কাঁদলেন ওবামা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১১ জানুয়ারি ২০১৭, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৬
ফার্স্টলেডি মিশেল ওবামার নাম উচ্চারণ করেই বাকরুদ্ধ হয়ে পড়লেন বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিধর প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তার মুখে কোনো কথা সরলো না বেশ কিছুটা সময়। আবেগে আপ্লুত হয়ে মঞ্চে দাঁড়িয়ে কাঁদছেন বারাক ওবামা। তার চোখ ছল ছল অশ্রুতে। বার বার দু’ঠোঁট ভিজিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছেন। চোখে মুখে ভেঙে পড়ছে বাধভাঙা এক কান্না।
টিস্যু হাতে নিয়ে চোখের কোণ থেকে অশ্রু মুছলেন যুক্তরাষ্ট্রকে স্বপ্নদ্রষ্টা ও বিশ্বের বুকে, যুক্তরাষ্ট্রে নতুন ইতিহাসের জন্ম দেয়া বারাক ওবামা। তার সামনে দর্শক সারিতে বসা স্ত্রী মিশেল ওবামা। তার পাশে মেয়ে মালিয়া। পিতার এমন দৃশ্য দেখে মালিয়াও কাঁদছে। তাকে সান্তনা দিচ্ছেন মিশেল ওবামা। তিনি নিজেকে অনেক কষ্টে ধরে রেখেছেন। তার বুকেও তখন উথাল পাতাল কান্না। দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে তিনি তা সামাল দিলেন। তার দিকে তাকিয়ে বারাক ওবামা বললেন, মিশেল যুক্তরাষ্ট্রকে গর্বিত করেছে। দু’মেয়ে মালিয়া ও সাশার প্রশংসা করলেন। বললেন, তোমাদের মতো মেয়ের পিতা হতে পেরে আমি গর্বিত। এমনই এক আবেগঘন দৃশ্যের অবতারণা হলো শিকাগোর লেকফ্রন্ট কনভেনশন সেন্টারের ম্যাককরমিস প্লেসে। এখানে মঙ্গলবার বিদায়ী ভাষণ দেন বারাক ওবামা। এর মধ্য দিয়ে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের মানুষের কাছ থেকে বিদায় নিলেন। স্মরণ করলেন গত ৮টি বছর যুক্তরাষ্ট্রের নানা উত্থান পতনের। গণতন্ত্র ও জাতির অগ্রযাত্রায় দিলেন দিকনির্দেশনা। ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে স্মরণ করলেন ভাই বলে। পুরোটা অনুষ্ঠানে ওই ম্যাককরমিস প্লেসে করতালিতে মুখরিত হয়ে ছিল। মুহুর্মূহু করতালিতে ওবামাকে অনেক বার বক্তব্য থামিয়ে দিতে হয়। বাংলাদেশের স্থানীয় সময় বুধবার এ বক্তব্য সরাসরি সম্প্রচার করে সিএনএন। যারা প্রত্যক্ষ করেছেন তা তারা ইতিহাসের সাক্ষী। তারা দেখেছেন ওবামার বলিষ্ঠতা। তার ব্যক্তিত্ব। একজন রাষ্ট্রনায়কের বক্তব্য কেমন হওয়া উচিত। নানা ইস্যুর মধ্যে তিনি সামনে নিয়ে আসেন তার ‘বেস্ট ফ্রেন্ড’ মিশেলকে। তিনি উচ্চারণ করেন, মিশেল...। তারপর কেটে যায় কতটা সময়। তিনি একদৃষ্টে তাকিয়ে থাকেন মিশেল ওবামার দিকে। তার চোখ ক্রমশ অশ্রুতে ভরে যেতে থাকে। ওবামা তা সংবরণ করে বলতে থাকেন, মিশেল গত ২৫টি বছর তুমি শুধু আমার স্ত্রী, আমার সন্তানদের মা-ই ছিলে না। তুমি আমার বেস্ট ফ্রেন্ড। তুমি চাও নি এমন ভূমিকাও তুমি নিয়েছো। তুমি এটা করেছো সদগুনে, চারিত্রিক দৃঢ়তায়, মানবীয় গুণে। তুমি হোয়াইট হাউজকে এমন একটি স্থানে পরিণত করেছ যা হবে প্রতিটি মানুষের। নতুন প্রজন্মকে দেখিয়েছ দূরদৃষ্টি। কারণ, তুমি এর ‘রোল মডেল’। তুমি আমাকে গর্বিত করেছ। এই দেশকে গর্বিত করেছ তুমি।
দু’মেয়েকে উদ্দেশ্য করে বারাক ওবামা বলেন, অজানা অচেনা পরিস্থিতির ভিতর দিয়ে মালিয়া ও সাশা তোমরা বিস্ময়কর, স্মার্ট, সুন্দরী নারীতে পরিণত হয়েছো। তার চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ হলো তোমাদের মধ্যে রয়েছে করুণাময় মন, সুচিন্তিত চিন্তাভাবনা ও পুরো ধৈর্য্য। আমি তোমাদের পিতা হতে পেরে নিজেকে সবচেয়ে বেশি গর্বিত মনে করছি।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Akhtar Kutubi

২০১৭-০১-১১ ১০:১৬:০৮

Obama is a great leader.

saiful chowdhury

২০১৭-০১-১১ ০০:৫৭:৪৭

I feel myself crying, what a leader, all world could learn from him.

রুহুল

২০১৭-০১-১১ ০০:০১:২৫

রাজনৈতিক সফলতার জন্য পারিবারিক সহযোগিতার গুরুত্ব কতটা, ওবামা তার অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত গোটা বিশ্বকে উপহার দিলেন। He is really different, and a great of different hight.

আপনার মতামত দিন

মসজিদে গুলি ছোড়ার পর পাল্টে গেল এক মার্কিনীর জীবন

দৃশ্যপট একই

আয় বৈষম্য বাড়ায় চাপে মধ্যবিত্ত

নকলা উপজেলা চেয়ারম্যানের লাশ উদ্ধার

রিভিউর প্রস্তুতি

বাংলাদেশির বীরত্বে ধর্ষকদের হাত থেকে রক্ষা পেলো ইতালীয় তরুণী

ঢাবিতে ‘ঘ’ ইউনিটের প্রশ্ন ফাঁস?

সিলেট টার্মিনালে গুলিবর্ষণ নিয়ে পাল্টাপাল্টি

রোহিঙ্গা স্রোত থামছে না

বড় দুই দলেই প্রার্থীর ছড়াছড়ি

সামান্য বৃষ্টিতেই ডুবেছে চট্টগ্রাম

টানা বৃষ্টিতে নগরজুড়ে দুর্ভোগ

নিম্নমানের কাগজে ছাপা হচ্ছে বিনা মূল্যের পাঠ্যবই

দিনে গড়ে দেড় হাজার মামলা

‘বিএনপিকে নির্বাচনের বাইরে রাখার ষড়যন্ত্র চলছে’

পাকিস্তানের ষড়যন্ত্রে রোহিঙ্গাদের উপর আক্রমণ: মতিয়া চৌধুরী