সব বিশ্ববিদ্যালয়ে চালু হচ্ছে অভিন্ন সিলেবাস

শিক্ষাঙ্গন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, রবিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:১২
দেশের উচ্চ শিক্ষার সিলেবাসকে এক ছাতার নিছে আনতে বিশেষ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এজন্য উচ্চ শিক্ষার সিলেবাসে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হচ্ছে। গতানুগতিকতা সেকেলের সিলেবাস বাদ দিয়ে যুগোপযোগী  সিলেবাস করার পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। আর এই সিলেবাস বাস্তবায়নে অর্থায়ন করবে সরকার। আগামী বছর থেকে এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে চায় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এমন তথ্য জানা গেছে।
বর্তমানে সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিলেবাসকে আরো তথ্যপ্রযুক্তি-প্রকৌশল প্রযুক্তি এবং জ্ঞান-গবেষণা সমৃদ্ধ করে বিশ্ব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় উপযোগী করা হবে।
এজন্য কারিকুলামে ব্যাপক পরিবর্তন আনার পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। এর জন্য আর্থিক সহায়তা দিবে সরকার।
ইউজিসির সূত্রে জানা গেছে, বিজ্ঞান-প্রকৌশল-প্রযুক্তি বিষয়ে সেমিস্টার, ক্রেডিট এবং স্ট্যান্ডার্ড গ্রেডিং পদ্ধতি নির্ধারণ করে দেবে কমিশন। তারই আলোকে গবেষণা কার্যক্রমকেও জোরদার করতে প্রয়োজনীয় আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে। এর জন্য নীতিমালা-বিধিমালারও প্রয়োজন হতে পারে, তা করতেও উদ্যোগ নেয়া হবে। এজন্য ইউজিসির সদস্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ইউসুফ আলী মোল্লার নেতৃত্বে একটি বিশেষজ্ঞ দল উচ্চশিক্ষার কারিকুলামের গাইডলাইন প্রণয়ন করছেন। রিসোর্স পারসন হিসেবে ইউজিসি সাবেক সদস্য অধ্যাপক ড. এম. মুহিবুর রহমান, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মোজাহার আলী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা অনুষদের অধ্যাপক ড. মো. ছিদ্দিুকুর রহমান কাজ করছেন। উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়ন প্রকল্পের (হেকেপ) আর্থিক সহযোগিতায় এ কাজটি হচ্ছে। এ বিষয়ে সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টেকহোল্ডারদের নিয়ে জাতীয় কর্মশালাও করা হবে ইউজিসির উদ্যোগে।
ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেন, এটা আরো অনেক আগে করা প্রয়োজন। নানা কারণে হয়নি। সিলেবাস ও কারিকুলাম যুগোপযোগী করা সময়ের দাবি। সেই দাবি পূরণে আমরা ব্যাপক কাজ হাতে নিয়েছি। এর জন্য আমরা দেশি ও আন্তর্জাতিক সমর্থক পাচ্ছি। উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়ন প্রকল্পের (হেকেপ) অধীনে এ কাজ সম্পন্ন হবে বলেও জানান তিনি।
জানা গেছে, সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমান কারিকুলাম অনেক আগের। এ কারিকুলাম উচ্চশিক্ষিত তৈরি হলেও বিশ্বের সঙ্গে তাল দেয়ার মতো জনবল তৈরি হচ্ছে না। তাছাড়া তথ্য ও প্রযুক্তি আর প্রকৌশলীহীন জনশক্তি তৈরি হচ্ছে। এতে বিশ্বের শ্রম বাজার হারাচ্ছে। দেশে প্রযুক্তিনির্ভর জনশক্তির অভাবই শুধু নয়, অন্য সংকটও বিদ্যমান। অথচ এ সংকট মোকাবিলার জন্য চালু বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতেও কোনো গবেষণা নেই। এমনকি কোনো পরিকল্পনাও নেই। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে গতানুগতিক সিলেবাস দিয়ে বিভিন্ন বিভাগে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর কোর্স পরিচালিত হচ্ছে। এ ছাড়াও একেক বিশ্বিবিদ্যালয়ে একেক পদ্ধতিতে উত্তরপত্র মূল্যায়ন করছে। সেমিস্টার, কোর্স ক্রেডিট ও গ্রেডিং পদ্ধতিতেও রয়েছে ভিন্নতা। কোনো প্রতিষ্ঠানে ৮০ নম্বরে এ-প্লাস আবার কোথাও ৯৫ নম্বরে এ-প্লাস ধরা হচ্ছে। এতে করে শিক্ষার্থীদের মানের দিক থেকেও সমতার অভাব দেখা দিয়েছে। পাশাপাশি রয়েছে কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মানহীনতা ও সার্টিফিকেট বাণিজ্য। সার্টিফিকেট বাণিজ্যের কারণে দেশে-বিদেশে বাংলাদেশি জনশক্তির ব্যাপারে বিরূপ প্রতিক্রিয়াও দেখা যাচ্ছে। তাই শিক্ষার গুণগতমান নিশ্চিত করার জন্য দেশের সব সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অভিন্ন কারিকুলামে চিন্তা করছে উচ্চশিক্ষা তদারকি প্রতিষ্ঠান বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সবার মতামত ও সুপারিশও নেয়া হবে। এর পরই চূড়ান্ত পদক্ষেপ নেয়া হবে।
ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেন, বর্তমান কারিকুলাম বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের স্নাতক শিক্ষার্থীদের জন্য যথাযথ নয়। আমাদের কারিকুলামগুলো ১০ থেকে ১৫ বছরের পুরনো। ক্রমবর্ধমান বিশ্বের দক্ষ ও জ্ঞানভিত্তিক শিক্ষার্থীদের সঙ্গে টিকে থাকতে দেশে আধুনিক কারিকুলাম প্রণয়ন জরুরি হয়ে পড়েছে। তিনি বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনেক বিষয় পড়ানো হলেও তাদের সিলেবাস নিয়ে নানা বিতর্ক রয়েছে। দেশে-বিদেশে চাকরি বাজারে প্রবেশের জন্য দক্ষ জনশক্তি হিসেবে আমাদের ছাত্রছাত্রীদের গড়ে তোলার জন্য সবাইকে সমন্বিত উদ্যোগ নিতে হবে।

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Mohammed Mohsin Khan

২০১৭-০৩-০৩ ২০:২৭:৫৯

It is a great step to go ahead. I pray for its success quickly.

Rokan

২০১৭-০২-১৮ ১১:১৪:৫১

Hope to have the output

আপনার মতামত দিন

শিক্ষিকা-ছাত্রের যৌন সম্পর্ক, অতঃপর...

রাবি অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার

‘সমাবেশে জোর করে লোক আনা হয়েছে’

যুদ্ধাপরাধের ২৯তম রায়ের আপেক্ষা

ঈদে মিলাদুন্নবী নিয়ে চাঁদ দেখা কমিটির সভা কাল

সিরিয়া ইস্যুতে আবারো রাশিয়ার ভেটো

হারিরির সৌদি আরব ত্যাগ

ঢাকায় চীন-বাংলাদেশ বৈঠক শুরু

প্যারাডাইস পেপারসে শিল্পপতি মিন্টু ও তার পরিবারের নাম

ঝুঁকিপূর্ণ উপায়ে আসছে রোহিঙ্গারা, ইউএনএইচসিআরের উদ্বেগ

নৌকায় বসেই ভাষণ দেবেন শেখ হাসিনা

ইবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগ সংঘর্ষ-ভাংচুর

নিজ দলে বিদ্রোহ, আজ মুগাবের পদত্যাগ দাবিতে বিক্ষোভ

ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক গ্রেপ্তার

ইরাক ও ইসরায়েল সুন্দরী একসঙ্গে সেলফি তুলে বিপাকে

‘বিএনপিকে দূরে রেখে নির্বাচনের ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে’