যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস ও বৃটিশ হাইকমিশনের উদ্যোগে আদালতে ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণের ব্যবহার সম্পর্কিত কর্মশালা

স্টাফ রিপোর্টার

দেশ বিদেশ ১৪ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

 আদালতে ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণের ব্যবহার সম্পর্কিত কর্মশালার আয়োজন করেছে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস ও বৃটিশ হাইকমিশনার। গতকাল বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ‘আদালতে ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণের ব্যবহার বিষয়ক সংলাপ’ শীর্ষক চারদিনের এই কর্মশালার উদ্বোধন করেন। এ সময় উপস্থি ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার ও বাংলাদেশে নিযুক্ত বৃটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটার্টন ডিকসন। আয়োজকদের মতে, বাংলাদেশের বিচারক এবং কৌসুলিদের জন্য ১৩ থেকে ১৬ই জানুয়ারি অনুষ্ঠিত কর্মশালা ১৮৭২ সালের সাক্ষ্য আইন হালনাগাদ করা এবং বাংলাদেশের আদালতে ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণের ভবিষ্যত ব্যবহারকে এগিয়ে নেয়ার স্থানীয় প্রচেষ্টায় সমর্থন যোগাবে।
যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের যৌথ পৃষ্ঠপোষকতায় যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগের মাধ্যমে কর্মশালাটির আয়োজন করা হয়েছে। কর্মশালাটি পরিচালনা করবেন যুক্তরাষ্ট্রের দুজন ফেডারেল বিচারক ও তিনজন ফেডারেল কৌসুলি, যুক্তরাজ্যের একজন ফৌজদারি বিচার বিষয়ক উপদেষ্টা এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন আইনের অধ্যাপক। বিশেষ পরিস্থিতিতে বর্তমানে ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণ অনুমোদিত সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনাল, সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনাল, দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল এবং পরিকল্পনাধীন মানব পাচার বিরোধী ট্রাইব্যুনালের সংশ্লিষ্টরা অংশ নেবেন। আদালতে ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণ ব্যবহারের ক্ষেত্রে ১৮৭২ সালের সাক্ষ্য আইন অনুযায়ী বিচারক ও কৌসুলিরা যেসব সমস্যার মুখোমুখি হন, সেগুলো সম্পর্কে পরিস্কার ধারণা পেতে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরাও এতে অংশ নেবেন।

রাষ্ট্রদূত মিলার তার মন্তব্যে উল্লেখ করেন, বিচার কাজে ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণ ব্যবহারের জন্য বাংলাদেশের আদালত মহলে ব্যাপক সমর্থন রয়েছে, কারণ এটি কৌসুলি এবং বিচারকদের কাছে বিশ্বাস যোগ্য সাক্ষ্যপ্রমাণের সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করবে। এছাড়া আরো দ্রুত বিচার করতে সহায়তা করবে ও মামলা জট কমাবে। বৃটিশ হাই কমিশনার ডিকসন বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থায় ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণের বর্ধিত ব্যবহারের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করে বলেন, যথাযথভাবে ব্যবহার করা হলে এটি বিচার প্রশাসনের দক্ষতা এবং সততা বাড়াতে বড় ভূমিকা রাখতে পারে।
কর্মশালাটি বাংলাদেশের বিচারক এবং কৌঁসুলিদের আদালতে ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণের সত্য মিথ্যা যাচাইয়ের বিষয়ে মৌলিক বিষয়গুলো অবগত করবে। এটি সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের উদ্বেগের সমাধান এবং তাদের মধ্যে অভিন্ন অবস্থানগুলো চিহ্নিত করবে, যা ভবিষ্যতে বাংলাদেশের আদালতে ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণ চালু করার ভিত গড়ে তুলবে। কর্মশালায় যেসব বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে -বাংলাদেশের আদালতে ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণের গ্রহণযোগ্যতার বর্তমান অবস্থা, ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণ সংগ্রহ ও আদালতে উপস্থাপনের জন্য বিধিমালা, ডিজিটাল সাক্ষ্যপ্রমাণ সম্পর্কিত আপিল বিষয়ক উদ্বেগ এবং ডিজিটাল ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের মতামত চিহ্নিতকরণ ও উপস্থাপন।

আপনার মতামত দিন

দেশ বিদেশ অন্যান্য খবর

রাজধানীতে নিষিদ্ধ পলিথিনসহ গ্রেপ্তার ২

২২ জানুয়ারি ২০২০

রাজধানীর মোহাম্মদপুর বাস স্ট্যান্ডে অভিযান চালিয়ে একটি কাভার্ডভ্যান থেকে ১০ হাজার ১৮০ কেজি নিষিদ্ধ পলিথিন ...

সিএএ বিরোধী প্রস্তাব আনা হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভাতেও

২২ জানুয়ারি ২০২০

কেরালা ও পাঞ্জাব বিধানসভার পর পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভাতেও নতুন সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে ...

১০ বছরে রেমিটেন্স ১৫৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার

২২ জানুয়ারি ২০২০

বর্তমান সরকারের আমলে ২০০৯ সাল হতে ২০১৯ সাল পর্যন্ত গত ১০ বছরে বাংলাদেশের বেকার জনগোষ্ঠীর ...

শতভাগ না হলেও পুলিশ বহুলাংশেই জনবান্ধব -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

২২ জানুয়ারি ২০২০

বাংলাদেশ পুলিশ শতভাগ না হলেও বহুলাংশেই জনবান্ধব হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। তিনি ...

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন বিএসএমএমইউ’র চিকিৎসক, নার্স, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা

২২ জানুয়ারি ২০২০

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা হেফাজতে কারারুদ্ধ অসুস্থ বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য ...

দেশে ৭৪ লাখ তরুণ শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের সঙ্গে যুক্ত নেই: সিপিডি

২২ জানুয়ারি ২০২০

দেশে ১৫ থেকে ২৯ বছর বয়সী যুবক-যুবতীর সংখ্যা ২ কোটি। এর মধ্যে ৭৪ লাখ কোনো ...

প্রশান্ত হালদারের দুর্নীতির অনুসন্ধান

পিপলস লিজিংয়ের ৩ পরিচালককে তলব

২২ জানুয়ারি ২০২০

প্রশান্ত হালদারের দুর্নীতির অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের তিন পরিচালককে তলব করেছে ...





দেশ বিদেশ সর্বাধিক পঠিত



ঢাকায় জালালাবাদের বৈদেশিক সম্মেলন

বিমানবন্দরে প্রবাসীদের হয়রানি বন্ধের দাবি