ক্ষমতায় টিকে থাকতেই জঙ্গিবাদের সাইনবোর্ড: রিজভী

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ২০ মার্চ ২০১৭, সোমবার
সরকার জোর করে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য জঙ্গিবাদের সাইনবোর্ড সামনে এনে পৃষ্ঠপোষকতা করছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। গতকাল বিএনপির নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ এ অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ নিয়ে আইজিপির বক্তব্যের সঙ্গে র‌্যাবের ডিজির বক্তব্যের কোনো মিল নেই। জঙ্গিবাদ দমনের ক্ষেত্রে সমন্বয়হীনতার একটা বিষয় চলছে। একটা ঘটনা ঘটার সঙ্গে সঙ্গে অন্য দলের ওপর তারা দোষ চাপিয়ে দিচ্ছে। তাতে স্পষ্ট মনে হয় যে, এই ঘটনাগুলোর সঙ্গে ও এই উগ্রবাদেরই সঙ্গে  সরকারের একটা সম্পর্ক আছে।
রিজভী বলেন, সরকারের যে গোপন এজেন্ডা, সেটিকে তারা বাস্তবায়ন করার জন্য জোর করে ক্ষমতায় থাকতে চায়। তারা নির্বাচন চায় না, ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে যেতে দিতে চায় না। কারণ ভোটাররা কেন্দ্রে গেলে, ভোট দেয়ার সুযোগ পেলে তারা হেরে যাবে। এই আশঙ্কা থেকেই উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদের সাইনবোর্ডকে সামনে এনে সেটাকে পৃষ্ঠপোষকতা করছে সরকার। এটা স্বাভাবিকভাবে মানুষের মনে এই প্রশ্নটা আসছে, যাচ্ছে। সর্বত্র আলোচনা হচ্ছে। রিজভী বলেন, জঙ্গিদের রক্তাক্ত সংঘাত শুরু হওয়ার পর থেকে সরকার নানা তত্ত্ব কথা শুনিয়ে এসেছে। উগ্রবাদীদের নিত্যকার সহিংস ঘটনা শুরু হওয়ার পর থেকেই সরকারের মন্ত্রী ও নেতাদের উগ্রবাদীদের নির্মূল করার বিষয়ে নানা তর্জন-গর্জন শুনেছে দেশবাসী। কিন্তু নির্মূল তো দূরে থাক, সমপ্রতি গত কয়েক দিনে উগ্রবাদীদের সহিংস ঘটনায় মনে হচ্ছে, এদের নেটওয়ার্ক আরো বেশি বিস্তৃত হয়েছে। এ সময় তিনি চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান এবং রাজধানীর আশকোনা ও খিলগাঁওয়ে র‌্যাবের উপর আত্মঘাতী হামলার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে সরকারের সমন্বয়হীনতায় নিন্দা জানান। রিজভী বলেন, প্রতিরক্ষা চুক্তি একটি দেশের জন্য অত্যন্ত স্পর্শকাতর বিষয়। পৃথিবীতে শক্তিশালী ও অপেক্ষাকৃত কম শক্তিশালী দেশের মধ্যে সামরিক চুক্তি হলে সব সুবিধা শক্তিশালী দেশই পেয়ে থাকে। ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে প্রস্তাবিত সামরিক চুক্তিতে এর থেকে কোনো ব্যতিক্রম হবে বলে মনে হয় না। তিনি বলেন, ভারতের সঙ্গে প্রতিরক্ষা চুক্তি হলে বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার গোপনীয়তা বলে কিছু থাকবে না। শক্তিশালী দেশ হিসেবে ভারত নিয়ন্ত্রকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হবে। তাতে বাংলাদেশের স্বাধীনতা হবে বিপন্ন এবং সার্বভৌমত্ব দুর্বল হবে। আওয়ামী সরকার সব সময় ভারতকে খুশি করতে সদা তৎপর থেকেছে। কিন্তু ভারত অকৃত্রিম বন্ধুত্বের কথা বলে বাংলাদেশ থেকে একচেটিয়া সুবিধা হাতিয়ে নিলেও বাংলাদেশ পায় লবডঙ্কা। আমরা বলতে চাই, ভারতের সঙ্গে প্রতিরক্ষা চুক্তি দেশের জনগণ কখনোই মানবে না। সংবাদ সম্মেলনে দলের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, কেন্দ্রীয় নেতা আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, আবদুস সালাম আজাদ, তাইফুল ইসলাম টিপু ও আবু নাসের রহমাতুল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Shajid

২০১৭-০৩-২০ ০৬:০৫:৫২

জঙ্গি শব্দটি যেহেতু ইসলামরে সাথে জড়িয়ে দিয়েছে সেহেতু এই বিষয়ে দেশের হক্কানী আলেম ওলামাকে নিয়ে চিন্তা করা উচিত। সরকার মাঠে ময়দানে থাকা কথিত জঙ্গি ধরে এবং নানা কৌশলে হত্যা করে অথচ জনগন জানেনা এইসব কথিত জঙ্গিকে কারা ব্যবহার করে এবং যারাই ব্যবহার করুনক না কেন তাদের লক্ষ্য উদ্দিশ্য কি। সরকার এই দুই তথ্য প্রকাশ করিলে জনগনের সহায়াতায় বাংলাদেশ থেকে জঙ্গি নির্মূল সহজ হইত। কোনো রাজনৈতিক/অরাজনৈতিক সংগঠন ক্ষিপ্ত হয়ে আন্ডারগ্রাউন্ড থেকে যদি এইসব অপরাধ ঘটাইয়া থাকে তাহলে তাদেরকে সাধারণ জঙ্গি বানাইয়া উড়াইয়া দেয়া তথা হালকা করে দেখাই হবে আত্নঘাতি। দেশের বিজ্ঞ আলেম ওলামদের অভিমত হইল পবিত্র ধর্ম ইসলামকে বিতর্কিত করার এবং সন্ত্রাসী ধর্ম হিসাবে প্রতিষ্টিত করার চেষ্টা নতুন নয়, বেদ্বীনেরা ইসলামের শুরুর জমানা থেকেই চেষ্টা করে আসতেছে কিন্তু সফল হয় নাই, হাল জমানায় বেদ্বীনেরা তো আছেই সাথে মুসলমানের ভেতর যুগে যুগে যেইসব ফেতানা এসেছে বর্তমানে তারাই পবিত্র ইসলামকে বিতর্কিত করার ক্ষেত্রে প্রধান এবং মাঠের ভূমিকা পালন করতেছে। একটু নজর দিলে দেখা যায় ইসলামের হক পন্থীকে বিতর্কীত করার জন্য চারিদিক থেকে কতইনা প্রচারনা চালাচ্ছে, কত ভাবেই কটুক্তি আর মূল বক্তব্যকে আড়াল করে খন্ডিত বক্তব্য নিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে, বিজ্ঞ আলম ওলামাদের অভীমত হইল এইসব ফেতনাবাদের মধ্যে একটি গ্রুপ রয়েছে তারা ইসলামরে অতি দরদ দেখাইয়া ইসলামের নামে হত্যাযজ্ঞ চালাচ্ছে যাহা পবিত্র ইসলাম কখনও অনুমোদন করে নাই এবং করেও না।

আপনার মতামত দিন

গেদে সীমান্তে পিতা-পুত্রের মিলন, আবেগঘন এক দৃশ্য

বিএনপির নেতার বাসার সামনে থেকে বোমা উদ্ধার

‘পুরুষের চেয়ে নারীরা বেশি যৌন নিপীড়ক’

কেক কেটে তারেক রহমানের জন্মদিন পালন

ডাকাতি, নিরাপত্তাহীনতায় ঢাকায় ভারতীয় কোম্পানি সম্প্রসারণ পরিকল্পনা স্থগিত

রাজধানীতে মাদ্রাসা ছাত্রের গলাকাটা লাশ উদ্ধার

ধর্ম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে উঠেছে

আওয়ামী লীগ নেতাকে গলা কেটে হত্যা

‘আপাতত ভাত-রুটি থেকে দূরে আছি’

মা ও ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা করলো যুবক

৩৫ লাখ টাকার মোবাইল

দেখা হলো কথা হলো

দল থেকে বহিষ্কার মুগাবে

‘রোহিঙ্গাদের নির্যাতন যুদ্ধাপরাধের শামিল’

কানাডার উন্নয়নমন্ত্রী আসছেন মঙ্গলবার

ব্যক্তির নামে সেনানিবাসের নামকরণ মঙ্গলজনক হবে না: মওদুদ