শোলাকিয়ায় সড়ক উদ্বোধনকালে ডিআইজি

‘সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র ছিল জঙ্গিদের’

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, কিশোরগঞ্জ থেকে | ১১ জানুয়ারি ২০১৭, বুধবার
সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেও বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের সৃষ্টি করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি এসএম মাহফুজুল হক নূরুজ্জামান, বিপিএম-বার, পিপিএম। মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত শক্তি বাংলাদেশকে অশান্ত করার জন্য জঙ্গিবাদের সৃষ্টি করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সমৃদ্ধ বাংলাদেশ যারা চায় না। বাংলাদেশ যারা মানে না। বাংলাদেশ যারা বিশ্বাস করে না। ওই শ্রেণির মানুষ যারা এই দেশের পতাকা-মানচিত্র মানে না। বাংলাদেশের মাটিতে তাদের থাকা উচিত নয়। আমরা বিশ্বাস করি, তাদের দ্বারা বাংলাদেশে অশান্ত একটি পরিবেশ তৈরি করার জন্য, বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের সৃষ্টি করা হয়েছে। তাদের আমরা গ্রেপ্তার করেছি, তারা আমাদের হাতে আছে। প্রাপ্ত তথ্যে বোঝা যায়, বিশেষ করে যুদ্ধাপরাধীদের অনেকেরই বিচার হয়ে গেছে। যুদ্ধাপরাধীদের সেই বিচারের কার্যক্রম যেন স্থিমিত করা যায়। যেন এই সরকার ক্ষমতায় থাকতে না পারে। সেজন্য তারা এই রকম একটি পরিকল্পনার আশ্রয় নিয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় গত ৭ই জুলাই ঈদুল ফিতরের দিন জঙ্গি হামলায় নিহত দুই পুলিশ সদস্য কনস্টেবল আনছারুল হক ও কনস্টেবল জহিরুল ইসলাম এবং গৃহবধূ ঝরণা রাণী ভৌমিকের নামে শোলাকিয়া ঈদগাহ এলাকায় তিনটি সড়কের নামফলক উদ্বোধনের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ডিআইজি এসএম মাহফুজুল হক নূরুজ্জামান এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, যারা এই কাজটি করছে, তারা ধর্মের কেউ নয়। কোনো ধর্মেই মানুষকে হত্যা করার কিংবা এই ধরনের জঙ্গি কার্যক্রম করার বিধান নেই। যারা এই কাজটি করে তারা মানুষ নামের কলঙ্ক। তারা মানবতার, দেশের, জাতির এবং ধর্মের শত্রু। তাদের প্রতিহত করার দায়িত্ব সকলের। জঙ্গি সংগঠনের সদস্যদের ক্রসফায়ারে নিহত হওয়ার ঘটনা- জঙ্গি হামলায় দায়ের করা মামলাগুলোর তদন্তে কোনো প্রভাব ফেলবে না উল্লেখ করে ডিআইজি বলেন, মানুষের স্বার্থেই আমরা জঙ্গিদের দমন করতে চাই। এর আগে কিশোরগঞ্জ পৌরসভার উদ্যোগে বাস্তবায়িত শোলাকিয়া এলাকার পূর্বাশা ক্লাব মোড় থেকে ঈদগাহ সড়ক শহীদ জহিরুল ইসলাম সড়ক, পূর্বাশা ক্লাব মোড় থেকে আজিমউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের সবুজবাগ মোড় সড়ক শহীদ আনছারুল হক সড়ক এবং আজিমউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের সবুজবাগ মোড় থেকে সবুজবাগ এলাকা সড়ক ঝরণা রাণী ভৌমিক সড়ক তিনটির নামফলক উদ্বোধন করেন ডিআইজি এসএম মাহফুজুল হক নূরুজ্জামান। এছাড়া তিনি কিশোরগঞ্জ পৌরসভার পক্ষ থেকে দেয়া নিহত দুই পুলিশ সদস্যসহ তিনজনের পরিবারের সদস্যদের হাতে ২৫ হাজার টাকা করে পঁচাত্তর হাজার টাকা অনুদান তুলে দেন। এ সময় কিশোরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহমুদ পারভেজ, পুলিশ সুপার মো. আনোয়ার হোসেন খান পিপিএম, পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, কিশোরগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলররা ছাড়াও এলাকার বিশিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন