কালো টাকার বিরুদ্ধে অভিযানে মিলছে কালসর্প!

রকমারি

| ২৪ ডিসেম্বর ২০১৬, শনিবার
গল্পে বা চলচ্চিত্রে দেখা যায়, সম্পদ পাহারা দেওয়ার কাজে নিযুক্ত করা হয়েছে বিষধর সাপকে। বাস্তবে সম্পদের সঙ্গে সাপের যোগ থাকার কোনও কথা নেই। কিন্তু কালো টাকা উদ্ধার অভিযানে গিয়ে এই দুইয়ের সম্পর্ক দেখে পুলিশকর্মীদের চক্ষু চড়কগাছ বাড়িতে বিষধর সাপ রাখলে না কি সম্পদ দ্বিগুণ হয়ে যাবে। এমনই গালগল্প ফেঁদে লোক ঠকানোর ব্যবসা শুরু করেছে একদল লোক। তারা সম্পদ বৃদ্ধির লোভ দেখিয়ে ধনী লোকেদের কাছে লক্ষাধিক টাকায় বিক্রি করছে স্যান্ড বোয়া প্রজাতির সাপ সম্প্রতি বেঙ্গালুরুতে পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে এমনই একটি দল। তারা দুর্লভ প্রজাতির সাপ বিক্রি করার কারবার ফেঁদে বসেছে সাপ সহ এই দলের চার জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আরও তিন জন এই দলে আছে। তারা পলাতক ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পেরেছে, ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বাতিল হওয়ার পর থেকেই সাপ বিক্রি বেড়েছে। কালো টাকার মালিকরাই সাপ কিনছেন। তাঁদের ধারণা, কালসর্প যোগে সম্পদ বৃদ্ধি পাবে ধৃতরা আরও জানিয়েছে, তারা দাবি করে, শুধু বর্তমান সম্পদ দ্বিগুণ করে দেওয়াই নয়, মাটির তলা থেকেও সম্পদ খুঁজে বার করে দেবে এই সাপ অসৎ উপায়ে সহজেই সম্পদ বাড়িয়ে নেওয়ার লোভে বহু লোকই লক্ষাধিক টাকা দিয়ে সাপ কিনেছেন মানুষের কুসংস্কার, অন্ধবিশ্বাস এবং লোভের সুযোগ নিয়েই ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছিল ধৃতরা স্যান্ড বোয়া প্রজাতির সাপ দীর্ঘদিন ধরেই ভারত থেকে বিদেশে পাচার হচ্ছে। বিশেষ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই সাপের চাহিদা বেশিনোট বাতিলের পর অবশ্য দেশেই এই সাপের চাহিদা বেড়ে গিয়েছে

সুত্রঃ এবিপি আনন্দ
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন