১৬ বছরে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

শিক্ষাঙ্গন

শেকৃবি প্রতিনিধি | ১৫ জুলাই ২০১৬, শুক্রবার
রাজধানীর কৃষি শিক্ষার একমাত্র উচ্চ বিদ্যাপীঠ শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ১৬ বছরে পদার্পণ করেছে। আজ শুক্রবার প্রতিষ্ঠানটির ১৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। প্রতিষ্ঠানটি ২০০১ সালের ১৫ই জুলাই বাংলাদেশ এগ্রিকালচার ইনস্টিটিউট (বিএআই) থেকে পূর্ণাঙ্গ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রূপে যাত্রা শুরু করে। পূর্ণাঙ্গ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির ইতিহাস মাত্র ১৫ বছরের হলেও উপমহাদেশের প্রাচীনতম কৃষি শিক্ষার প্রতিষ্ঠান হিসেবে এর ইতিহাস ৭৮ বছরের। ১৯৩৮ সালের ১১ই ডিসেম্বর তৎকালীন পূর্ববাংলার মুখ্যমন্ত্রী শেরেবাংলা একে ফজলুল হক এ দেশে কৃষি শিক্ষার উন্নতি ও আধুনিকায়ন করার লক্ষ্যে দি বেঙ্গল এগ্রিকালচার ইনস্টিটিউট নামে একটি প্রতিষ্ঠান স্থাপন করেন। পরবর্তী সময়ে এর নামকরণ করা হয় পূর্ব পাকিস্তান এগ্রিকালচার ইনস্টিটিউট।
১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর এর নাম রাখা হয় বাংলাদেশ এগ্রিকালচার ইনস্টিটিউট। অতঃপর ২০০১ সালের ১৫ই জুলাই তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পূর্ণাঙ্গ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রূপে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষি অনুষদ, এগ্রিবিজনেস ম্যানেজমেন্ট অনুষদ, এনিম্যাল সায়েন্স ও ভেটেরিনারি  মেডিসিন অনুষদ নামে তিনটি অনুষদে  মোট ৩০টি বিভাগ চালু রয়েছে। স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৩৭৪ জন শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত রয়েছে। এ পর্যন্ত ৩৩৩৪ জন স্নাতক এবং ১২৩৭ জন স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করে দেশ-বিদেশে সাফল্যের সঙ্গে কৃষির উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট শিক্ষক সংখ্যা ২৩৪, কর্মকর্তা ২০৬ এবং কর্মচারী ৪৫৮। ৮৭.৫১৩ একরের বিশ্ববিদ্যালয়টিতে গবেষণার জন্য রয়েছে পাঁচটি খামার। বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে  ছেলেদের জন্য তিনটি এবং মেয়েদের জন্য দুইটি আবাসিক হল রয়েছে। দেশের একমাত্র ভার্চুয়াল ক্লাসরুমটি এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থিত। রয়েছে ই-লাইব্রেরি সুবিধা।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন