বর্ণিল উচ্ছ্বাসে নিউ ইয়র্কে প্রবাসী বাংলাদেশিদের নববর্ষ বরণ

প্রবাসীদের কথা

তৈয়বুর রহমান টনি, নিউ ইয়র্ক থেকে | ৫ জানুয়ারি ২০১৭, বৃহস্পতিবার
পৃথিবীর বর্ষপরিক্রমায় যুক্ত হল আরেকটি পালক। নতুন একটি বর্ষে পদার্পণ করল এই অধরা। দিনে দিনে বর্ষ শেষ হয়ে এল। ইতিহাসের পাতায় নথিপত্র হল আরও একটি বছর ২০১৬। সম্ভাবনার অপার বারতা নিয়ে শুরু হল নতুন বছর। স্বাগত ইংরেজি নববর্ষ স্বাগত ২০১৭।
গেল বছরে যা ঘটেছিল তা সবই এখন ইতিহাস।
আমরা হারিয়েছি অনেক কান্ডারিকে আবার অনেকেই হয়তো জন্ম নিয়েছে যে হাল ধরবে। সামনে যতোগুলো নবজাতক-জাতিকা জন্ম নিয়েছে তাদের সকলের জন্য রইলো অনেক ভালোবাসা এবং শুভকামনা। আর যারা আমাদের ছেড়ে চিরতরে হারিয়ে গেছে তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি সেই মহান সৃষ্টিকর্তার নিকট যিনি আমাদের সবাইকে সৃষ্টি করেছেন।
এবার একটু ইতিহাসের পাতায় চোখ বুলিয়ে আসি। থার্টি ফার্স্ট নাইট অর্থাৎ ৩১শে ডিসেম্বর দিবাগত রাত। ঐ দিন রাত ১২ টার পর পুরনো বছর কে বিদায় জানিয়ে সুচনা হয় নতুন বছরের। যা ইংরেজি নববর্ষ নামে পরিচিত। পুরো বিশ্বে ঘটা করে পালন করা হলো ইংরেজি নববর্ষকে। থার্টি ফার্স্ট নাইট ও পহেলা জানুয়ারী পালনের ইতিহাস অনুসন্ধান করলে দেখা যায় এর ইতিহাস অনেক পুরনো।
খ্রিষ্টপূর্ব ৪৬ সালে ইংরেজি নববর্ষ পালনের সূচনা করেন ব্যবিলনের স¤্রাট জুলিয়াস সিজার। ১৫৮২ সালে প্রবর্তন হয় পোপ গ্রেগরীর নামানুসারে গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার। এর পর থেকেই মূলত ইউরোপসহ বিভিন্ন দেশে পহেলা জানুয়ারী ইংরেজি নববর্ষ পালন করা শুরু হয়।
পৃথিবীর প্রায় সব জাতি নববর্ষের প্রথম দিনটি তাদের নিজস্ব সংস্কৃতি অনুযায়ী পালন করে। জাতীয় সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্যের সাথে এই বর্ষবরণ সম্পৃক্ত। ইরান, গ্রীস, ইতালি, শ্রীলঙ্কা, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, সিঙ্গাপুরসহ বিভিন্ন দেশে তাদের নিজস্ব কৃষ্টি অনুযায়ী বর্ষবরণকে স্বাগত জানায়। শুধুমাত্র ইউরোপের কিছু দেশ আর আমেরিকা এই দিনটিকে জানুয়ারি মাসে ‘নিউ ইয়ার্স ডে’ হিসেবে পালন করে। কড়া নিরাপত্তায় বাংলাদেশেও পালিত হয়েছে নববর্ষ অত্যন্ত জাঁকজমকের সাথে।
নববর্ষ পালনের উদ্দেশ্য হল নতুন উৎসাহ, নতুন প্রেরণা, নতুন আশায়, নতুন স্বপ্নে জীবনকে শুরু করা যা নিজের জন্য, দেশ ও সমাজ তথা বিশ্বের জন্য বয়ে আনবে কল্যাণ।
হৈ-হুল্লোড় করে একে অপরকে ইংরেজি নববর্ষকে স্বাগত জানালো নিউ ইয়র্কে অবস্থিত প্রবাসী বাংলাদেশিরাও। এই আয়োজনে প্রায় সকল প্রবাসী পরিবার আয়োজন করেছে থার্টি ফাস্ট নাইট ও নিউ ইয়ারস পার্টি। কুইন্স, ব্রুকলীন, স্ট্যাটেন আইল্যান্ড, লং আইল্যান্ড, ব্রুঙ্কসে অবস্থিত প্রবাসী বাংলাদেশীরা অত্যন্ত জমজমাটের সাথে বরণ করে নেয় ইংরেজী নতুন বৎসর ২০১৭ সালকে। মাজাদার খাবারের সাথে আনন্দ উল্লাসে ছোট বড় সকলেই নাচ-গান বিভিন্ন খেলাধুলার মধ্যে মধ্যরাত পর্যন্ত আনন্দে মেতে উঠে। এমনই এক আনন্দঘন পরিবেশের আয়োজন করেছিলেন ব্রুঙ্কসের পরিচিত মুখ আব্দুর টমাস তার বাসায়।
নববর্ষ উপলক্ষে নিউ ইয়র্ক প্রবাসী বাংলাদেশি পরিবারের সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আব্দুর টমাস, আব্দুল বাসেত খান, হেদায়েতুল ইসলাম, খলিল মুন্সী, বাতেন রশিদ,তৈয়ব, আব্দুস সালাম তালুকদার, ঝর্ণা খান, মুর্শেদা কাঁকন সেলিনা বেগম লতা, আফিফা নীগার, আফরোজা পিনু, নুসরাত জাহান, চৌধুরী গুলশান আরা, কাজী রুবিনা বেগম, রুবিন আখতার, মিসেস রেণু, সুলতানা খান, রাসেল খান, যাওয়াদ, নুসাইবা শৈলী, নাফিসা প্রমি, সানজিদা তালুকদার, সাবরিনা তালুকদার, রাজিন, তাহীর, মাহী, সিদারাতুল, রামীন প্রমুখ।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বিদেশি হস্তক্ষেপ রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান হবে না : বেইজিং

ছাত্রলীগ নেতাসহ তিনজন চারদিনের রিমান্ডে

সোনাজয়ী শুটার হায়দার আলী আর নেই

মালয়েশিয়ায় ভূমি ধসে তিন বাংলাদেশি নিহত

নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত মুক্তামনি

খাল থেকে উদ্ধার হলো হৃদয়ের লাশ

রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানকে কঠিন পর্যায়ে নিয়ে গেছে সরকার: খসরু

সঙ্কট সমাধানে প্রয়োজন পরিবর্তন: দুদু

চোখের চিকিৎসা করাতে লন্ডনে গেলেন প্রেসিডেন্ট

সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ আওয়ামী লীগের সদস্য হতে পারবে না

বৌদ্ধ ভিক্ষু সেজে কয়েক শত কিশোরীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক

৫০ বছরের মধ্যে জাপানে কানাডার প্রথম সাবমেরিন

ছিচকে চোর থেকে মাদক সম্রাট!

বোতলে ভরা চিঠি সমুদ্র ফিরিয়ে দিল ২৯ বছর পর!

কার সমালোচনা করলেন বুশ, ওবামা!

জুমের মাধ্যমে পেমেন্ট নিতে পারবেনা বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা