বিমানে অভব্য আচরণ করলেই প্লাস্টিকের হাতকড়া!

অনলাইন

| ৯ জানুয়ারি ২০১৭, সোমবার, ২:৪১ | সর্বশেষ আপডেট: ২:৪১
বিমানে অভব্য আচরণ করলে এবার মাঝ আকাশেই হাতে পড়তে হতে পারে হাতকড়া। তাও আবার প্লাস্টিকের! নানা অপ্রীতিকর ঘটনার প্রেক্ষিতে এমন ভাবনাচিন্তা করছে এয়ার ইন্ডিয়া।
কখনও অভব্য আচরণ, কখনও শ্লীলতাহানি, কখনও মত্ত অবস্থায় ঝামেলা। বিমানে একাধিকবার সামনে এসেছে এই ধরণের ঘটনা। যেমন, ২০১৬-র ২১ ডিসেম্বর মুম্বই থেকে নিউইয়র্কগামী বিমানে এক মহিলা যাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে গ্রেফতার হন এক যাত্রী। ওই মহিলা যাত্রী তখন ঘুমাচ্ছিলেন।
সম্প্রতি দ্বিতীয় ঘটনাটি ঘটে চলতি বছরের ২ জানুয়ারি। মাস্কট থেকে নয়া দিল্লিগামী বিমানে এক যাত্রীর বিরুদ্ধে বিমান সেবিকার শ্লীলতাহানির অভিযোগ ওঠে।
এধরণের ঘটনা গত কয়েকবছরে বেড়েছে। তাই অভিযুক্ত যাত্রীদের বাগে আনতে আন্তর্জাতিক উড়ানে প্লাস্টিকের হাতকড়া পড়ানোর ব্যবস্থা চালু করেছে এয়ার ইন্ডিয়া ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষ। অন্তর্দেশীয় বিমানেও এ ধরণের ঘটনা বাড়ায় এবার সেখানেও এই পদ্ধতি চালুর কথা ভাবা হচ্ছে।
অভব্য আচরণ করলেই যাত্রীর হাতে প্লাস্টিকের হাতকড়া পড়িয়ে তা লাগিয়ে দেওয়া হবে সিটের সঙ্গে।
কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, বিমানের মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনায় আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়ছেন যাত্রীরা। কখনও কখনও জরুরি অবতরণও করতে হচ্ছে। যার জন্য একদিকে বিমান সংস্থার খরচ বাড়ছে, অপরদিকে সময়ও অপচয় হচ্ছে যাত্রীদের।
তাই অন্তর্দেশীয় বিমানেও এবার মাঝ আকাশে যাত্রীদের অভব্য আচরণ রুখতে কড়া পদক্ষেপ করতে চাইছে এয়ার ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষ।
সুত্র- ABP আনন্দ
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মধুপুরে রোহিঙ্গা সন্দেহে যুবক আটক

ম্যানচেস্টারে এবার মসজিদের বাইরে একজন ডাক্তারকে কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কলেরা সংক্রমণের আশঙ্কা বিশ্ব সাস্থ্য সংস্থার

স্বামীকে বেঁধে গৃহবধূকে ধর্ষণ, আটক ১

২৮ ‘হিন্দু’র খুনী কে!

ভেঙ্গে গেল স্পর্শিয়ার সংসার

নির্বাচিত মারকেল, ইসলামবিরোধী এএফডির উত্থান, কঠিন চ্যালেঞ্জ সামনে

মালিতে নিহত সার্জেন্ট আলতাফের বাড়িতে শোকের মাতম

বাংলাদেশী শান্তিরক্ষী নিহত হওয়ায় জাতিসংঘ মহাসচিবের শোক, নিন্দা

যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় আরও তিন দেশ

‘যেভাবে ভাবি সেভাবে এখনো ক্যামেরার সামনে অভিনয় করতে পারিনি’

​ জার্মানির নির্বাচনে শেষ হাসি মার্কেলেরই

রোহিঙ্গাদের জন্য বাংলাদেশের ব্যাপক আন্তর্জাতিক সহযোগিতা প্রয়োজন: ইউএনএইচআরসি

মার্কেল?

ফের সীমান্তে রোহিঙ্গা স্রোত

ট্রাকচালক থেকে সপরিবারে ইয়াবা ব্যবসায়ী