ট্রাম্প টাওয়ারে ফোনে আড়িপাতার প্রমাণ পায় নি হাউজ ইন্টেলিজেন্স কমিটি

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৬ মার্চ ২০১৭, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৬:৫০
সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বিরুদ্ধে আনা প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের ট্রাম্প টাওয়ারে ফোনে আড়িপাতার কোনোই প্রমাণ পায় নি মার্কিন কংগ্রেসের হাউজ ইন্টেলিজেন্স কমিটি। তারা বলেছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এ সংক্রান্ত টুইটকে যদি কেউ আক্ষরিক অর্থে নেন তাহলে স্পষ্টতই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ভুল বলেছেন। কমিটি বলেছে, তারা বিশ্বাস করে না প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ফোনে আড়ি পেতেছেন বারাক ওবামা। এ খবর দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট। এতে বলা হয়, এ মাসের শুরুর দিকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অভিযোগ করেন যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচনী প্রচারণা চলাকালে তার ট্রাম্প টাওয়ারে ফোনে আড়ি পাতার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল হোয়াইট হাউজ থেকে। তবে তিনি এমন দাবির পক্ষে এখন পর্যন্ত কোনো প্রমাণ দিতে পারেন নি।
তার এ অভিযোগ তদন্ত করতে কংগ্রেসের প্রতি আহ্বান জানায় হোয়াইট হাউজ। তদন্ত করতে রাজি হয় দুটি কমিটি। তারা ট্রাম্পের অভিযোগের পক্ষে তথ্য চায় আইন মন্ত্রণালয়ে। এরই মধ্যে মঙ্গলবার হোয়াইট হাউজ থেকে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট যা বলেছেন তা যথার্থ বলে প্রমাণিত হবে বলে অত্যন্ত আস্থাশীল ট্রাম্প। কিন্তু তার পরদিন বুধবার হাউজ ইন্টেলিজেন্স কমিটির রিপাবলিকান দলের চেয়ারম্যান ডেভিন নানিস বলেছেন, তিনি বিশ্বাস করেন না ট্রাম্পের ফোনে আড়ি পাতা হয়েছিল। তার ভাষায়, গত সপ্তাহে আমি আপনাদেরকে ট্রাম্প টাওয়ারে ফোনে আড়ি পাতা নিয়ে প্রেসিডেন্টে বক্তব্যের বিষয়ে অবহিত করেছিলাম। এখনও ওই অভিযোগের বিষয়ে প্রমাণ একই রকম। আমাদের হাতে এমন কোনো প্রমাণ এখনও পাই নি যে, ফোনে আড়ি পাতার ঘটনা ঘটেছিল। আমি এটা বিশ্বাস করি না। ট্রাম্প টাওয়ারে প্রকৃতপক্ষে কোনো ফোনে আড়ি পাতা হয়েছিল বলে আমি বিশ্বাসই করি না। এখন আপনাদেরকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে আসলেই (প্রেসিডেন্টের এ সংক্রান্ত) টুইট আক্ষরিক অর্থেই নেবেন কি না। যদি আপনি তা করেন তাহলে স্পষ্টতই প্রেসিডেন্ট ভুল বলেছেন। এই কমিটিতে ডেমোক্রেট দলের সিনিয়র কংগ্রেসম্যান এডাম শিফ বলেছেন, এ ঘটনা আমাকে উদ্বিগ্ন করে। কারণ, প্রেসিডেন্ট কোনো ভিত্তি বা প্রমাণ ছাড়া এতবড় একটি অভিযোগ করতে পারলেন! ওদিকে সুর বদলেছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মুখপাত্র শন স্পিসারের। তিনি টুইটে কিছুটা দূরত্ব বজায় রাখার চেষ্টা করেছেন। তিনি বলেছেন, তিনি আসলে ব্যাপক অর্থে নজরদারি নিয়ে কথা বলছেন। এর অর্থ আড়ি পাতা বোঝাবেই এমনটা নয়। কিন্তু এ সপ্তাহে তিনি বলেছেন, আমি চাই কমিটি তার কাজ করুক। ২০১৬ সালে নির্বাচনের সময় ‘সার্ভিলেন্স টেকনিকস’ নিয়ে উল্লেখযোগ্য পরিমাণে রিপোর্ট হয়েছে। বিষয়টিতে কংগ্রেশনাল কমিটি রিপোর্ট দেবে। আমি এটা তাদের ওপর ছেড়ে দিলাম। তবে তিনি (প্রেসিডেন্ট) দৃঢ়তার সঙ্গে আস্থাশীল যে বিষয়টি তার পক্ষেই যাবে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বিদেশি হস্তক্ষেপ রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান হবে না : বেইজিং

ছাত্রলীগ নেতাসহ তিনজন চারদিনের রিমান্ডে

সোনাজয়ী শুটার হায়দার আলী আর নেই

মালয়েশিয়ায় ভূমি ধসে তিন বাংলাদেশি নিহত

নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত মুক্তামনি

খাল থেকে উদ্ধার হলো হৃদয়ের লাশ

রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানকে কঠিন পর্যায়ে নিয়ে গেছে সরকার: খসরু

সঙ্কট সমাধানে প্রয়োজন পরিবর্তন: দুদু

চোখের চিকিৎসা করাতে লন্ডনে গেলেন প্রেসিডেন্ট

সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ আওয়ামী লীগের সদস্য হতে পারবে না

বৌদ্ধ ভিক্ষু সেজে কয়েক শত কিশোরীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক

৫০ বছরের মধ্যে জাপানে কানাডার প্রথম সাবমেরিন

ছিচকে চোর থেকে মাদক সম্রাট!

বোতলে ভরা চিঠি সমুদ্র ফিরিয়ে দিল ২৯ বছর পর!

কার সমালোচনা করলেন বুশ, ওবামা!

জুমের মাধ্যমে পেমেন্ট নিতে পারবেনা বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা