সংকীর্ণতার ঊর্ধ্বে উঠতে পারেননি অনেকেই

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১১ জানুয়ারি ২০১৭, বুধবার
একে অপরকে সেরা মানেন না ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও লিওনেল মেসি। এমন কি বর্তমান সময়ের সেরা তিন খেলোয়াড়ের একজন হিসেবেও একে অপরকে মানেন না। এর প্রমাণ পাওয়া গেল ২০১৬ সালের ‘দ্য বেস্ট ফিফা মেনস প্লেয়ার’ পুরস্কারজয়ী নির্ধারণের ভোট প্রক্রিয়ায়। ফিফা’র বর্ষসেরা খেলোয়াড় নির্বাচনের জন্য সংস্থাটির সদস্য দেশগুলোর অধিনায়ক ও কোচরা ভোট দিয়েছেন। একজন ভোটার তিনটি করে ভোট দিয়েছেন। তিন ভোটের পয়েন্ট যথাক্রমে ৫, ৩ ও ১। আর্জেন্টিনার অধিনায়ক হিসেবে লিওলেন মেসি ও পর্তুগালের অধিনায়ক হিসেবে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো তিনটি করে ভোট দিয়েছেন। কিন্তু রোনালদো কিংবা মেসি কেউ একে অন্যকে ভোট দেননি। আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিওনেল মেসির প্রথম ভোটটি পেয়েছেন বার্সেলোনার সতীর্থ লুইস সুয়ারেজ। পরের দু’টি ভোট পেয়েছেন সতীর্থ নেইমার ও আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা। অন্যদিকে পর্তুগালের অধিনায়ক ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর প্রথম ভোটটি পেয়েছেন সতীর্থ গ্যারেথ বেল। আর পরের দু’টি ভোট পেয়েছেন যথাক্রমে লুকা মদরিচ ও সার্জিও রামোস। এই দুজনই রোনালদোর রিয়াল মাদ্রিদের সতীর্থ। তাদের এই ভোটে প্রমাণিত হয় যে, তারা কেউ একে অপরকে বর্তমান সময়ের সেরা তিন খেলোয়াড়ের একজনও মনে করেন না। রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনার খেলোয়াড়দের মধ্যে ব্যক্তিগত পর্যায়ে বিরোধিতা রয়েছে বলে অনেকে মনে করেন। মাঝেমধ্যে দুই দলের খেলোয়াড়দের মন্তব্যেও এটা বোঝা যায়।
কিন্তু বর্ষসেরা খেলোয়াড় নির্বাচনের ভোটের ক্ষেত্রে রোনালদো ছাড়া রিয়াল মাদ্রিদে খেলা জাতীয় দলের অধিনায়করা দারুণ নিরপেক্ষতা দেখিয়েছেন। রিয়াল মাদ্রিদের ডিফেন্ডার সার্জিও রামোস স্পেনের অধিনায়ক। তিনি প্রথম ভোটটি দিয়েছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে। পরের ভোটটি দিয়েছেন বার্সেলোনার স্ট্রাইকার লিওনেল মেসিকে। আর তার তৃতীয় ভোটটি পেয়েছেন স্পেনের সতীর্থ ও বার্সেলোনার মিডফিল্ডার আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা। তার মানে, রামোসের তিন ভোটের দু’টিই পেয়েছেন প্রতিপক্ষ বার্সেলোনার দুই খেলোয়াড়। একইভাবে রিয়াল মাদ্রিদের মিডফিল্ডার লুকা মদরিচও দেখিয়েছেন নিরপেক্ষতা। ক্রোয়েশিয়ার অধিনায়ক হিসেবে তিনি প্রথম ভোটটি দিয়েছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে। দ্বিতীয় ভোটটি দিয়েছেন বার্সেলোনার লিওনেল মেসিকে। আর তৃতীয় ভোট পেয়েছেন গ্যারেথ বেল।
তবে বার্সেলোনায় খেলা জাতীয় দলের অধিনায়কেরা এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম। ব্রাজিলের অধিনায়ক দানি আলভেজ গত মৌসুমেও খেলেন বার্সেলোনায়। তবে চলতি মৌসুমে নেই। তিনি তার তিন ভোট দিয়েছেন যথাক্রমে লিওনেল মেসি, নেইমার ও লুইস সুয়ারেজকে। একই অবস্থা আরদা তুরানের। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ থেকে তিনি এখন খেলেন বার্সেলোনায়। তুরস্কের অধিনায়ক হিসেবে তিনি ভোট দিয়েছেন লিওনেল মেসি, নেইমার ও আন্দ্রেস ইনিয়েস্তাকে।
অন্যদিকে ইংল্যান্ডের অধিনায়ক ওয়েইন রুনির ভোট পেয়েছেন রোনালদো, লুইস সুয়ারেজ ও জেমি ভার্ডি। আর জার্মানির অধিনায়ক ম্যানুয়েল নয়ার মেসি কিংবা রোনালদো কাউকে ভোট দেননি। স্বদেশি টনি ক্রুস ও মেসুত ওজিলকে প্রথম দুই ভোট দিয়েছেন। আর তৃতীয় ভোটটি দিয়েছেন ক্লাব সতীর্থ রবার্ত লেওয়ানদস্কিকে। আর ইতালির অধিনায়ক জিয়ানলুইজি বুফন ভোট দিয়েছেন মেসি, বেল ও রোনালদোকে। অন্যদিকে কোচ হিসেবে ব্রাজিলের কোচ তিতের ভোট পেয়েছেন নেইমার, রোনালদো ও অ্যান্তোইন গ্রিজম্যান। আর আর্জেন্টিনার কোচ এদগার্দো বাউজার ভোট পেয়েছেন লিওনেল মেসি, সার্জিও আগুয়েরো ও গ্রিজম্যান। আর পর্তুগালকে ইউরো কাপের শিরোপা জেতানো কোচ ফারনান্দো সান্তোস তিন ভোট দিয়েছেন রোনালদো, বেল ও গ্রিজম্যানকে।

মোট ভোটের সর্বোচ্চ ৩৪.৫৪ শতাংশ পেয়ে ফিফার বর্ষসেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। আর দ্বিতীয় হওয়া লিওনেল মেসি পেয়েছেন ২৬.৪২ শতাংশ ভোট। আর অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের ফরাসি ফরোয়ার্ড আন্তোইন গ্রিজম্যান ৭.৫৩ শতাংশ ভোট পেয়ে হয়েছেন তৃতীয়।
কে কাকে ভোট দিলেন
খেলোয়াড়    ১ম ভোট    ২য় ভোট    ৩য় ভোট
রোনালদো (পর্তুগাল)    বেল    মদরিচ    রামোস
মেসি (আর্জেন্টিনা)    সুয়ারেজ    নেইমার    ইনিয়েস্তা
সার্জিও রামোস (স্পেন)    রোনালদো    মেসি    ইনিয়েস্তা
ওয়েইন রুনি (ইংল্যান্ড)    রোনালদো    সুয়ারেজ    ভার্ডি
ম্যানুয়েল নয়ার (জার্মানি)    টনি ক্রুস    ওজিল    লেওয়ানদস্কি
বুফন (ইতালি)    মেসি    বেল    রোনালদো
লুকা মদরিচ (ক্রোয়েশিয়া)    রোনালদো    মেসি    বেল
দানি আলভেজ (ব্রাজিল)    মেসি    নেইমার    সুয়ারেজ
আরদা তুরান (তুরস্ক)    মেসি    নেইমার    ইনিয়েস্তা
সুনীল ছেত্রি (ভারত)    রোনালদো    মেসি    গ্রিজম্যান
সাদ্দাম হোসেন (পাকিস্তান)    রোনালদো    মেসি    বেল
(তিন ভোটের পয়েন্ট যথাক্রমে ৫, ৩ ও ১)

 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন