দেশে আসা হলো না গিয়াসের

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার থেকে | ১২ জানুয়ারি ২০১৭, বৃহস্পতিবার
২০০৫ সাল থেকে সৌদি আরবে প্রবাস জীবনে ছিলেন গিয়াস উদ্দীন (৩৫)। এই দীর্ঘ সময়ে মাত্র দু’বার দেশে এসেছিলেন। আগামী সপ্তাহে তৃতীয়বারের মতো দেশে আসার জন্য সব কিছু গোছাচ্ছিলেন তিনি। এদিকে স্বজনরাও তার পানে চেয়ে ছিলেন অধীর অপেক্ষায়। কিন্তু বিধি বাম! কারো আশা পূর্ণ হলো না। একটি দুর্ঘটনা কেড়ে নিলো সবার আশা।
বিদ্যুৎ দুর্ঘটনায় মারা গেছেন গিয়াস উদ্দীন। ভবন নির্মাণের কাজ করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ১০ই জানুয়ারি সৌদি সময় বেলা ১১টায় গিয়াস উদ্দীনের মৃত্যু হয়। তিনি কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুরের ইউনিয়নের মুকবেখী এলাকার মৃত গোলাম কুদ্দুসের পুত্র। তার দু’ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য ছৈয়দ আলম জানান, ২০০৫ সালে নির্মাণ কাজের ভিসা নিয়ে সৌদি আরব গিয়েছিলেন গিয়াস উদ্দীন। এই সময়ের মধ্যে তিনি দু’বার দেশে এসেছিলেন। এক সপ্তাহ পরে তার তৃতীয়বার দেশে আসার কথা ছিল। কিন্তু দুর্ঘটনা সব আশা চূর্ণ করে দিলো। গিয়াস উদ্দীনের মৃত্যুতে তার স্বজনরা শোকে ভেঙে পড়েছেন। তার স্ত্রী ও সন্তানদের আহাজারিতে আকাশ-বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। স্ত্রী ছকিনা খাতুন বলেন, স্বামী মারা যাওয়াতে আমাদের সব শেষ হয়ে গেছে। এখন আমরা তার মৃতদেহটা ফেরত চাই। এ জন্য সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

গাজীপুরে প্রাক্তন তিন সেনা সদস্যসহ ৪জন গ্রেপ্তার

খান আতা ইস্যুতে এফডিসিতে চলচ্চিত্র পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

আদালত অঙ্গনে খালেদার আইনজীবীদের হাতাহাতি

বন্যায় ৩০ শতাংশ ধান উৎপাদন কম হতে পারে

রাজধানীতে নিরাপত্তাকর্মীকে কুপিয়ে যখম

জেনারেল মইনকে আশ্বস্ত করেছিলেন প্রণব

সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

গভীর রাজনৈতিক সঙ্কটের আশঙ্কা কাতালোনিয়ায়

নাইকোর আবেদন তিন সপ্তাহ মুলতবি

চল্লিশ বছর পর আবার...

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে দায়ী করলো যুক্তরাষ্ট্র

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সভাপতি মজনু গ্রেপ্তার

কুয়েতে এসি বিস্ফোরণে নিহত পাঁচজনের মরদেহ দেশে,বিকালে দাফন

আমাদের অনেক এমপি অত্যাচারী, অসৎ : অর্থমন্ত্রী

মিয়ানমার থেকে শূন্য হাতে ফিরলেন জাতিসংঘ কর্মকর্তা

নির্বাচনের সময় অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির শঙ্কার কথা বললেন বার্নিকাট