ত্রিপুরায় স্পিকারের ন্যায়দণ্ড নিয়ে বিধায়কের দৌড়

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২২ ডিসেম্বর ২০১৬, বৃহস্পতিবার
ত্রিপুরা বিধানসভায় মঙ্গলবার এক নজিরবিহীন কাণ্ড ঘটিয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক সুদীপ রায়বর্মণ।  স্পিকারের পোডিয়াম থেকে আচমকা রুপোর তৈরি ন্যায়দণ্ডটি তুলে নিয়ে তিনি দৌড় লাগিয়েছিলেন। বিধানসভার মার্শালরাও তার সঙ্গে দৌড়ে পারেন নি। তিনি সটান চলে গিয়েছিলেন অধিবেশন কক্ষের বাইরে। আর এই অভাবনীয় কাণ্ড দেখে সব বিক্ষোভ থেমে গিয়েছিল। সরকার পক্ষ তো বটেই সকলেই হতবাক হয়ে গিয়েছিলেন। তবে ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন ত্রিপুরা বিধানসভার স্পিকার রমেন্দ্র চন্দ্র  দেবনাথ। তিনি বলেছেন, এই কাজ সংসদীয় রীতিনীতির সম্পূর্ণ বিরোধী। এদিন বিধানসভার কাজ শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রধান বিরোধী দল তৃণমূল কংগ্রেস এবং অপর বিরোধী দল কংগ্রেস বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছিল। বনমন্ত্রী নরেশ জামাতিয়ার বিরুদ্ধে যৌন কেলেঙ্কারির যে অভিযোগ সমপ্রতি সামনে এসেছে, তা নিয়েই বিক্ষোভ দেখাচ্ছিল দুই বিরোধী দল। বনমন্ত্রীর অপসারণ দাবি করে ওয়েলে নেমে এসে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন তারা। আচমকা স্পিকারের আসনের দিকে উঠে যান সুদীপ রায় বর্মণ এবং পোডিয়ামের সামনে রাখা রুপোর ন্যায়দণ্ডটি তুলে নিয়ে দৌড় লাগিয়েছিলেন। মার্শালরা অনেক কষ্টে বিধানসভা কক্ষের বাইরে তার হাত থেকে দণ্ডটি উদ্ধার করেন। আগরতলা বিধানসভা কেন্দ্রের চার বারের বিধায়ক সুদীপ রায়বর্মণ আগে কংগ্রেসে ছিলেন। চলতি বছরেই তিনি এবং আরো কয়েক জন কংগ্রেস বিধায়ক দলত্যাগ করে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। ত্রিপুরায় কংগ্রেসে এই ভাঙনের পেছনে সুদীপ রায়বর্মণ অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, স্পিকারের ন্যায়দণ্ড ছিনিয়ে নিয়ে পালানোর মতো বে-নজির ঘটনা ঘটিয়ে তিনি আসলে খবরে থাকতে চেয়েছেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন