পাকিস্তান থেকে ৩০০ টন পেঁয়াজ আসছে!

অনলাইন

কূটনৈতিক রিপোর্টার | ১০ নভেম্বর ২০১৯, রোববার, ৫:০৬ | সর্বশেষ আপডেট: ১০:১১
এবার সত্যিই পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজ আসছে। বিগত বছরগুলোতে বাংলাদেশের বাজারে যতবার পেঁয়াজের দাম নিয়ে হৈচৈ হয়েছে ততবারই বাণিজ্য মন্ত্রী, সচিবরা পাকিস্তানের পেঁয়াজ আসছে বলে ' আগুন নেভানো'র চেষ্টা করেছেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা করতে হয়নি। কূটনৈতিক সূত্র বলছে, এবারে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল প্রতিনিধিরা পাকিস্তান-এর নাম মুখে আনার আগেই দেশটিতে অর্ডার গেছে হয়েছে কয়েক শ টন পেঁয়াজ কেনার। এমনকি মিয়ানমারের আগেই পাকিস্তানকে চিন্তা করা হয়েছে। কারণ পাকিস্তানের বাজারে এখনও পেঁয়াজের দাম কম। করাচির খুচরা বাজারে বাংলাদেশি অর্থে ৫০ টাকার কমে কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। বাংলাদেশ ৩০০ টন পেঁয়াজের যে ক্রয়- আদেশ পাঠিয়েছে তা চট্টগ্রাম বন্দর পর্যন্ত পৌঁছাতে খরচ পড়বে কেজি প্রতি ৫৫-৫৭ টাকা।
টন প্রতি ৬০০ ডলার হিসাবে। এটা পাকিস্তানের ব্যবসায়ী ও এক্সপোর্টারদের হিসাব। বাংলাদেশে কূটনীতিক যার অর্থনৈতিক কূটনীতি বাস্তবায়নের সঙ্গে যুক্ত তাদের হিসাবে এটি আরও কমে আসবে যখন বাল্ক কেনা হবে। সেটি পাকিস্তান বলে নয়, সব দেশেই বাল্কে বাড়তি সুবিধা রয়েছে। তাদের মতে, পেঁয়াজ বিদেশ থেকে কম দামে কেনা হলেও চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় পৌঁছাতেই এটি দ্বিগুন হয়ে যায় রহস্যজনকভাবে। ফলে খুচরা বাজারে কেজি এক 'শ টাকার কমে না নামার যে আশঙ্কা বাণিজ্যমন্ত্রী করেছেন সেটা হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি! কূটনীতিকদের মতে, চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় পৌঁছানোর পথে পেঁয়াজের দাম আমদানী মূল্য ও খরচের দ্বিগুন করার কারণ চিহ্নিত করে সরকার লাগাম টানতে পারলেই দাম নিয়ন্ত্রণে আসবে। অর্থাত ৭০-৮০ মধ্যে আসতে বাধ্য। তারা এ-ও বলছেন, মিশর, তুরস্ক, মিয়ানমার যেসব দেশ থেকে পেঁয়াজ আসছে কোথাও চট্টগ্রাম পর্যন্ত পৌঁছাতে টন প্রতি ৬০০-৭০০ ডলারে বেশি খরচ পড়বে না। পাকিস্তানি মিডিয়ার খবর: কমপক্ষে ১৫ বছর পর বাংলাদেশের কাছ থেকে পেঁয়াজ রপ্তানির অর্ডার পেয়েছে পাকিস্তান। করাচি ভিত্তিক রোশান এন্টারপ্রাইজের সঙ্গে ঢাকার তাসো এন্টারপ্রাইজের মধ্যে ৩০০ টন পেঁয়াজ রপ্তানির চুক্তি হয়েছে সম্প্রতি। ট্রেড ডেভেলপমেন্ট অথোরিটি অব পাকিস্তানের (টিডিএপি) এক কর্মকর্তা খবরটি নিশ্চিত করেছেন বলে জানিয়েছে দেশটির দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনাল। সেখানে বলা হয়, প্রতিবেশী দেশের ওপর ভারতীয় পেঁয়াজ রপ্তানির নিষেধাজ্ঞার কারণে বাংলাদেশের স্থানীয় বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেছে। ওই কর্মকর্তা সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, অর্ডার মতে প্রতি কন্টেইনারে ২৮ টন করে কমপক্ষে ১২ কনটেইনার পেঁয়াজ বাংলাদেশে যাবে। পরবর্তীতে আরও রপ্তানি আদেশ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, বাংলাদেশ প্রতিবছর ৭ লাখ থেকে ১১ লাখ টন পেঁয়াজ আমদানি করে। এর ৭৫ ভাগই যেতো ভারত থেকে। স্থানীয় বাজারে সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য তুরস্ক, মিয়ানমার ও মিসরের মতো বিকল্প বাজারের সন্ধান করছে ঢাকা। ওই কর্মকর্তা জানান, ভারতীয় নিষেধাজ্ঞার কারণে বাংলাদেশে পাকিস্তানের সম্ভাব্য বাজার সৃষ্টির সূযোগ এসেছে। তিনি আরও জানান, পেঁয়াজ বাণিজ্য নিয়ে দুই দেশের সরকারও একমত হয়েছে। একজন রপ্তানিকারক জানান, পাকিস্তানের বাজারের বর্তমান অবস্থা বিবেচনায় পেঁয়াজ রপ্তানি লাভজনক হবে। তবে বাংলাদেশের সঙ্গে দেশটির বাণিজ্য টেকসই হওয়া নিয়ে সংশয় রয়েছে তাদের। অল পাকিস্তান ফ্রুট অ্যান্ড ভেজিটেবল এক্সপোর্টার্স, ইমপোর্টার্স অ্যান্ড মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান ওয়াহিদ আহমেদ বলেন, বর্তমানে টন প্রতি পেঁয়াজের মূল্য ৬০০ ডলার হবে (এক্সপোর্ট খরচ সহ) পাকিস্তানি পণ্যের বাজার হিসেবে বাংলাদেশ বেশ গুরুত্বপূর্ণ গন্তব্য বলেও জানানো হয় প্রতিবেদনে। এশিয়ার মধ্যে চীনের পর বাংলাদেশেই বেশি পণ্য রপ্তানি করতে দেশটি। তবে উড়োজাহাজ যোগাযোগের স্বল্পতার কারণে সম্প্রতি তা কমে এসেছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Mohammed Ali

২০১৯-১১-১১ ১০:০৮:৪২

ইতালিতে ৫ কেজি ওজনের পিঁয়াজের বস্তা খুচরা দোকান থেকে ৩ ইউরো বা ৩×৯৩=২৭৯ টাকায় কিনতে পারি। আমাদের দেশে ১ কেজি ১০০ টাকার বেশি কল্পনা করলে গা শিউরে উটে।

Mohammed Ali

২০১৯-১১-১১ ১০:০০:০৬

মনে হয় চেতনা পন্থিরা এখন থেকে পিঁয়াজ খাওয়া ছেড়ে দেবে। কারণ ভুলে যদি বাজার থেকে পাকিস্তানি পিঁয়াজ কিনে ফেলে।

Kazi

২০১৯-১১-১১ ০০:১৩:৫০

কানাডার ব্যবসায়ীরা কোথা থেকে পেঁয়াজ আমদানি করে ? ৪,৫৪ কেজি ব্যাগের মূল্য ১ ডলার ৯৯ সেন্ট। ৬৬ টাকা ডলার হিসাবে কেজি বাংলাদেশি ২৮ টাকা ৯৩ পয়সায় আমরা কিনি। কারণ এখানে অসৎ ব্যবসায়ী নাই। কৃত্রিম চাহিদা বাড়ানোর জন্য মজুতদার নাই।

ahammad

২০১৯-১১-১০ ২২:৩৯:৩৭

শুধু তিনশ টন নয়, তিনশত কুটি টন আমদানী করেও লাভ হবে না। যতখ্খন বানিজ্যমন্ত্রী ও মন্ত্রনালয় দূনিতী মুক্ত না হবে। একমাএ সামরিক বাহিনী দিয়ে অভিযান ছালাইলে, ব্যাবসয়ী নামের মুনাফাখোরদের গুূদামে যত পিয়াজ আছে ঐ পিয়াজই ৫০ /৬০ টাকার মধ্যে বিক্রি করা সম্ভব।

ahammad

২০১৯-১১-১০ ১৪:০০:০৭

তিনশত টন নয়,যদি তিনশত কুটি টন ও আমদানী করা হয়, বানিজ্য মন্ত্রনালয় দূনিতী মুক্ত না হলে পেয়াজের কমবে না।

সুলতান

২০১৯-১১-১০ ১২:৫০:২৭

ভাল সংবাদ ইন্ডিয়ান মালাউনদের উপরে আস্থা না রাখাই ভাল।

মোহাম্মেদ শাহাদাৎ

২০১৯-১১-১০ ১১:০৫:৪৭

বিপদে যে পাশে দাঁড়ায়, সেই প্রকৃত বন্ধু। বন্ধু বন্ধু বলে মুখে ফেনা তুললেই বন্ধু হয় না।

মফিজ

২০১৯-১১-১০ ১০:৪২:৪৫

বাংলাদেশে এই পেঁয়াজ কেজিপ্রতি ১০০ টাকায় বিক্রি হবে নিশ্চিত।

আপনার মতামত দিন

মুম্বইয়ে মার্কেট থেকে পিয়াজ চুরি (ভিডিও)

বিশ্বজুড়ে আড়াইশ সাংবাদিক জেলে, শীর্ষে চীন

চলন্ত বাস থেকে পড়ে মা-ছেলের মর্মান্তিক মৃত্যু

‘ভিন্নমতের কারণে ১০ বছরে ৩৫ লাখ আসামী, নিহত ১৫২৫, গুম ৭৮১’

সেনাদের পক্ষ নিয়ে কাঠগড়ায় দাঁড়াবেন সুচি

টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত চট্টগ্রামের

শায়েস্তাগঞ্জে ট্রেনের ঝাপ দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

সমকামিতা: আনোয়ার ইব্রাহিমকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে পুলিশ

মানবতাবিরোধী অপরাধ: টিপু সুলতানের ফাঁসি

অপহরণের ৫দিন পর মিললো শিশুর লাশ

তামিলদেরও নাগরিকত্ব বিলে আনার আহ্বান

নাগরিকত্ব বিল মুসলিমদের বিরুদ্ধে বৈষম্য

‘সুচির আত্মপক্ষ সর্মথনের সুযোগ আছে বলে মনে হয় না’

কলকাতার বাজারে পদ্মার ইলিশ কিনলে পেঁয়াজ ফ্রি

বৃটিশ নির্বাচনে বাংলাদেশ, পাকিস্তানের মুসলিম প্রার্থীদের রেকর্ড

শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ, স্কুল কর্মচারি গ্রেপ্তার