স্যামসাং-এর প্রধান ও ভবিষ্যৎ মালিক আটক

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ৬:৩৩
বৈশ্বিক প্রযুক্তি ও ইলেক্ট্রনিক্স জায়ান্ট স্যামসাং-এর প্রধান ও ভবিষ্যৎ মালিক লি জ্যা-ইয়ং ঘুষপ্রদান ও অন্যান্য অভিযোগে আটক হয়েছেন। দক্ষিণ কোরিয়া জুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি করা এক কেলেঙ্কারিতে যোগসূত্র থাকার দায়ে তাকে আটক করা হয়েছে। ওই কেলেঙ্কারির জেরে দেশটির প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউং-হাইকে অভিসংশিত হতে হয়েছে। দেশটির বৃহত্তম কর্পোরেট ব্রান্ড স্যামসাং-এর বিরুদ্ধে অভিযোগ, কোম্পানিটি সরকারের কাছ থেকে সুবিধা পাওয়ার বিনিময়ে প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউং-হাইয়ের প্রভাবশালী বন্ধু চৈ সুন-সিল-এর কয়েকটি অলাভজনক ফাউন্ডেশনে অনুদান দিয়েছে। তবে লি জ্যাং-ইয়ং কোন ধরণের অন্যায় কিছু করার অভিযোগ অস্বীকার করেছে। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।
খবরে বলা হয়, স্যামসাং-এর ভারপ্রাপ্ত এই প্রধানকে কৌঁসুলিরা প্রথম জানুয়ারিতে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তখন তাকে গ্রেপ্তার না করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে এ সপ্তাহের শুরুতে তাকে দ্বিতীয়বারের মতো জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। শুক্রবার আদালত বলেছে, নতুন করে আনা ফৌজদারি অপরাধের অভিযোগ ও নতুন প্রমাণের প্রেক্ষাপটে তাকে গ্রেপ্তার করার প্রয়োজনীয়তা আদালত স্বীকৃতি দিয়েছে।
আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ দাখিলের আগে সরকারী কৌঁসুলিরা আগামী ২০ দিন তদন্ত করবেন। তবে এই গ্রেপ্তারের অর্থ এই নয় যে, তিনি দোষী বা নির্দোষ বলে আদালত মনে করছেন। বরং, এর কারণ হচ্ছে আদালত সম্ভাব্য অপরাধকে খুবই গুরুতর ভাবছেন কিংবা আসামী দেশ ছেড়ে যেতে পারেন বলে আশঙ্কা করছেন।
সরকারী কৌঁসুলিদের অভিযোগ, লি জ্যাং ইয়াং প্রায় ৩ কোটি ৬০ লাখ ডলারের অনুদান দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট পার্কের ঘনিষ্ঠ বান্ধবী চৈ সুন-সিলের বিভিন্ন ফাউন্ডেশনে। কৌঁসুলিদের অভিযোগ, এসব অনুদান দেওয়া হয়েছে স্যামসাং-এর বড় ধরণের পুনর্গঠনে সরকারের সমর্থন জিততে। ওই পুনর্গঠন সম্ভব হলে স্যামসাং-এর নেতৃত্ব মসৃণভাবে মি. লি’র দিকে ঝুঁকবে। মি. লি বর্তমানে স্যামসাং গ্র“পের ভাইস চেয়ারম্যান। তবে অসুস্থ পিতা লি কুন-হির অনুপস্থিতিতে তিনি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন। তাকেই দেশের সবচেয়ে ধন্যাঢ্য এই পরিবার ও প্রকা- স্যামসাং গ্রুপের ভবিষ্যৎ উত্তরাধিকারী ভাবা হয়।
বিতর্কিত ওই পুনর্গঠন বা একত্রীকরণের জন্য জাতীয় পেনশন ফান্ডের সমর্থন প্রয়োজন ছিল। অভিযোগ রয়েছে, প্রেসিডেন্টের বান্ধবীর ফাউন্ডেশনগুলোতে অনুদান দিয়ে ওই সমর্থন আদায় করেছেন লি। ডিসেম্বরে এক বিরল পার্লামেন্টারি শুনানিতে, স্যামসাং স্বীকার করেছে তারা দুইটি ফাউন্ডেশনে প্রায় ১.৮ কোটি ডলার অনুদান দিয়েছে। তবে তাদের দাবি, এক্ষেত্রে কোন সুবিধা চায়নি তারা। লি আরও নিশ্চিত করেছেন যে, প্রেসিডেন্টের বান্ধবী চৈ-এর অশ্বারোহী মেয়ে চাং ইয়ু-রার ক্যারিয়ারে সাহায্য করতে তিনি একটি ঘোড়া ও অর্থ উপহার দিয়েছিলেন। লি বলেন, তিনি ওই সিদ্ধান্ত নিয়ে অনুতাপে ভুগছেন।
এর আগে এই কেলেঙ্কারিতে পার্লামেন্টে অভিশংসিত হয়েছেন খোদ প্রেসিডেন্ট পার্ক। তার সঙ্গে চৈ-এর ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থেকে কাল্ট কর্মকান্ড, প্রভাব বিস্তার ও অতিগোপনীয় তথ্য প্রকাশের অভিযোগ উঠে। চৈ ছিলেন প্রেসিডেন্ট পার্কের দীর্ঘদিনের পারিবারিক বন্ধু। চৈ-এর পিতাও ছিলেন পার্কের পিতার ঘনিষ্ঠ বন্ধু। সত্তরের দশকে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ছিলেন পার্কের পিতা।
চৈ-এর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বন্ধুত্বের সুবাধে তিনি রাজনীতিতে হস্তক্ষেপ করেছেন। বর্তমানে তার বিচার চলছে। তার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যাবহার, বলপূর্বক জালিয়াতি চেষ্টার অভিযোগ আনা হয়েছে। তবে তিনি অন্যায় কিছু করার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
ডিসেম্বরে পার্লামেন্ট প্রেসিডেন্ট পার্ককে অভিশংসিত করে। বর্তমানে সাংবিধানিক আদালতে বিষয়টি রয়েছে। সেখানে চূড়ান্ত ফয়সালা হওয়ার আগে পার্কের প্রেসিডেন্সিয়াল ক্ষমতা থাকবে না।
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন