ব্রেস্ট ক্যান্সারে নতুন ওষুধ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২১ জুলাই ২০১৯, রোববার
ব্রেস্ট ক্যান্সার বা স্তন ক্যান্সারে প্রতি বছর হাজার হাজার নারী মারা যাচ্ছেন। অনেকে দুরারোগ্য এই ব্যাধি সঙ্গে নিয়ে বেঁচে আছেন করুণভাবে। তাদের জন্য একটি ওষুধ বাজারে ছাড়া হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা এর কার্যক্ষমতার জন্য নাম দিয়েছেন ‘ম্যাজিক্যাল’ ওষুধ বা জাদুকরী ওষুধ। এখন এই ওষুধটি বৃটেনে জাতীয় স্বাস্থ্য বিষয়ক স্কিমের অধীনে বাজারে ছাড়া হয়েছে। ওষুধটির নাম দেয়া হয়েছে রিবোসিসলিব (Ribociclib)। কিসকালি (Kisqali) নামেও পরিচিত এই ওষুধ। তবে দামটা অনেক বেশি। এক বছরের কোর্সের দাম ৩৫০০০ পাউন্ড। বাংলাদেশের মুদ্রায় এর দাম প্রায় ৩৫ লাখ টাকা। রিবোসিসলিব হলো টার্গেটেড নতুন এক ধরনের থেরাপি, যা সুনির্দিষ্ট এক ধরনের টিউমারের বিরুদ্ধে কাজ করে। কেমোথেরাপির চেয়ে তা ভাল কাজ করে। এখানে উল্লেখ্য, কেমোথেরাপি দেয়ার ফলে দেহের সুস্থ কোষগুলোও ধ্বংস হয়। কিন্তু রিবোসিসলিব তা করে না। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ডেইলি মেইল।

যখন অন্য ওষুধ কাজ করা বন্ধ করে দেয়, তখনও এই ওষুধটি সহায়তা করতে পারে। প্রতিদিন যদি নারীরা একটি পিল সেবন করেন তাহলে তারা ব্রেস্ট ক্যান্সারের সবচেয়ে সাধারণ ধরণ থেকে মুক্ত থাকতে পারেন, প্রতিরোধযোগ্য ব্রেস্ট ক্যান্সারের বিরুদ্ধে দীর্ঘ আয়ু পেতে পারেন। এমন একটি এনজাইম আছে যা টিউমার কোষকে বিভক্ত হয়ে ছড়িয়ে পড়তে সাহায্য করে। ওই এনজাইমের কার্যক্ষমতাকে বন্ধ করে দিয়ে রিবোসিসলিব নারীদের সুস্থ রাখে।

বৃটিশ ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট ফর হেলথ অ্যান্ড কেয়ার এক্সিলেন্স গত এপ্রিলে ডাক্তাদেরকে নিষেধ করেছে যে, যেসব রোগি দীর্ঘদিন ধরে ওষুধ সেবন করছেন, ব্রেস্ট ক্যান্সার বিষয়ক হরমোন ড্রাগ প্রেসক্রাইব করা হচ্ছে যাদের, তারা যেন ওইসব রোগিকে এই ওষুধটি না দেন। কিন্তু পর্যবেক্ষকরা এখন সেই সিদ্ধান্ত পাল্টেছেন। নিউক্যাসলের ফ্রিম্যান হাসপাতালের ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ডা. মার্ক ভেরিল বলেন, ফুলভেস্ট্রান্ট এবং বিরোসিসলিব একসঙ্গে ব্যবহার করা হলে, এই রোগ নিয়ন্ত্রণের জন্য দ্বিগুন সময় পাওয়া যাবে, যা এক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি।  



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রাঙ্গামাটিতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে সেনাসদস্য নিহত

ঈদে সড়কেই প্রাণ গেল ২২৪ জনের

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন আদৌ শুরু হচ্ছে কি?

কুমিল্লায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৮

এখনো উচ্চ ঝুঁকি ২৪ ঘণ্টায় ১৭০৬ রোগী ভর্তি

পার্বত্য চট্টগ্রাম ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ

ডেঙ্গুর প্রজননস্থলে কতটা যেতে পারছেন মশক নিধন কর্মীরা?

বৈঠকের পর চামড়া বিক্রিতে সম্মত আড়তদাররা

জনগণকে সতর্ক পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকার পরামর্শ

ছিনতাইকারীর হাতে খুন হন কলেজছাত্র রাব্বী

শিক্ষিকাকে গণধর্ষণের পর হত্যা

শহিদুল আলমের মামলা স্থগিতই থাকবে

ডেঙ্গুর ভয়ে স্কুলে যাওয়া বন্ধ তবুও...

রক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট নিয়ে ঢামেকে সংঘর্ষ, আহত ২৫

টার্গেট রাজনৈতিক সম্পর্ক দৃঢ়করণ

ইউজিসি প্রফেসর হলেন ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ