বিজনকে হত্যার হুমকি

আশুগঞ্জে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

আশুগঞ্জ (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি

বাংলারজমিন ১০ নভেম্বর ২০১৯, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:১২

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিনিয়র সাংবাদিক জাবেদ রহিম বিজনকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে আশুগঞ্জ  টেলিভিশন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশেনের উদ্যোগে শনিবার সকালে দীর্ঘ মানববন্ধন হয়েছে। পরে এক প্রতিবাদ সভায় এঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের গোলচত্বরে অনুষ্ঠিত এই মানববন্ধনে ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় কর্মরত স্থানীয় সাংবাদিকরা ছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক এবং সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং অন্যান্য শ্রেণীপেশার লোকজন অংশগ্রহণ করেন। পরে  গোলচত্বর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় আশুগঞ্জ টেলিভিশন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশেনের সভাপতি  মো.আক্তারুজ্জামান রঞ্জনের সভাপতিত্বে এক প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন,ব্রাহ্মণবাড়িয়া  টেলিভিশন এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন জামি,আশুগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি  মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক,সাপ্তাহিক সোনালীধারা পত্রিকার সম্পাদক সাদেকুল ইসলাম সাচ্চু, আশুগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন, আওয়ামীলীগ নেতা ডাক্তার মোবারক আলী চৌধুরী, সাংবাদিক মোশারফ হোসেন বেলাল,মজিবুর রহমান খান , বৈশাখি টিভির প্রতিনিধি মোঃ আদিল উদ্দিন আহম্মেদ, আশুগঞ্জ টেলিভিশন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশেনের সাধারণ সম্পাদক নিতাই চন্দ্র ভৌমিক ও সহ সভাপতি বাবুল সিকদার,সাংগঠনিক সম্পাদক তসলিম আহমেদ প্রমুখ। প্রতিবাদ সভায় আওয়ামী লীগ নেতা ডাক্তার মোবারক আলী চৌধুরী বলেন- যুবলীগ নেতা কাজলকে নিয়ে মানবজমিন পত্রিকায় যা লেখা হয়েছে তা সত্য। সে আখাউড়ার সম্রাট। কাজেই আমরা তাকজিল খলিফা কাজলের দৃষ্ঠান্তমুলক বিচার চাই।

 অতীতের সাংবাদিক হত্যার বিচার হলে আজ তাকজিল খলিফা কাজলের মতো লোকেরা সাংবাদিকদের এধরনের হুুমকি দেয়ার সাহস পেতনা।এক সপ্তাহের মধ্যে বিজনের হুমকিদাতাদের সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানান সাপ্তাহিক সোনালীধারা পত্রিকার সম্পাদক সাদেকুল ইসলাম সাচ্চু। আশুগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মোজাম্মেল হক সিনিয়র সাংবাদিক জাবেদ রহিম বিজনকে হত্যার হুমকি দাতাকে দ্রুত আইনের আওতায় আনার জন্যে প্রশাসনের প্রতি আহবান জানান।
আশুগঞ্জ টেলিভিশন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশেনের সভাপতি মো.আক্তারুজ্জামান রঞ্জন বলেন,মানবজমিন পত্রিকা পুড়িয়ে প্রমান করেছে তারাই সিনিয়র সাংবাদিক জাবেদ রহিম বিজনকে হত্যার হুমকি দিয়েছে।



পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

জয়

২০১৯-১১-১১ ০৭:১২:১৫

কাজলের মত গুন্ডার সংগে আইনমন্ত্রির মত ভাল মানুষের সম্পর্ক হয় কেমন করে এটা আমার বোধগম্য হয় না।

শিমুল

২০১৯-১১-১১ ০৫:১৪:১৮

এদের কারণে আওয়ামিলীগের অসাধারণ সব অর্জন ম্লান হয়ে যায়। আমি বুঝি না মাননীয় প্রধানমন্ত্রি কেন মেয়র কাজলদের মত এই আবর্জনাগুলিকে শায়েস্তা করেন না?

tushar

২০১৯-১১-১১ ০৪:৪৮:৪৭

মতিন ভাই, মেয়র কাজলের সাহসের দেখেছেন কি, আজ আখাউড়ায় নেমেছেন। হাটার ভংগি দেখে মনে হয়েছে একজন সম্রাট হাটছে, ভাবখানা এমন রাজ্য জয় করে এসেছে। এই দেশে আসলে আইনকানুন বলতে কিছু নাই :(

মতিন

২০১৯-১১-১১ ০২:১১:৩৩

মেয়র এবং তার পেটোয়া বাহিনির সাহস বোঝা যায় এটা দেখলেই, সম্মেলন বাতিল হয়েছে কিন্তু মেয়রের লাগামো শতশত গেইট এখনো খোলা হয় নাই। প্রায় ১৫ দিন ধরে আখাউড়া ছেয়ে আছে মেয়রের লাগানো গেইটে। গাড়ি চলতে পারছে না, মানুষ হাটতে পারছে না অথচ প্রশাসন নির্বিকার। আজব একটা দেশ!

সাব্বির

২০১৯-১১-১১ ০০:১৬:১৭

অবশ্যই কলমের জোর বেশি। মেয়র এবং তার গুন্ডা বাহিনি গ্রেফতার হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রি কাউকে ছাড় দেবেন না ইনশাল্লাহ

mahbub ahmad

২০১৯-১১-১০ ১১:৪৫:৪৮

আমরা অপেক্ষায় আছি এটা দেখার জন্য কলমের শক্তি বেশি নাকি গুন্ডামির?

আপনার মতামত দিন

বাংলারজমিন -এর সর্বাধিক পঠিত