত্মবিশ্বাস! জানা গেল মাত্র এক ঘণ্টার এক টিম মিটিংয়েই এই পরিবর্তন। যা বদলে দিয়েছে গোটা বাংলাদেশ দলকে। তথ্যটি জানালেন খোদ দলের সেনাপতি। মুশফিক বলেন, ‘এই টেস্টে মাঠে নামার আগে আমরা ক্রিকেটাররা নিজেরাই মিটিংয়ে বসেছিলাম। মিটিংয়ে সবাইকে একটা কথাই বলা হয়েছিল, আমাদের সামর্থ্য আছে শ্রীলঙ্কাকে হারানোর। আগের টেস্টে কিভাবে হেরেছি তা নিয়ে চিন্তা করার দরকার নেই। আমরা যদি ব্যাটিং, বোলিং এবং ফিল্ডিং- তিন বিভাগেই ভালো করতে পারি তবে অবশ্যই আমরা জিতবো। সামর্থ্যের সেরাটা দিতে পারলে ওদের হারানো অসম্ভব কিছুই না।’
অধিনায়কের কথাই নয়, এই মিটিংয়ে কোচও ক্রিকেটারদের দিয়েছিলেন বদলে যাওয়ার মন্ত্র। মুশফিকের সঙ্গে সুর মেলান তিনিও। হাথুরুসিংহে বলেন, ‘তারা ড্রেসিং রুমে প্রাণখোলা আলোচনা করেছে যা ছিল দারুণ ইতিবাচক। এখানে আমি বেশকিছু ভালো দিক লক্ষ্য করেছি যেমন ওদের পাঁচদিন ধরে খেলার ক্ষমতা আছে। আমাদের এখনও বেশকিছু জায়গাতে উন্নতির প্রয়োজন আছে। তবে এই ম্যাচে বিরাট পার্থক্য গড়ে দিয়েছে তাদের শরীরী ভাষা ও প্রচেষ্টা।’ এছাড়াও মুশফিকুর রহীম জানান তারা একে- অপরের সঙ্গে কথা বলেছেন দলের ছোট ছোট বিষয়গুলো কতটা মূল্যবান হতে পারে তা নিয়ে।  যেমন ২০১২ সালে এশিয়া কাপের আগে, ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালের আগেও এমন রূদ্ধদ্বার মিটিং হয়েছিল।’  
বাংলাদেশ দল ওয়েলিংটন ও হায়দরাবাদ টেস্ট থেকে অনেক কিছু শিখেছিল। তবে তাদের একটি জয় দরকার ছিল বিশ্বকে দেখানোর জন্য যে তাদের প্রচেষ্টা নিছক নয়। যা তারা এই জয় দিয়ে করে দেখিয়েছে। মুশফিক বলেন, ‘আমরা আসলে বুঝতে চেষ্টা করেছি যে, মিস ফিল্ডিংয়ে রানগুলো কতটা মূল্যবান। প্রথম ইনিংসে তা চোখে না পড়লেও শেষ পর্যন্ত তা আমাদের ক্ষতির কারণই হয়। এই ছোট বিষয়গুলোই আমাদের উপলদ্ধি হয়। তবে আমি খুশি যে, তারা তা ধারণ করছে, বোলার ও ফিল্ডাররা তাদের দায়িত্ব ভালোভাবে পালন করেছে

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত এমপি গোলাম মোস্তফা আহমেদ

বিশ্ব সুন্দরীর মুকুট মানসী চিল্লার-এর

তবুও কুমিল্লার কাছে হারলো রংপুর

খেলার মাঠে দেয়াল ধসে দর্শক যুবকের মৃত্যু

‘বিচার বিভাগের স্বাধীনতার মৃত্যু ঘটেছে’

কুমারিত্বের দাম ৩ মিলিয়ন ডলার!

ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক আকরাম ৮ দিনের রিমান্ডে

১৫৪ টার্গেট গেইল-ম্যাককালামের

বাড়ি ফিরেছেন নিখোঁজ ব্যবসায়ী অনিরুদ্ধ রায়

শিক্ষার্থীদের মাথা ন্যাড়ার শর্তে এসএসসি’র ফরম পূরণ!

ইতিহাস বিকৃতিকারীদের বিরুদ্ধে দেশবাসীকে জাগ্রত হতে হবে

একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ

‘সমাবেশে জোর করে লোক আনা হয়েছে’

সিরিয়া ইস্যুতে আবারো রাশিয়ার ভেটো

ইরাক ও ইসরায়েল সুন্দরী একসঙ্গে সেলফি তুলে বিপাকে

‘বিএনপিকে দূরে রেখে নির্বাচনের ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে’