আল্লামা শফী ও তার পুত্রকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য না করার অনুরোধ বাবুনগরীর

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম ও হাটহাজারী প্রতিনিধি

অনলাইন ৯ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১:২৫ | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৪১

চট্টগ্রামের দারুল উলুম হাটহাজারী মাদ্রাসার প্রধান পরিচালক ও হেফাজতে ইসলামীর আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী ও তার পুত্র আনাস মাদানীকে নিয়ে বিরুপ মন্তব্য না করার অনুরোধ জানিয়েছেন সংগঠনের মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে দৈনিক মানবজমিনের নিকট প্রেরিত এক বিবৃতিতে এই অনুরোধ জানান জুনায়েদ বাবুনগরী। বিবৃতিতে তিনি বলেন, হেফাজত আমির সর্বজন শ্রদ্ধেয়। আমাদের জন্য নেয়ামতে উজমা। আমাদের মাথার ছায়া, মুকুটহীন সম্রাট। আমরা যারা হুজুরের মনে কষ্ঠ দেব তারা আল্লাহর ওলির সাথে যুদ্ধ ঘোষণা করার শামিল।

তিনি বলেন, হুজুর পুত্র আনাস মাদানীও আমার ছোট ভাইয়ের মতো। আমাদের মাঝে কোন দূরত্ব নাই।
কিছু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে মাত্র। ঘরের মাঝে ভুল বোঝাবুঝি হলে যেমন সবাই বসে সেটা সমাধান করে। আমরাও বসে ভুল বুঝাবুঝি সমাধান করে নেব। আমাদের মুরুব্বীরা সমাধান করে দেবেন।

কিন্তু দু:খের বিষয় আল্লামা শাহ আহমদ শফী ও তার পুত্র আনাস মাদানীকে নিয়ে দৈনিক পত্রিকা, সোশ্যাল মিডিয়া, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া এবং ফেসবুক পেজে বিরুপ মন্তব্য ও লেখালেখি করা হচ্ছে। এতে আমাদের ভুল বুঝাবুঝি ও দুরত্ব আরও বাড়িয়ে দিচ্ছে। তাই আপনার যারা ইসলাম, আলেম-ওলামা ও দ্বীনকে ভালবাসেন তারা এ ধরণের বিরুপ মন্তব্য বন্ধ করবেন। দুরে থাকবেন। এটাই আমার অনুরোধ।
বাবুনগরী আরো বলেন, হাটহাজারী মাদ্রাসা সকলের মাদ্রাসা। দ্বীনকে রক্ষার জন্য আমাদের মুরব্বীরা খেয়ে না খেয়ে এই মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেছেন। তাই আসুন আমরা সবাই হাটহাজারী মাদ্রাসার হযরতের জন্য ভালবাসা-মহব্বতের অন্তর খুলে দেই। সাথে সাথে আমাদের কৃতকর্মের জন্য আল্লাহর নিকট তওবা করি। আল্লাহ আমাদের মাফ করে দিন।
উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক সময়ে হেফাজত আমিরের অসুস্থতাকে ঘিরে হাটহাজারী মাদ্রাসার মোহতামীম নিয়োগ ও হেফাজতে আমিরের পদাসীন হওয়ার গুঞ্জন নিয়ে ভুল বুঝাবুঝি সৃষ্টি হয় সংগঠনটির মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরীর সাথে। এ নিয়ে মজলিশে শুরার বৈঠক ডেকে হাটাহাজারী মাদ্রাসার সহকারী পরিচালক পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় জুনায়েদ বাবুনগরীকে। এ পদে আসীন করা হয় মাদ্রাসার সিনিয়র মহাদ্দিস মাওলানা শেখ আহমদকে। এরপর হেফাজতে ইসলামী ও কওমি আলেম-ওলামাদের মধ্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে হেফাজত ইসলামীর মহাসচিব পদ থেকেও বাবুনগরীকে সরিয়ে দেওয়ার গুঞ্জন উঠে।

এ নিয়ে কোন রকম মন্তব্য ও গণমাধ্যমে কথা বলতে রাজী হননি আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী। তবে গতকাল মঙ্গলবার (৮ জুলাই) বিকেলে হাটহাজারী মাদ্রাসায় এক বৈঠকের পর আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী এই বিবৃতি দেন। হেফাজতের দায়িত্বশীল নেতাকর্মীরা জানান, বৈঠকে সকলে সমঝোতায় উপনীত হয়েছে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Mohammed Akter Hossa

২০২০-০৭-০৯ ০৯:৩৩:০২

বাবুনগরীর সাবের আচরণ থেকে আমাদের ইসলামের সৌন্দর্য বিষয়টা শিক্ষা নেওয়া উচিত l আল্লাহ পাক উনাকে সুস্থ রাখুক আরো বেঁচে থাকুক সেই দোয়া করি l

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

সিনহার মৃত্যু

দুই সাক্ষী চোখেও দেখেননি, কানেও শোনেননি

৭ আগস্ট ২০২০



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

ওসি প্রদীপ কোথায়?