ভালোবাসার শক্তি

রকমারি

মানবজমিন ডেস্ক | ১০ আগস্ট ২০১৬, বুধবার
বলা হয় বিশ্বে সবচেয়ে বড় শক্তি হলো ভালোবাসা। যদি সেটাই সত্যি হয় তাহলে যুক্তরাষ্ট্রের সাউথ ডাকোটার এক দম্পতি প্রমাণ করলেন, ভালোবাসার কাউকে মৃত্যুও আলাদা করতে পারে না। এ দম্পতি হলেন জেনেটি ডি ল্যাঙ্গে ও তার স্বামী হেনরি ডি ল্যাঙ্গে। তাদের বিবাহিত জীবন ৬৩ বছরের। ৩১শে জুলাই স্থানীয় সময় ৫টা ১০ মিনিটে মারা যান জেনেটি ডি ল্যাঙ্গে। তার ঠিক ২০ মিনিট পরে তাদের নার্সিং হোমের একই রুমে মারা যান স্বামী হেনরি। তাদের এক ছেলে লি ডি ল্যাঙ্গে সিএনএনকে বলেছেন, একই সময়ে পিতামাতার এভাবে মৃত্যু যেন ঐশ্বরিক কোনো ইশারা। আমরা এটাকে বলবো ভালোবাসা ও একের প্রতি অন্যের হৃদয়ের টান। জেনেটি ডি ল্যাঙ্গের বয়স হয়েছিল ৮৭ বছর। তিনি অ্যালজেইমার্সে ভুগছিলেন। শান্তিতে তিনি মারা গেছেন বলে ছেলে দাবি করেছেন। হেনরি ডি ল্যাঙ্গের বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর। তিনি মূত্রথলির ক্যান্সারে ভুগছিলেন। স্ত্রী মারা যাওয়ার পর তিনি যেন আর লড়াই করার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন। লি বলেছেন, মা বিদায় নেয়ার পরই বাবা যেন তার সঙ্গে তার কাছে চলে যাওয়ার জন্য অস্থির হয়ে ওঠেন। তার ২০ মিনিটের মধ্যে তার মৃত্যু হয়। মারা যাওয়ার আগে তিনি চোখ খুলে বার কয়েক দেখে নেন নিস্তব্ধ পড়ে থাকা স্ত্রীকে।
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন