সাটুরিয়ার ৯ ইউনিয়ন পরিষদ

অফিস আছে কর্মকর্তা নেই

বাংলারজমিন

সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি | ১০ নভেম্বর ২০১৯, রোববার
 মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার ৯ ইউনিয়ন পরিষদে সরকারি কর্মকর্তা ও সহকারী কর্মকর্তাদের অফিস থাকলেও কেউ অফিস করেন না। এসব কর্মকর্তাদের নামে ইউনিয়ন পরিষদে কক্ষ বরাদ্দ থাকলেও তাদের কোনো দিন ওই অফিসে বসতে দেখা যায়নি। সারা বছর জুড়ে এসব অফিস তালাবদ্ধ থাকে বলে জানান সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানরা।
ইউপি চেয়ারম্যানদের অভিযোগ, বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড ও এলাকার সড়কের বেহাল দশা, গবাদি পশুর নানা সমস্যা, শিক্ষা নিয়ে সচেনতামূলক অনুষ্ঠান, এলাকার নিরাপত্তা নিয়ে আনসারদের সঙ্গে মতবিনিময় করা, বিআরডিবি সদস্যদের নিয়ে সমবায় সমিতির ও ঋণ নিয়ে আলোচনা, কৃষকদের নিয়ে মাঠ পর্যায়ে আলোচনা এবং সাধারণ মানুষদের নিয়ে মতবিনিময় হবার কথা এসব অফিসে। তারা আরো জানান, অযথায় ইউনিয়ন পরিষদের এসব কক্ষ আটকিয়ে রেখেছেন তারা।    
সাটুরিয়া উপজেলা ইউনিয়ন পরিষদে যেসব দপ্তর রয়েছে সেগুলো হচ্ছে, শিক্ষা অফিস, প্রাণি সম্পদ অফিস, কৃষি অফিস, বিআরডিবি অফিস, আনছার ভিডিপি ও এলজিইডি অফিস। সূত্র জানায়, এসব অফিস থেকে স্ব-স্ব এলাকার মানুষ তার নিজ ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সহজেই যেন সেবা পেতে পারে সেজন্য এ অফিসগুলো দেয়া হয়েছিল। এসব অফিসে একজন করে সহকারী কর্মকর্তা সপ্তাহে তিনদিন বসার কথা থাকলেও তাদের সারা বছরেও খুঁজে পাওয়া যায়নি। একমাত্র উপজেলা কৃষি অফিসের সহকারী কর্মকর্তারা মাঝেমধ্যে বসে কৃষকদের সঙ্গে মতবিনিময় করে থাকেন বলে জানা গেছে। সাটুরিয়া উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, তৃণমূল মানুষের কাছে সেবা পৌঁছিয়ে দেবার জন্য বর্তমান সরকার ইউনিয়ন পরিষদগুলো  তৈরি করছেন।
সেই ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে সাধারণ মানুষ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও সেবা পাওয়ার জন্য ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে সরকারি কর্মকর্তাদের একটি করে কক্ষ বরাদ্দ রেখেছেন। কিন্তু ওইসব সরকারি কর্মকর্তারা না বসায় সাধারণ মানুষ সেবা পাওয়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। অলস পড়ে আছে ওইসব সরকারি কর্মকর্তাদের কক্ষ।
সাটুরিয়া উপজেলার সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানা গেছে, লোকবল সংকট থাকায় ইউনিয়ন পরিষদে বরাদ্দকৃত অফিসে কাউকে বসানো যাচ্ছে না। তবে মাঝে মধ্যে আমাদের কর্মকর্তারা অফিস করে থাকে বলে জানান।
সাটুরিয়া উপজেলার ৯ ইউনিয়ন পরিষদে সরজমিন গিয়ে দেখা যায়, অফিসগুলো খালি ও তালাবদ্ধ অবস্থায় পড়ে রয়েছে। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরা বলেন, কক্ষগুলো বন্ধ থাকায় ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তৃণমূল সাধারণ মানুষ কাঙ্ক্ষিত সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। আমরা সাধারণ মাসিক সভায় এ নিয়ে আলোচনা করলেও কোনো লাভ হয়নি বলে জানান। সাটুরিয়ার ইউএনও আশরাফুল আলম জানান, ইউনিয়ন পরিষদে সরকারি কর্মকর্তারা যাতে নিয়মিত ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তৃণমূল মানুষ যেন সেবা পায় সেটি নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট কর্মককর্তাদের নিয়ে ব্যবস্থা করা হবে বলে তিনি জানান।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রোহিঙ্গা নির্যাতনের ন্যায়বিচার চায় অক্সফ্যাম

বিক্ষোভ মোকাবিলায় উত্তর-পূর্ব ভারতে নামানো হল সেনা

বৃটেনে সাধারণ নির্বাচন আজ

কেরানীগঞ্জে কারখানায় আগুন

খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি আজ কড়া নিরাপত্তা

টিসিবি’র পচা পিয়াজ নিয়ে ক্রেতাদের ক্ষোভ

কুষ্ঠরোগীদের জন্য ওষুধ তৈরি করতে দেশি প্রতিষ্ঠানের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান

হাইকোর্ট মোড়ে ৩ মোটরসাইকেলে আগুন

ভিন্নমতের কারণে ১০ বছরে নিহত ১৫২৫, গুম ৭৮১

ভারতীয় নাগরিকপঞ্জীর সমালোচনায় রানা দাসগুপ্ত

ইউএনডিপি’র মানব উন্নয়ন সূচকে এক ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ

দুদুসহ বিএনপি’র পাঁচ নেতার ৮ সপ্তাহের আগাম জামিন

বিশ্ববিদ্যালয়ে সান্ধ্য কোর্স বন্ধসহ ১৩ নির্দেশনা ইউজিসি’র

শাজাহান খানকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম ইলিয়াস কাঞ্চনের

লোকসভার পর রাজ্যসভাতেও পাস হয়ে গেল বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল

‘ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ অবস্থান পদস্খলন হলে ঐতিহাসিকভাবে দেশটির অবস্থান দুর্বল হবে’