ফিটনেসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে সব জেলায় টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার

শেষের পাতা ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৫১

সারা দেশের নিবন্ধিত-অনিবন্ধিত ফিটনেসবিহীন এবং চলাচল অনুপযোগী গাড়ির বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা,   
তদারকি ও বন্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতে সব জেলায় একটি করে টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। জনপ্রশাসন, স্বরাষ্ট্র এবং সড়ক পরিবহন সচিবকে টাস্কফোর্স গঠনের এ নির্দেশ বাস্তাবায়নে ব্যাবস্থা নিতে বলা হয়েছে। এছাড়া টাস্কফোর্সের জন্য নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দিতে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) প্রতি নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গতকাল বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে ও বিআরটিএ'র তত্ত্বাবধানে গঠিত এই টাস্কফোর্সে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ ও বিআরটিএ'র প্রতিনিধির সমন্বয়ে এই টাস্কফোর্স গঠন করতে বলা হয়েছে। আদেশ বিষয়ে তিন মাসের মধ্যে অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। আগামী ১লা জুন পরবর্তী আদেশের জন্য দিন ধার্য করা হয়েছে। আদেশে বলা হয়েছে, টাস্কফোর্স সড়ক আইন-২০১৮ অনুযায়ী আইনি ব্যবস্থা নিতে পারবে টাস্কফোর্স।
প্রয়োজন মনে করলে সংশ্লিষ্ট চালককে গ্রেপ্তার, গাড়ি জব্দ ও জরিমানা করতে পারবে।
আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক। অপরদিকে বিআরটিএ'র পক্ষে ছিলেন, ব্যারিস্টার মইন আলম ফিরোজী ও অ্যাডভোকেট রাফিউল ইসলাম। আদেশের পর ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমিন উদ্দিন মানিক সাংবাদিকদের বলেন, জনবল সংকটের কারণে ফিটনেসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে পারছে না বিআরটিএ। তাই টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশনা চান বিআরটি'র আইনজীবী। এ কারণে হাইকোর্ট টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশ দেন। এ টাস্কফোর্স ফিটনেসবিহীন, রেজিস্ট্রেশনবিহীন চালককে গ্রেপ্তার, জরিমানা ও গাড়ি ডাম্পিং করতে পারবে।  অপরদিকে বিআরটি'র আইনজীবী মঈন ফিরোজী সাংবাদিকদের বলেন, সড়ক-মহাসড়কগুলোতে চলাচলের অনুপযোগী, ফিটনেসহীন ও অনিবন্ধিত যেসব যান চলছে, সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়ন করে সড়কের নিরাপত্তা যাতে বাস্তবায়ন করা যায় তার জন্য পুলিশ, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং বিআরটিএর সমন্বয়ে প্রতিটি জেলায় টাস্কফোর্স গঠন করতে বলা হয়েছে।
শুনানিকালে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)-এর আইনজীবী আদালতকে বলেন, মহাসড়কগুলোতেই বেশি দুর্ঘটনা ঘটে। তাই মহাসড়কের দিকে আগে নজর দেয়া দরকার। তিনি বলেন, আইনে বিআরটিএ'র ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করার ক্ষমতা রয়েছে। এছাড়া পুলিশও ব্যবস্থা নিতে পারে। এক্ষেত্রে বিচ্ছিন্নভাবে কাজ করায় শৃঙ্খলা আসছে না। তাই সমন্বিত পদক্ষেপ নিতে একটি টাস্কফোর্স গঠন করা যেতে পারে। টাস্কফোর্স গঠন করা হলে কাজ করা সহজ হবে। তিনি আদালতকে আরো বলেন, আমাদের যে পরিমাণ সড়ক  রয়েছে, সেই অনুপাতে গাড়ির নিবন্ধন দেয়া উচিত। বিষয়টি বিআরটিএ-কে ভেবে দেখতে হবে। তা নাহলে এক সময় রাস্তায় চলাচল করা অসম্ভব হয়ে পড়বে।
 এর আগে গতবছর ২৩শে মার্চ, ফিটনেসবিহীন গাড়ি নিয়ে একটি ইংরেজি  দৈনিকে প্রকাশিত প্রতিবেদন আদালতের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সৈয়দ মামুন মাহবুব। এরপর হাইকোর্ট ওই বছরের ২৭শে মার্চ স্বপপ্রণাদিত হয়ে এক আদেশে সারা দেশের ফিটনেসবিহীন ও নিবন্ধনহীন যানবাহন এবং লাইসেন্সহীন চালকের তথ্য জানাতে বিআরটিএ চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন।

আপনার মতামত দিন



শেষের পাতা অন্যান্য খবর

বড় সংকটে শ্রমবাজার

২৭ মার্চ ২০২০

করোনা ভাইরাস নিয়ে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল

দক্ষিণ এশিয়ায় বাড়ছে সংক্রমণ

২৭ মার্চ ২০২০

আতঙ্কের জনপদ নিউ ইয়র্ক

আরো চার বাংলাদেশির মৃত্যু

২৬ মার্চ ২০২০



শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত