ছাগল ছিনতাইয়ের মামলায় ছাত্রলীগ নেতার জামিন

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ২১ আগস্ট ২০১৯, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:০৪
ঈদের আগের দিন ২১২টি ছাগল ছিনতাই চেষ্টার মামলায় মোহাম্মদপুর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি মুজাহিদ আজমী তান্না আগাম জামিন পেয়েছেন। সোমবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান  ও বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামান-এর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ তার চার সপ্তাহের জামিন মঞ্জুর করেন। গতকাল মঙ্গলবার ওই ছাত্রলীগ নেতার জামিনের বিষয়টি জানা যায়। এর আগে গত ১৮ই আগস্ট হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় ছাত্রলীগ নেতার পক্ষে জামিন আবেদন করা হয়। আদালতে জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আঞ্জুমান আরা বেগম মুন্নী। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক।
ছাত্রলীগ নেতার আইনজীবী আঞ্জুমান আরা বেগম বলেন, আদালত তাকে চার সপ্তাহের আগাম জামিন মঞ্জুর করে আদেশ দিয়েছেন। অপরদিকে, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক বলেন, এই জামিন আদেশের বিরুদ্ধে আপিল আবেদনের বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেলকে অবহিত করা হবে। তিনি সিদ্ধান্ত দিলে আপিলে আবেদন করা হবে। এর আগে, গত ১১ই আগস্ট মুজাহিদ আজমী তান্নাসহ নয়জনের বিরুদ্ধে মোহাম্মদুপুর থানায় একটি মামলা করেন র?্যাব-২ এর সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার মো. ফারুখ হোসেন।
নথি থেকে জানা যায়, গত ১১ই আগস্ট সকালে যশোরের বারোবাজার পশুরহাট ও ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থেকে পাঁচ ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলাম, ফারুক বিশ্বাস, মোহাম্মদ মাসুদ, বাবু খান, শেখ সোলেমান ও মো. নুরুজ্জামান ট্রাকে করে ২১২টি ছাগল নিয়ে ঢাকায় আসেন। মোহাম্মদপুরের বাবর রোড এলাকায় গেলে জহুরি মহল্লা এলাকায় তাদের ছাগলসহ আটকে রাখা হয়। ছাগলগুলো ট্রাক থেকে নামিয়ে একটি ক্লাবের ভেতরে পাঁচ ব্যবসায়ীকে আটকে রাখেন। পরে র?্যাব-২ এর একটি টহল দল জিম্মিদশা থেকে ব্যবসায়ীদের উদ্ধার করেন। র?্যাব-২ এর কমান্ডিং অফিসার পুলিশ সুপার মহিউদ্দিন ফারুকী জানান, ১১ আগস্ট অর্থাৎ ঈদের আগের দিন দুপুর ১২টার সময় ব্যবসায়ীরা প্রথমে আমাদের ফোনে খবর দেন। ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন, বাবর রোডে ২১২টি ছাগল ছিনতাই করে করে ট্রাকসহ আটকে রাখা হয়েছে। ওই সময় মোহাম্মদপুর এলাকায় র‌্যাবের একটি মোবাইল টিম কাজ করছিলেন। পরে  মোবাইল টিমসহ আমরা ঘটনাস্থলে একটি ক্লাব ঘরের  ভেতরে ছাগল ব্যবসায়ীদের আটক অবস্থায় পাই। সেখানে তিনজন ছিনতাইকারী উপস্থিত ছিলেন। পাশে একটি মাচা করা ট্রাকের ওপর-নিচে মিলে  মোট ২১২টি ছাগল ছিল। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্দেশে আমরা ব্যবসায়ীদের ও ছিনতাইকারীদের মোহাম্মদপুর থানায় সোপর্দ করি। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সজীব ঘোষ জানান, মামলার তিন আসামি ইয়াসির আরাফাত, জাহিদুল ইসলাম ও মো. রায়হানকে র?্যাব-২ থানায় সোপর্দ করে। তাদের তিনদিন করে রিমান্ডে নেয়া হলে আসামিরা তাদের অপরাধ স্বীকার করেছেন। সজীব ঘোষ জানান, মোহাম্মদপুর থানা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বাবর রোডের ছাত্রলীগ অফিসের কাছাকাছি স্থানে একটি অস্থায়ী ছাগলের হাট বসান। ওই হাটে ছাগল ব্যবসায়ীদের জিম্মি করে রাখতেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। জিম্মি করে চাঁদা দাবি করতেন তারা। ছাত্রলীগের তৈরি ওই হাটে ছাগল রাখতেও জোর করা হতো ব্যবসায়ীদের।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Kazi

২০১৯-০৮-২২ ১৭:৫৮:৩৭

দেশের স্থানীয় সরকার চালায় ছাত্রলীগ। জামিন না দিলে উপায় আছে ।

আপনার মতামত দিন

বদলে গেল ক্লাবপাড়ার দৃশ্যপট, তবে

তদন্তের জালে ছাত্রলীগের শতাধিক নেতা

কলাবাগান ক্রীড়াচক্রে র‌্যাবের অভিযান সভাপতি গ্রেপ্তার

পিয়াজের দাম কমছেই না

ছাত্র রাজনীতির ইতিবাচক পরিবর্তন দেখছি না

দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল ১০ জনের

‘খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের আরো অবনতি’

৪ খুঁটির মূল্য দেড় লক্ষাধিক টাকা

নজরদারিতে আওয়ামী লীগের অনেক নেতা

যুবলীগ কইরা মাতব্বরি করবেন ওই দিন শেষ

ভুটানের জালে তিন গোল বাংলাদেশের

সিলেট চেম্বার নির্বাচন নিয়ে মর্যাদার লড়াই

২৪ ঘণ্টায় নতুন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি ৫০৮ জন

কমিশন কেলেঙ্কারিতে একা হয়ে পড়েছেন জাবি ভিসি

খালেদ মাহমুদকে যুবলীগ থেকে বহিষ্কার

মিন্নির আলোচিত সেই জবানবন্দি