শেরপুরে প্রেমিকের বাড়িতে এসে লাঞ্ছিত আয়েশা

বাংলারজমিন

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি | ১২ জানুয়ারি ২০১৭, বৃহস্পতিবার
বিয়ের দাবিতে ঢাকা থেকে শেরপুরে প্রেমিকের বাড়িতে এসে লাঞ্ছিত হয়েছে এক তরুণী। ঘটনাটি শেরপুরের ৭নং ওয়ার্ডের টাউন কলোনি পাড়ায় ঘটেছে। অবশেষে বাড়ির লোকজন আয়েশাকে মারপিট করে শেরপুর থানা পুলিশে সোপর্দ করেছে। আয়েশা জানান, প্রায় আড়াই বছর আগে বগুড়ার সোনাতলা উপজেলায় একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে তার এক বান্ধবীর মাধ্যমে পরিচয় হয় শেরপুর পৌর শহরের টাউন কলোনি পাড়ার আবুল হোসেনের পুত্র জুবায়ের হোসেন (২৬)এর সঙ্গে। এরপর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ থেকে গভীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ থেকে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই দুইজনে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয়ে শারীরিক সম্পর্কে গড়ায়। কিছুদিন পর আয়েশা সিদ্দিকা ঢাকার সাভারে অনন্ত নামের একটি গার্মেন্টে চাকরি নেয়। জোবায়েরের সঙ্গে সেখান থেকে প্রতিদিন মোবাইল ফোনে বারবার যোগাযোগ চলতে থাকে। তারপর ঢাকায় গিয়ে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয়ে মাসের পর মাস একত্রে বাসাভাড়া নিয়ে সংসার পাতে দুইজনে। এর মাঝে সাড়ে ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে আয়েশা সিদ্দিকা। তখন বিষয়টি অত্যন্ত গোপনে ঢাকায় একটি ক্লিনিকে নিয়ে আয়েশার গর্ভের সন্তান নষ্ট করা হয়। এদিকে প্রায় মাস খানেক আগে জোবায়ের হোসেন আয়েশাকে শেরপুরে আসতে বলে বিয়ের কাজ সম্পন্ন করার জন্য। এ কারণে গত সোমবার বিকালে আয়েশা শেরপুরে আসার পর তাকে টাউন কলোনি পাড়ার নিজ বাড়িতে নিয়ে যায় জোবায়ের। এরপর আয়েশাকে বাড়ির গেটে রেখে ৪/৫ ঘণ্টা পর সেখান থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয়। গত সোমবার রাতে বাড়ির গেটে অবস্থান নেয়ার পর ওই রাতেই জোবায়েরের এক  চাচার বাড়িতে আশ্রয় নেয় আয়েশা। এরপর গত মঙ্গলবার আবারও তাকে মারপিট করে শেরপুর থানায় দেয়া হয়।


 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন