বাফুফে’র সঙ্গে কাজ করতে চান ইনফান্তিনো

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৮ অক্টোবর ২০১৯, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৫
বাংলাদেশের ফুটবলের উন্নয়নে কাজ করবে বিশ্ব ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা- ফিফা। গতকাল বাংলাদেশে ঝটিকা সফরে আসেন ফিফার সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দেন ইনফান্তিনো। তিনি বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট (বাফুফে) কাজী সালাউদ্দিন ও ফিফার কাউন্সিলর সদস্য মাহফুজা আক্তার কিরণ এখানে আছেন। আশা করি আমরা একসঙ্গে ভালো কিছু করতে পারবো। এজন্যই আমি এখানে এসেছি।’
৭ বছর পর কোনো ফিফা সভাপতি আসলেন বাংলাদেশে। ফিফা সভাপতির এটি চতুর্থ বাংলাদেশ সফর। এর আগে ২০০৬ ও ২০১২ সালে বাংলাদেশে আসেন তৎকালীন সভাপতি সেপ ব্লাটার।
আর প্রথমবার ১৯৮১ সালে এসেছিলেন জোয়াও হ্যাভেলাঞ্জ। পাঁচ সদস্যের দল নিয়ে ইনফান্তিনো বাংলাদেশে আসেন মঙ্গোলিয়া ঘুরে। প্রশান্ত মহাসাগরীয় ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় ফুটবলের উন্নয়নের জন্য ফেডারেশনগুলোর সঙ্গে আলোচনা করতেই তার এই সফর। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় ভোর ৫টায় ঢাকায় পা রাখেন ফিফার সভাপতি ইনফান্তিনো। যদিও তার আসার কথা ছিল বুধবার সন্ধ্যায়। কিন্তু পরে শোনা যায় রাত ১টায় আসছেন। তবে আরো ৪ ঘন্টা পর হযরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেন ফিফা প্রধান।
বাংলাদেশের সংবাদকর্মীরা অবশ্য আগে থেকেই সেখানে অবস্থান করছিলেন। ৪৯ বছর বয়সী ইনফান্তিনোকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানান বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন, সহ-সভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ ও ফিফা কাউন্সিলর সদস্য মাহফুজা আক্তার কিরণ। বাংলাদেশে পা রেখে ইনফান্তিনো বলেন, ‘সবাইকে শুভ সকাল, বাংলাদেশে আসতে পেরে আমি খুব আনন্দিত। ফিফা প্রেসিডেন্ট হিসেবে বলতে হচ্ছে, বাংলাদেশ আজ বিশ্ব ফুটবলের রাজধানী। কারণ ফিফা প্রেসিডেন্ট এখানে। এখানে ফুটবল নিয়ে এবং খেলাটির উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা হবে।’
বিমানবন্দর থেকে ফিফা সভাপতি ইনফান্তিনো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করতে যান। সেখানে তিনি প্রধানমন্ত্রীকে একটি জার্সি উপহার দেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও ইনফান্তিনোকে জার্সি উপহার দেন। বিকাল পাঁচটায় লাওসের উদ্দেশে রওয়ানা আগে হোটেল সোনারগাঁওয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন ফিফা সভাপতি।
‘ক্রিকেট নয়, বাংলাদেশের জনপ্রিয় খেলা ফুটবল’
বাংলাদেশে এক সময় ফুটবলের অনেক উন্মাদনা ছিল। কিন্তু ক্রিকেটের আধিপত্যে ফুটবলের সেই উন্মাদনা অনেকটাই কমে গেছে। ফিফা সভাপতি ইনফান্তিনো তা মানতে নারাজ। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি মানি না, ক্রিকেট বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা। ক্রিকেট তো অনেক কঠিন খেলা। আপনি কীভাবে বলতে পারবেন যে ক্রিকেট সবাই বোঝে? ফুটবল খুবই সহজে বোঝা যায়, খেলা যায়। আপনার কাছে বল আছে, খেলছেন, গোল করছেন, উল্লাস করছেন। ফুটবল হৃদয় দিয়ে খেলা যায়।’
ক্রিকেটে বাংলাদেশ বেশি সফল। বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত গিয়েছে টাইগাররা। কিন্তু ফুটবলে কখনো বাছাই পর্ব উতরাতে পারেনি। ক্রিকেটে সাফল্য ও ফুটবলে ব্যর্থতার কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ইনফান্তিনো বলেন, ‘হ্যাঁ, আমি বুঝতে পারছি যে ক্রিকেটে বাংলাদেশের অনেক সাফল্য রয়েছে। সারাবিশ্বে হাতেগোনা কিছু দেশ ক্রিকেট খেলে। সংখ্যাটা কত হবে? দশ বা এগার? অন্যদিকে ফুটবল খেলে ২১১টা দেশ। তো আপনি যখন অল্প কয়েকজনের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করবেন তখন আপনার সাফল্যের সম্ভাবনা এমনিতেই বেড়ে যাবে, সহজেই শীর্ষে যেতে পারবেন।
সেদিক থেকে ফুটবল কিন্তু বেশ কঠিন। তবে এখানেই আসলে ফুটবলের মূল চ্যালেঞ্জটা। ফুটবলে আপনাকে কঠিন লড়াই করতে হবে এবং জিততে হবে। এখানে আমরা সবাই প্রতিযোগী। বাংলাদেশের মানুষ আগে থেকেই যোদ্ধা, ইতিবাচক অর্থে। এখানে অনেক কারণেই ফুটবল খেলা হয়, এমনকি স্বাধীনতার জন্যেও।’
বাংলাদেশের মানুষের মাঝে ফুটবলের উন্মাদনা দেখেছেন ইনফান্তিনো। তিনি মনে করেন, এই আবেগ ধরে রাখতে পারলে একদিন এ দেশে ক্রিকেটকে ছাড়িয়ে যাবে ফুটবল। তিনি বলেন, ফুটবলে এমন হবেই যে আপনি কখনও ওপরে থাকবেন আবার নিচে পড়ে যাবেন। আপনারা জানেন ২১১টি দেশের মধ্যে ফুটবল বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন কিন্তু ১টি দেশ, যেটা বর্তমানে ফ্রান্স। কিন্তু এর মানে এই না যে বাকি ২১০টি দল খারাপ। এটার মানে এই যে বাকি ২১০ দেশ চ্যাম্পিয়ন হতে চায়। সেটা হোক বয়সভিত্তিক বা নারী ফুটবলে।
আর এ কারণেই বাংলাদেশে আমি যে ফুটবলের প্রতি আবেগ দেখেছি, বিশেষ করে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের পর সবার যে উন্মাদনা- এটা চলমান থাকলে বাংলাদেশের ফুটবলও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অনেক উঁচুতে যাবে। তখন আর ক্রিকেটের কোনো সুযোগ থাকবে না।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

গাল্ফ সম্মেলনে যোগ দিতে সৌদি আরব যাচ্ছেন না কাতারের আমির

দুর্নীতির দায়ে দীর্ঘ কারাদণ্ড আলজেরিয়ার সাবেক ২ প্রধানমন্ত্রীর

‘ন ডরাই’ সিনেমার প্রদর্শণী বাতিল ও তুলে নিতে হাইকোর্টের রুল

আদালতে ভাবলেশহীন সুচি

২ অ্যাডহক বিচারকের শপথ

‘রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার বিষয়টিও আদালতে উঠতে পারে’

আপিল বিভাগের এজলাস কক্ষে সিসি ক্যামেরা বসানোর কাজ শুরু

‘বাংলাদেশে হিন্দু নির্যাতন থামেনি বলেই এই বিল’

যশোরে ছাত্রলীগ নেতা খুন

ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মানহানির মামলার আবেদন

যে বিচারকরা হেগে বিচার করবেন

উল্লাপাড়ায় গৃহবধূর চুল কেটে দেয়া মামলার প্রধান আসামী জেলে

চেক প্রজাতন্ত্রে হাসপাতালে বন্দুক হামলা, নিহত ৬

১৬ই ডিসেম্বর থেকে ‘জয় বাংলা’ জাতীয় স্লোগান হওয়া উচিত

হেগে রোহিঙ্গা নারীর ক্ষোভ

ভিন্ন মতাবলম্বী যখন স্বৈরাচার হয়ে ওঠেন