কাউন্সিলরদের জরুরি তলব, ৪টার মধ্যে ঢাকায় থাকার নির্দেশ

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, ১২:২৭ | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৩৩
ছাত্রদলের ৬ষ্ঠ কাউন্সিলের ৫৬৬ জন কাউন্সিলরকে জরুরি তলব করা হয়েছে। আজ বিকাল ৪টার মধ্যে তাদেরকে ঢাকায় থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে উপস্থিত থাকতে গতরাতেই তাদেরকে ফোন করা হয়। দলীয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগে মঙ্গলবার রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আদালতের নির্দেশে স্থগিত হওয়া ছাত্রদলের কাউন্সিল নিয়ে পরবর্তী করণীয় ঠিক করতে বৈঠকে বসেন কাউন্সিলের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। সেই বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠকে লন্ডন থেকে স্কাইপে যোগ দেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

ওই বৈঠকের পর রাতেই ফোন করে সারাদেশের কাউন্সিলরদের ঢাকায় আসতে বলা হয়েছে। সূত্র বলছে, আজই কাউন্সিলরদের সিদ্ধান্তক্রমে কাউন্সিলের পরবর্তী তারিখসহ অন্যান্য করণীয় ঠিক করা হবে।

আজ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আসার জরুরি তলব পাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রদলের একাধিক কাউন্সিলর।
তারা জানিয়েছেন, ফোন করে বিকাল ৪টার মধ্যে অবশ্যই কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

ছাত্রদলের কাউন্সিল উপলক্ষে গঠিত যাচাই-বাছাই কমিটির সদস্য বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে বলেন, ছাত্রদলের সব কাউন্সিলরদেরকে বুধবার বিকাল চারটার মধ্যে ঢাকায় থাকতে বলা হয়েছে। তবে কী কারণে তাদের জরুরি তলব বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলেননি। তিনি বলেন, আদালতসহ বিভিন্ন বিষয় আছে। তাই তাদের ঢাকায় থাকতে বলা হয়েছে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সীমিত বলেই নৃশংস ঘটনা ঘটছে

যুবলীগের নেতৃত্ব নিয়ে নানা আলোচনা

যুবলীগের দায়িত্ব পেলে ভিসি পদ ছেড়ে দেবো

বিজিবি-বিএসএফ ভুল বোঝাবুঝি আলোচনায় শেষ হবে

আন্ডার ওয়ার্ল্ডের চাঞ্চল্যকর তথ্য সম্রাটের মুখে

শেয়ারবাজার টালমাটাল

ম্যানচেস্টারে বিমানের অফিস নিয়ে প্রশ্ন

পিয়াজের দাম কমবে কবে?

শিশু নির্যাতনকারীর ক্ষমা নেই

জামায়াতকে তালাক দিয়ে রাস্তায় নামুন: বিএনপিকে জাফরুল্লাহ

ঐক্যের ডাক গ্রামে গ্রামে ছড়িয়ে দিতে হবে

বাংলাদেশে পাবজি গেম বন্ধ

ভারতের সব রাজ্যে ডিটেনশন ক্যাম্প তৈরি হচ্ছে

জমি দখল করাই তাদের কাজ

ফেনী নদীর পানিচুক্তি নিয়ে হাইকোর্টে রিট

নতুন ব্রেক্সিট চুক্তি নিয়ে পার্লামেন্টে কঠিন লড়াইয়ের মুখে জনসন