গাইবান্ধায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের পর উত্তেজনা

বাংলারজমিন

উত্তরাঞ্চল প্রতিনিধি | ২১ মার্চ ২০১৭, মঙ্গলবার
বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন পালন নিয়ে গাইবান্ধার সাঘাটায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা অব্যাহত রয়েছে। যে কোনো মুহূর্তে দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের আশঙ্কায় সতর্ক রয়েছে পুলিশ। এদিকে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপ উভয়পক্ষের অন্যায়ের প্রতিবাদে পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছে গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে। সাঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ সরকার বাবু গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে গতকাল সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন, সাঘাটা উপজেলার ম্যুরাল চত্বরে ১৭ই মার্চ শুক্রবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্ম বার্ষিকী ও শিশু দিবস নারী, শিশু ও নেতাকর্মীসহ বিপুল সংখ্যক মানুষের উপস্থিতিতে উদযাপিত হচ্ছে। এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি মিয়া। তাঁর বক্তব্য চলাকালে ওই এলাকার আওয়ামী লীগ নেতা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপনের সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্রসজ্জিত হয়ে তার নামে স্লোগান দিয়ে পরিকল্পিতভাবে সভা স্থলে ঢুকে পড়ে এবং হামলা চালায়।
শিশু-কিশোররা আতঙ্কে এদিক ওদিক ছোটাছুটি করায় শিশু-কিশোর এবং সাঘাটা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাসিরুল আলম স্বপনসহ অনেকে আহত হয়। এতে একটি শিশুর পা ভেঙ্গে যায়, সে বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাঘাটা উপজেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নাজমুল হুদা দুুদু, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বকুল, রেলওয়ে শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক হায়দার আলী, সাঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাফিজার রহমান মণ্ডল, সাঘাটা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ সভাপতি হারুন-অর রশিদ হিরু, সাধারণ সম্পাদক নাসিরুল আলম স্বপন, ফুলছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আকবর হোসেন, ফুলছড়ি উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান রোকন প্রমুখ। অপরদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্ম বার্ষিকী ও শিশু দিবস উপলক্ষে শ্রদ্ধাঞ্জলি দেয়ার সময় মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক সাঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ওয়ারেছ আলী প্রধানের উপর বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদ এবং প্রতীকার দাবিতে রোববার গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সাঘাটা-ফুলছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ যৌথভাবে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সাঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এস.এম সামশীল আরেফিন টিটু সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন, ১৭ই মার্চ স্থানীয় সংসদ সদস্য ফজলে রাব্বী মিয়ার সমর্থকরা বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালকে ঘিরে মঞ্চ তৈরি করে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির অবমাননা করেন। এ ছাড়া বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণের সময় স্থানীয় সংসদ সদস্য ফজলে রাব্বি মিয়া ও সাঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমানের উপস্থিতি ও তাদের নির্দেশে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ধারাল অস্ত্র, বেকি, হকিস্টিক ও লাঠিসোটা দিয়ে অতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে। গুরুতর আহত অবস্থায় প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা সাঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়ারেছ আলী প্রধানকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখন তিনি মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন।
 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

জনগণের দেয়া রায় মেনে নেবে বিএনপি: ফখরুল

দুই নারীর একজন স্বামী, অন্যজন স্ত্রী

আ’লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১৫

নওগাঁয় যুবককে কুপিয়ে হত্যা

গার্মেন্টে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ তদন্ত করছে এইচ অ্যান্ড এম

নাশকতার অভিযোগে ২০ শিবিরকর্মী আটক

বিএনপির বিজয় র‌্যালিতে যুবলীগ-ছাত্রলীগের হামলা

বিজয় উৎসব পালন করতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় ৮ মুক্তিযোদ্ধাসহ আহত ৯

আমৃত্যু এক যোদ্ধার কথা

ছাত্রদলের পুষ্পস্তবক ছিঁড়লো ছাত্রলীগ

ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে নিহত ২

‘স্বাধীনতার ৪৬ বছরে জাতির প্রত্যাশা অনেকটাই পূরণ হয়েছে’

বঙ্গবন্ধুর গৃহবন্দি পরিবারকে যেভাবে উদ্ধার করেছিলেন কর্নেল তারা

মিয়ানমারে আটক দু’সাংবাদিককের মুক্তি দাবি জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রও

ভারতে তিন তালাক বিরোধী খসড়া আইনে সরকারের অনুমোদন

বিরোধীরা আসলেই কাগুজে বাঘ: মোজাম্মেল হক