পশ্চিমবঙ্গের সব সীমান্ত চেকপোস্টে চলছে যাত্রীদের শারীরিক পরীক্ষা

কলকাতা প্রতিনিধি

ভারত ১০ মার্চ ২০২০, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৪৭

পশ্চিমবঙ্গে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হবার নিশ্চিত কোনও ঘটনা ঘটেনি। তবে সতর্কতামূলক সব ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। প্রতিদিনই বিদেশ থেকে যারা আসছেন তাদের বাধ্যতামূলকভাবে স্বাস্থ্য পরীক্ষা হচ্ছে। বাংলাদেশ, ভুটান এবং নেপাল লাগোয়া পশ্চিমবঙ্গের  স্থল সীমান্তের সাতটি চেকপোস্টে নিয়মিত যাত্রীদের শারীরিক পরীক্ষা হচ্ছে। রবিবার পর্যন্ত সীমান্ত চেকপোস্টগুলোতে মোট ১,০৮,৩৬০ জনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। এছাড়া কলকাতার তিনটি নৌবন্দর, কলকাতা ও বাগডোগরা বিমানবন্দরে যাত্রীদের শারীরিক পরীক্ষা করা হচ্ছে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দফতর সূত্রে জানা গেছে, রবিবার পর্যন্ত কলকাতা ও বাগডোগরা বিমানবন্দরে ৫৮,১৩৩ জনকে শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে। রাজ্যের নৌবন্দরে বিভিন্ন দেশ থেকে প্রতিদিনই পণ্য ওঠানামা করে, সেদিকেও নজর রাখা হয়েছে।
এখনও পর্যন্ত এ ক্ষেত্রে ৩৫৩৪ জনের শারীরিক পরীক্ষা হয়ে গেছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গের শহর থেকে গ্রামের সরকারি হাসপাতালে ‘আইসোলেশন ওয়ার্ড’ তৈরি রাখা হয়েছে। সর্বশেষ খবর অনুযায়ী,  যেকোনো পরিস্থিতিতে করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় এসএসকেএম, নীলরতন সরকার হাসপাতাল, আরজিকর হাসপাতাল, উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজসহ জেলার ২৩টি হাসপাতালে আইসোলেশনের সুবিধাযুক্ত মোট ১৬৩টি শয্যা তৈরি রাখা হয়েছে। সোমবার পর্যন্ত করোনা সন্দেহে ১৮৫৮ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তার মধ্যে পরীক্ষার পর আপাতত ১৭০ জন নজরদারির আওতার বাইরে রয়েছেন। রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতালে ৪০ জন ভর্তি রয়েছেন আইসোলেশন ওয়ার্ডে। ১৬৪৮ জন ‘হোম আইসোলেশন’-এ রয়েছেন। কাউকে করোনা সন্দেহে চিহ্নিত করা হলে, নমুনা পরীক্ষার জন্যে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি (এনআইভি) পুনে এবং আইসিএমআর-এনআইসিইড (নাইসেড) কলকাতায় পাঠানো হচ্ছে। এখনও পর্যন্ত ৪০টি নমুনার রিপোর্ট হাতে এলেও পশ্চিমবঙ্গে কারো করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি বলে স্বাস্থ্য দফতরের তরফে জানানো হয়েছে। রবিবার সৌদি আরব ফেরত মুর্শিদাবাদের যে যুবকটির মৃত্যু হয়েছে তার লালা পরীক্ষাতেও করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত দিন



ভারত অন্যান্য খবর



ভারত সর্বাধিক পঠিত