‘সমতার জন্যই মুসলিম আমেরিকানদের বিরুদ্ধে বৈষম্য প্রত্যাখ্যান করতে হবে’

অনলাইন

ভিওএ বাংলা | ১১ জানুয়ারি ২০১৭, বুধবার, ১:৩৫ | সর্বশেষ আপডেট: ১:৩৫
আট বছর আগেকার তুলনায় অধিকতর মর্মভেদী কন্ঠে এবং মাথায় আরও অনেক পাকা চুল নিয়ে, বারাক ওবামা প্রেসিডেন্ট হিসেবে শেষ বারের মতো আমেরিকান জনগণের উদ্দেশ্যে মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট হিসেবে তাঁর শেষ ভাষণ দেন।

তাঁর পরিগ্রীহিত শহর শিকাগোতে হাজার হাজার লোকের সামনে দেওয়া ভাষণের শুরুতেই প্রেসিডেন্ট বলেন, আজ জনগণকে তাঁর ধন্যবাদ দেওয়ার পালা।জনগণই তাঁকে সততার পথে রেখেছে, রেখেছে উদ্দীপ্ত করে। তিনি বলেন, আমেরিকার জনগণই তাঁকে একজন ভালো প্রেসিডেন্ট বানিয়েছে, ভালো মানুষ বানিয়েছে। তিনি সকলকে স্মরণ করিয়ে দেন যে, আমেরিকা প্রতিষ্ঠার আদর্শই হচ্ছে, কেবল মুষ্টিমেয় কয় জনকে নয়, সকলকেই আলিঙ্গন করা।

ওবামা, বলেন, আমরা জনগণের মাধ্যমে, গণতন্ত্রের মাধ্যমে, আমাদের স্বপ্ন পূর্ণ করতে পারি । প্রেসিডেন্ট বলেন, দু শো চল্লিশ বছর ধরে আমাদের দেশ জনগণকে মুক্তি ও গণতন্ত্রের পথে পরিচালিত করেছে। ওবামা আরও বলেন, গণতন্ত্রের পথ কঠিন। কিন্তু আমেরিকা সে পথে সাফল্য অর্জন করেছে, সবার অধিকার নিশ্চিত করেছে।
তিনি আরও বলেন যে, তাঁর প্রতিশ্রুতিগুলো, যতই উচ্চাকাঙ্খামূলক হোক না কেন তা পরিপূর্ণ হয়েছে।

ওবামা গত আট বছরে তাঁর অর্জনের কিছু কিছু দিক তুলে ধরেন যার মধ্যে রয়েছে বিয়ের সমতা, মন্দাগ্রস্ত অর্থনীতিকে পুনরুজ্জীবিত করা, বিশ্বের শীর্ষ সন্ত্রাসী নেতাকে সরিয়ে দেওয়া এবং একটা গুলিও খরচ না করে ইরানের পারমানবিক অস্ত্র কর্মসূচি বন্ধ করা। তিনি বলেন, “যখন আমরা শুরু করেছিলাম, তার চেয়ে আমেরিকা এখন আরও শক্তিশালি হয়েছে।

তিনি নির্বিঘ্নে দশ দিন পর ক্ষমতা হস্তান্তরের কথা উল্লেখ করে বলেন, আমেরিকার গণতন্ত্র তখনই কার্যকর হয় যখন দেশের রাজনীতিতে, জনগণের শিষ্টাচার প্রকাশ পায়। প্রেসিডেন্ট ওবামা বলেন সামাজিক ব্যবহার বদলাতে কখনও কখনও কয়েক প্রজন্ম লেগে যেতে পারে কিন্তু দেশকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য বৈষম্যের বিরুদ্ধে আইনকে সমুন্নত রাখতে হবে। তিনি শ্বেতাঙ্গ আমেরিকানদের উদ্দেশ্যে বলেন যে, সংখ্যালঘুরা বিশেষ আচরণ চায় না, তারা চায় বৈষম্যহীন আচরণ। তিনি গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের উপর জোর দেন।

প্রেসিডেন্ট যখন বলেন যে, এই সমতার জন্যই মুসলিম আমেরিকানদের বিরুদ্ধে বৈষম্য প্রত্যাখ্যান করতে হবে কারণ তারাও আমাদের মতো দেশপ্রেমিক, তখন দর্শকরা দাঁড়িয়ে করতালি দিয়ে তাঁর বক্তব্যকে স্বাগত জানায় ।

ওবামা বলেন চীন এবং রাশিয়ার মত যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিদ্বন্দ্বিরা, বিশ্বে আমেরিকার প্রভাবের মতো প্রভাব বিস্তার করতে পারবে না, যদি না আমাদের জনগণ দেশের আদর্শকে ত্যাগ করে। তিনি সশস্ত্রবাহিনীর প্রতি তাঁর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, “ আমি যে আপনাদের সর্বাধিনায়ক ছিলাম, সেটা ছিল আমার জীবনের সর্বোচ্চ সম্মান। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা অশ্রুসজল চোখে তাঁর স্ত্রী এবং কন্যাদের প্রতি এবং হোয়াইট হাউজের কর্মীদের প্রতিও তাঁর সকৃতজ্ঞ ধন্যবাদ জানান।

শিকাগোর লেকফ্রন্ট কনভেনশন সেন্টারে ম্যাককরমিক প্লেসে এই ভাষণ দেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

অভিযোগের পাহাড়, অসহায় ইউজিসি

প্রত্যাবাসন শুরু হচ্ছে না আজ

মৈত্রী এক্সপ্রেসে শ্লীলতাহানির শিকার বাংলাদেশি নারী

‘২০৬ নম্বর কক্ষে আছি, আমরা আত্মহত্যা করছি’

ট্রেনে কাটা পড়ে দুই পা হারালেন ঢাবি ছাত্র

পুলে যাচ্ছে সেই সব বিলাসবহুল গাড়ি

নীলক্ষেত মোড়ে ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভ, এমপির আশ্বাসে স্থগিত

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সফর সফল করতে নির্দেশনা

নেতাকর্মীরা জেলে থাকলে নির্বাচন হবে না: ফখরুল

তিন দিনের ধর্মঘটে এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা

ইডিয়ট বললেন মারডক

সহায়ক সরকারের রূপরেখা প্রণয়নের কাজ শেষ পর্যায়ে

২৩শে ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন

বাসায় ফিরছেন মেয়র আইভী

‘আমাকে ইমোশনাল ব্ল্যাকমেইল করে’

জনগণ রাস্তায় নেমে ভোটাধিকার আদায় করবে: মোশাররফ