প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে সারসংক্ষেপ পাঠাতে ৫ নির্দেশনা

শেষের পাতা

দীন ইসলাম | ১১ জানুয়ারি ২০১৭, বুধবার
প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে সারসংক্ষেপ পাঠানোর ক্ষেত্রে প্রচলিত বিধি-বিধান মানছে না বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগ। অনেক ক্ষেত্রে ত্রুটিপূর্ণ ও অসম্পূর্ণ সারসংক্ষেপ পাঠানো হচ্ছে। এ অবস্থায় প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে সারসংক্ষেপ পাঠানোর ক্ষেত্রে পাঁচটি নির্দেশনা সংক্রান্ত পরিপত্র জারি করা হয়েছে। গত ৩রা জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক (প্রশাসন) ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীরের স্বাক্ষরে এসব নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। ২০১৪ সালের ১৪ই ডিসেম্বর এ সংক্রান্ত নির্দেশনার অনুবৃত্তিক্রমে এসব নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগ কর্তৃক প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে পেশ করার জন্য সারসংক্ষেপ প্রস্তুতের ক্ষেত্রে প্রচলিত বিধি-বিধানগুলো যেমন কার্যবিধিমালা, ১৯৯৬; সচিবালয় নির্দেশমালা, ২০১৪; মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের বিভিন্ন সময়ে জারিকৃত এ সংক্রান্ত নির্দেশনাগুলো যথাযথভাবে অনুসরণ না করে অনেক ক্ষেত্রে ত্রুটিপূর্ণ ও অসম্পূর্ণ সারসংক্ষেপ পাঠানো হচ্ছে। এসব সারসংক্ষেপ নিষ্পত্তিতে অনাকাঙ্ক্ষিত বিলম্ব ঘটছে; এটা কাম্য নয়। এমন অবস্থার প্রেক্ষিতে সর্বোচ্চ নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ে সিদ্ধান্তের জন্য পাঠানো সারসংক্ষেপ প্রস্তুত করার সময় সংশ্লিষ্ট বিধি-বিধান ও নির্দেশনাবলী আবশ্যিকভাবে অনুসরণের পাশাপাশি পাঁচটি বিষয়ের প্রতি যত্নশীল হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হলো। এসব নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সারসংক্ষেপের বিষয় সূত্রে খ্রিষ্টীয় তারিখের পাশাপাশি অবশ্যই বঙ্গাব্দ উল্লেখ করতে হবে। এছাড়া, দীর্ঘ বাক্য ও পুনরুক্তি পরিহার করে সংক্ষিপ্ত অথচ স্বয়ংসম্পূর্ণ এবং সুস্পষ্ট ও যুক্তিপূর্ণ ভাষায় সারসংক্ষেপ তৈরি করতে হবে। একই সঙ্গে সংযোজিত সংলাপগুলো সুবিন্যস্ত ও সঠিক হওয়ার পাশাপাশি ছায়ালিপি/প্রতিলিপিগুলো স্পষ্ট ও পঠনযোগ্য হওয়া আবশ্যক। বিষয় ও বরাতসূত্রের সঙ্গে সংলাপের প্রাসঙ্গিক অংশ ‘মার্কার’ দিয়ে দৃশ্যমান করা সমীচীন। পত্রে ঠিক নিয়মে পৃষ্ঠা নম্বর হওয়া অপরিহার্য। এতে বলা হয়েছে, স্বাক্ষরের জন্য নির্ধারিত স্থানে প্রেসিডেন্ট/প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক সানুগ্রহ সিদ্ধান্ত/ মন্তব্য/পর্যবেক্ষণ/আদেশ লিপিবদ্ধ করার জন্য অবশ্যই প্রয়োজনীয় পরিসর রাখতে হবে। এছাড়া, বাংলা বানানের শুদ্ধতা নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুযায়ী বাংলা একাডেমি প্রণীত বানানরীতি অনুসরণ করতে হবে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সারসংক্ষেপ সংক্রান্ত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অনুশাসন তারা পেয়েছেন। ওই অনুযায়ী কাজ করছেন তারা।      
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন