বান্দরবানে হাসপাতালের রান্নাঘর-গ্যারেজের নামে কোটি টাকা লোপাট

বাংলারজমিন

নুরুল কবির, বান্দরবান থেকে | ৮ নভেম্বর ২০১৯, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ২:৫০
গণপূর্ত বিভাগের তত্ত্বাবধানে বান্দরবান সদর হাসপাতালের ২৫০ শয্যার নতুন ভবন নির্মাণের জন্য পুরাতন রান্নাঘর ও গাড়ির গ্যারেজ ভেঙে ফেলায় অস্থায়ীভাবে নতুন করে কোটি টাকা বরাদ্দে রান্নাঘর ও গ্যারেজ নির্মাণের কাজে অর্থ লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা গেছে, বান্দরবান সদর  হাসপাতালকে ১০০ শয্যা থেকে ২৫০ শয্যায় উন্নীতকরণের লক্ষ্যে নতুন ভবন নির্মাণের জন্য ভেঙে ফেলা হয় হাসপাতালের রান্নাঘর ও গাড়ি রাখার গ্যারেজ। পরে অস্থায়ীভাবে রান্নাঘর ও গ্যারেজ নির্মাণের জন্য কোটি টাকার অপারেশন প্ল্যান ইনভেস্টমেন্ট ওপিআই টেন্ডার দেয় গণপূর্ত বিভাগ। হাসপাতাল নির্মাণের ঠিকাদার রয়েল এসোসিয়েট ফাইভ পার্সেন্ট লেসে ৪৪ লাখ টাকা ব্যয়ে রান্নাঘর নির্মাণ এবং ৪৪ লাখ টাকা ব্যয়ে গ্যারেজ ও সিকিউরিটি গেট নির্মাণের কাজটি সমাপ্ত করেন। কিন্তু সরজমিন গিয়ে দেখা গেছে, ১৭ ফিট বাই ৩৬ ফিট আধা পাকা টিন শেড রান্না ঘর ও ১৫ ফিট বাই ২৮ ফিট একটি আধা পাকা টিন শেড গ্যারেজ এবং ২৮ফিট লম্বা ৮ফিট উচ্চতার লোহার গ্রিলের সিকিউরিটি গেট নির্মাণ করা হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাসপাতালের এক কর্মচারী বলেছেন, কাজগুলোর মান খুবই নিম্নমানের। যে রান্নাঘর ও গ্যারেজটি তৈরি করা হয়েছে তাতে ৬ থেকে ৭ লাখ টাকার বেশি খরচ হওয়ার কথা নয়। টেন্ডারের মূল কাজে যে টাকা খরচ হয়েছে রিপিয়ারিং এর কাজে তো তার বেশি খরচ হবে না।
এ কাজের জন্য এতো টাকার টেন্ডার সরকারের টাকার অপচয় ছাড়া কিছু নয়।

এবিষয়ে গণপূর্ত বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী ফয়জুর রহমান বলেন, দুটি টেন্ডারে ৫০ লাখ করে রান্নাঘর এবং গ্যারেজ ও সিকিউরিটি গেটের কথা উল্লেখ থাকলেও হাসপাতালের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজ করা হয়েছে। টেন্ডারে বিস্তারিত উল্লেখ করা হয়নি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের চাহিদামতো হাসপাতালের সৌন্দর্যকরণ ডাক্তারদের আবাসিক কোয়ার্টারের বিভিন্ন রিপিয়ারিং কাজ বাউন্ডারি ওয়াল সম্প্রসারণের কাজ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে প্রকল্পের ৭০ ভাগ বিলও উত্তোলন করে নিয়েছেন ঠিকাদার কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে কাজটি এখনো বুঝিয়ে দেয়া হয়নি। গণপূর্ত বিভাগ জানায়, ইতিমধ্যে কাজটি বুঝে নেয়ার জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেয়া হয়েছে। আশা করি কয়েকদিনের মধ্যে তাদেরকে কাজগুলো বুঝিয়ে দেয়া হবে। সদর হাসপাতালে তত্ত্বাবধায়ক সিভিল সার্জন ডাক্তার অংশৈ প্রু মারমা বলেন, এ রান্নাঘর ও গ্যারেজের নামে কত টাকা টেন্ডার এবং কি কি কাজ রয়েছে সে বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। তবে হাসপাতালের নতুন ভবনের জন্য পুরাতন রান্নাঘর ও গ্যারেজ ভেঙে ফেলায় তারা নতুন করে সেগুলো তৈরি করে দিয়েছে। এবং কিছু কিছু জায়গায় তারা রিপিয়ারিং এর কাজও করেছে। তবে এগুলো টেন্ডারের কাজ কিনা আমি সেটি জানি না। আমরা কাজ এখনো বুঝে পায়নি।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মুজিববর্ষের উদ্বোধনীতে প্রধান বক্তা থাকবেন মোদি

পিয়াজ সিন্ডিকেট চিহ্নিতের চেষ্টা চলছে

চালের দাম বেড়েছে কেজিতে ৫-৬ টাকা

দায় তূর্ণা নিশীথার চালক ও গার্ডের

২২ হাজার রিয়ালে বিক্রি করে দেয়া হয় সুমিকে

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন আজ

জাতিসংঘে রেজুলেশন গৃহীত

কামালপুর-হাজীপুরে সন্ত্রাসী থাবা

বাংলাদেশের আরেকটি হতাশার দিন

বাংলাদেশি ব্যবসায়ীকে অপহরণের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৩

এখনো ঘুমের ঘোরে ‘বাবা’ বলে ডেকে ওঠে কান্তা

যে কারণে অপরিণত শিশুর জন্ম বাড়ছে

বরিশালে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ শেষে ডুবিয়ে রাখা হয় পানিতে

এক কেজি পিয়াজের দামে সাত কেজি চাল

২০ মুক্তিযোদ্ধা পেলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অর্থ সহায়তা

রেলের ত্রুটি সর্বত্র