‘নির্বাচনকালীন সরকারের প্রধান থাকবেন শেখ হাসিনা’

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, শুক্রবার, ৬:৩২
আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিশ্বের অন্যান্য সংসদীয় গণতান্ত্রিক দেশের মত বাংলাদেশেও জাতীয় সংসদ নির্বাচনকালীন সরকারের প্রধান থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর নির্বাচন কমিশন (ইসি)’র অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্বের অন্যান্য সংসদীয় গণতান্ত্রিক দেশে যেভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় আমাদের দেশেও সেভাবেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
শুক্রবার রাজধানীর সেগুনবাগিচাস্থ শিল্পকলা একাডেমীর মহড়া কক্ষে বিশিষ্ট পরমানু বিজ্ঞানী ড. ওয়াজেদ মিয়ার ৭৫ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। জোটের কার্যকরি সভাপতি সৈয়দ হাসান ইমামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির ভিসি অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নান চৌধুরী, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি ড. ইনামুল হক, শিল্পকলা একাডেমীর মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী ও আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট বলরাম পোদ্দার। বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. হাছান মাহমুদ বলেন, গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আহবান জানিয়েছিলেন। কিন্তু বিএনপি-জামায়াত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহবান প্রত্যাখ্যান করে নির্বাচন প্রতিহত করার পথ বেছে নিয়েছিলেন। তিনি বলেন, বিএনপির এ ভুল রাজনীতির জন্য তারা জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছেন। আগামী নির্বাচনে বিএনপি আর এ ধরনের আত্মহননের পথ বেছে নেবেন না বলে মনে হয়।
তিনি বলেন, গত জাতীয় সংসদ নির্বাচন যেমন কারো জন্য থেমে ছিল না তেমনি আগামী জাতীয় নির্বাচনও কারও জন্য বসে থাকবে না। নির্ধারিত সময় শেষেই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে পাঠানোর কোন ইচ্ছা সরকারের নেই- উল্লেখ করে তিনি বলেন, তাকে (বেগম জিয়া) জেলে পাঠানোর কোন ইচ্ছা সরকারের নেই। আদালত এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। এ বিষয়ে তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতি করে থাকলে তার বিচার হবে। আর তা না করলে খালাস পাবে। এ বিষয়ে সরকারের কোন এখতিয়ার নেই। আদালতের রায়ই চূড়ান্ত। ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারে বিএনপির বক্তব্যের জবাবে ড. হাছান বলেন, বেগম খালেদা জিয়া তার জ্ঞানের স্বল্পতার জন্য ইভিএম ব্যবহারের বিষয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। কারণ ইভিএম একটি আধুনিক পদ্ধতি। প্রযুক্তিগত এ পদ্ধতি সম্পর্কে জানার জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকা আবশ্যক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী নির্বাচনে ইভিএম পদ্ধতি ব্যবহারের বিষয়ে মতামত ব্যক্ত করেছেন। আর নির্বাচন কমিশন (ইসি) এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন।
ড. হাছান বলেন, বিদেশে তথ্য পাচার হয়ে যাওয়ার ভয়ে বিএনপি সরকার সাবমেরিন ক্যাবল স্থাপন করেনি। কিন্তু বর্তমান সরকার ক্ষমতায় থাকার সময়ে সাবমেরিন ক্যাবল স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিলেও কোন তথ্য বিদেশে পাচার হয়ে যায়নি।


 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

shibli

২০১৭-০২-১৭ ১১:০১:২১

"প্রযুক্তিগত এ পদ্ধতি সম্পর্কে জানার জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকা আবশ্যক।" তাহলে বাংলাদেশের অনেক ভোটার ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দিতে পারবে না!

a-z

২০১৭-০২-১৭ ০৭:০৬:৫০

Who gave you authority to anaunce this?

আপনার মতামত দিন

সাংবাদিক শিমুল হত্যা: পলাতক ৯ আসামীর আত্মসমর্পণ

এমপি এনামুল হকের বিরুদ্ধে জেএমবিকে মদতসহ বিস্তর অভিযোগ

নিহত জঙ্গি আব্দুল্লাহ’র স্ত্রী গ্রেপ্তার

​৩০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার

নিহত কিশোরের লাশ উদ্ধার

জেএমবির তিন সদস্যের ১৪ বছর কারাদণ্ড

শচীন যা পরেননি পৃথ্বি তা-ই পারলেন

টেকনাফে ৫ কোটি ৭০লক্ষ টাকার ইয়াবা উদ্ধার

‘নিজ অবস্থান থেকে আইন মানলে দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণে আসবে’

চাল আমদানি করছেন না ব্যবসায়ীরা

তারেকের গ্রেপ্তার সংক্রান্ত প্রতিবেদন ৩১শে ডিসেম্বর

প্লেবয় মডেল হারতে’র ‘মজা’

ইরাকে আগ্রাসনের হুমকি এরদোগানের

এতিম রোহিঙ্গা শিশুদের জন্য আলাদা ব্যবস্থা করা হচ্ছে

মাঝারী ধরনের ভারী বর্ষণের আশঙ্কা

বিস্ময়কর উত্থান ঘটলেও জার্মানিতে এএফডি’র নেতা কে!