নিহতদের পরিবারের সঙ্গে সমঝোতা করতে ইউনাইটেড হাসপাতালকে হাইকোর্টের নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার

অনলাইন ২৯ জুন ২০২০, সোমবার, ২:৫৭ | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৫০

রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুনে পুড়ে মারা যাওয়া ৫ ব্যক্তির আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে সমঝোতা করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী ১২ই জুলাইয়ের মধ্যে তাদের সমঝোতায় আসতে বলা হয়েছে। আজ সোমবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। ইউনাইটেড হাসপাতালের পক্ষে ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ। রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার অনিক আর হক।

ব্যারিস্টার অনিক আর হক বলেন, আদালত ১২ই জুলাইয়ের মধ্যে সমঝোতা করতে বলেছেন। এ সময়ের মধ্যে সমঝোতা না হলে ১৩ই জুলাই আদালত পরবর্তী আদেশ দেবেন।


এর আগে গত ১লা জুন রাজধানীর গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ইউনিটে আগুনে পাঁচ জনের মৃত্যুর ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। রিটে নিহতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার পাশাপাশি হাসপাতালটির লাইসেন্স বাতিল চাওয়া হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার রেদোয়ান আহমেদ রানজীব ও ব্যারিস্টার হামিদুল মিসবাহ জনস্বার্থে এ রিট দায়ের করেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

ইকবাল

২০২০-০৬-৩০ ১০:৩৪:১৫

বিষয়টা বুঝলাম না।সমঝোতা করতে বলা হয়েছে।তাহলে কি বিচার হবেনা।সমঝোতা করোই এত বড় একটা অন্যায়ের প্রায়শ্চিত্ত হয়ে যাবে।জানিনা এটা কি আইন কিনা।ইউনাইটেড হাসপাতালের গাফলতিতে মানুষগুলা পুড়ে মরে গেল।কোথায় ইউনাইটেডের লাইসেন্স বাতিল না করে।হাসপাতাল বন্ধ না করে দিয়ে সমঝোতা।এটা ইউনাইটেড হাসপাতাল বলেই কি এই সমঝোতার কথা।মর্নিং বার্ড লঞ্চকে ডুবিয়ে দেয়া লঞ্চের মালিকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।তাকেও কি বলা হবে ৩৪ টা লাশের সাথে সমঝোতা করতে।বুঝিনা কিছুই।অবশ্য বাংলাদেশের আইন সম্পর্কে আমার জ্ঞ্যান অত্যন্ত সীমিত।কিন্তু আমার বিবেক এটা ভেবে ধাক্কা খাচ্ছে ৫ টা মানুষ পুড়ে গেল যে হাসপাতালের অবহেলা আর খামখেয়ালির কারনে সেখানে সমঝোতা করার কথা কেন আসছে।সরাসরি বিচারের আওতায় নয় কেন?

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

রিজেন্ট এমডি’র তথ্যের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার-

জাল টাকায় ঋণ শোধ করতো শাহেদ

১৫ জুলাই ২০২০



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



রিজেন্ট এমডি’র তথ্যের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার-

জাল টাকায় ঋণ শোধ করতো শাহেদ