বোলিংয়ে সুযোগ পেয়েই আফিফের চমক

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৩১
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে ঝড়ো ফিফটিতে বাংলাদেশকে জেতান আফিফ হোসেন ধ্রুব। এবার বল হাতে চমক দেখালেন আফিফ। গতকাল আফগানিস্তানের বিপক্ষে লীগ পর্বের শেষ ম্যাচে ৩ ওভার বল করে এক মেডেনসন মাত্র ৯ রানে দুই উইকেট নেন এ তরুণ অফস্পিনার। টি-টোয়েন্টিতে এটি আফিফের ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ফিগার। গত বছরের ১৫ই ফেব্রুয়ারি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি অভিষেক অফস্পিন অলরাউন্ডার আফিফের। নিজের প্রথম ম্যাচে ২ ওভার হাত ঘুরিয়ে ২৩ রানে ১ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। এক বছরের বেশি সময় পর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে টি-টোয়েন্টিতে ফেরেন আফিফ। ওই ম্যাচে ২৬ বলে ৫২ রান করেন এ বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান।
তবে বল করার সুযোগ হয়নি। এরপর আরো দুটি ম্যাচ খেলেছেন আফিফ। কোনো ম্যাচেই তাকে বোলিং করাননি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।
গতকাল ওপেনিং জুটিতে ৯ ওভারেই ৭৫ রান সংগ্রহ করে ফেলে আফগানিস্তান। কোনো বোলারকে দিয়ে যখন কাজ হচ্ছিলো না, তখন সাকিব আক্রমণে আনেন আফিফকে। আর নিজের প্রথম ওভারেই আফিফ দেখান চমক। ওভারে জোড়া আঘাতে তৃতীয় বলে তিনি তুলে নেন হযরতুল্লাহ জাজাইকে। ৩৫ বলে ৬ চার ও ২ ছক্কায় ৪৭ রান করেন জাজাই। আর পঞ্চম বলে আফিফ আফগান আসগর আফগানকে (০) নিজের দ্বিতীয় শিকার বানান। মেডেন ওভারের সঙ্গে ২ উইকেট! আফিফ ভেলকিতে তাতে দারণভাবে ম্যাচে ফেরে বাংলাদেশ। পরের ওভারেই রহমানুল্লাহ গুরবাজকে (২৯) দারুণ এক ডেলিভারিতে কট অ্যান্ড বোল্ড করেন মোস্তাফিজুর রহমান। নিজের দ্বিতীয় ওভারে আফিফ খরচ করেন মাত্র ৩ রান। সেই চাপ কাজে লাগান সাকিব। ১৩তম ওভারে বোলিংয়ে এসে বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ নবীকে (৪) এলবির ফাঁদে ফেলেন বাংলাদেশি অধিনায়ক। আফিফের করা ১৪তম ওভারে রান আউটে কাটা পড়েন গুলবাদিন নায়েব (১)। ওই ওভারে আফিফ দেন ৬ রান। ৯ ওভারে বিনা উইকেটে ৭৫ রান করা আফগানিস্তানের সংগ্রহ ১৪ ওভার শেষে দাঁড়ায় ৯৬/৫-এ।
শেষ ৬ ওভারে আফগানিস্তান তোলে মাত্র ৪২ রান। ১৬তম ওভারে সাইফুদ্দিন আঘাত হানেন। দারুণ ডেলিভারিতে নজিবুল্লাহ জাদরানের (১৪) উইকেট উপড়ে ফেলেন এই পেস অলরাউন্ডার। পরের ওভারে শফিউলও পান সাফল্য। মোস্তাফিজুরের হাতে ক্যাচ বানিয়ে শফিউল ফেরান করিম জানাতকে (৩)। নিজের প্রথম ২ ওভারে ১৫ রান দেয়া শফিউল ওই ওভারে খরচ করেন মাত্র ৪ রান। এরপর রশিদ খানের ১৩ বলে ১১ ও শফিকুল্লাহ শফিকের ১৭ বলে অপরাজিত ২৩ রানে ১৩৮/৭ সংগ্রহ করে আফগানিস্তান। সাকিব আল হাসান ২৪ রানে ১টি, শফিউল ইসলাম ২৪ রানে ১টি ও সাইফুদ্দিন ২৩ রানে ১টি উইকেট নেন। মোস্তাফিজের শিকারও এক উইকেট। কিন্তু ৩ ওভারেই তিনি খরচ করেন ৩১ রান।
ঠিক জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আগের ম্যাচেও তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়তে দেখা যায় আফগানিস্তানকে। ওই ম্যাচের তাদের শুরুটা ছিল দুর্দান্ত। ৯ ওভারে বিনা উইকেটে ৮৩। কিন্তু ওপেনিং জুটি ভাঙার পর ধস নামে। ওপেনার গুরাবাজ-জাজাই ছাড়া কেউ বড় ইনিংস খেলতে পারেননি বলে ১৫৫ রানের বেশি তোলতে পারেনি আফগানিস্তান। যেটি ৭ উইকেট আর ৩ বল হাতে রেখেই টপকে যায় জিম্বাবুয়ে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সীমিত বলেই নৃশংস ঘটনা ঘটছে

যুবলীগের নেতৃত্ব নিয়ে নানা আলোচনা

যুবলীগের দায়িত্ব পেলে ভিসি পদ ছেড়ে দেবো

বিজিবি-বিএসএফ ভুল বোঝাবুঝি আলোচনায় শেষ হবে

আন্ডার ওয়ার্ল্ডের চাঞ্চল্যকর তথ্য সম্রাটের মুখে

শেয়ারবাজার টালমাটাল

ম্যানচেস্টারে বিমানের অফিস নিয়ে প্রশ্ন

পিয়াজের দাম কমবে কবে?

শিশু নির্যাতনকারীর ক্ষমা নেই

জামায়াতকে তালাক দিয়ে রাস্তায় নামুন: বিএনপিকে জাফরুল্লাহ

ঐক্যের ডাক গ্রামে গ্রামে ছড়িয়ে দিতে হবে

বাংলাদেশে পাবজি গেম বন্ধ

ভারতের সব রাজ্যে ডিটেনশন ক্যাম্প তৈরি হচ্ছে

জমি দখল করাই তাদের কাজ

ফেনী নদীর পানিচুক্তি নিয়ে হাইকোর্টে রিট

নতুন ব্রেক্সিট চুক্তি নিয়ে পার্লামেন্টে কঠিন লড়াইয়ের মুখে জনসন