হাইকোর্টের রুল

লতিফ সিদ্দিকীকে কেন জামিন দেয়া হবে না

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ৮ জুলাই ২০১৯, সোমবার
দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)-এর করা মামলায় সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে কেন জামিন দেয়া হবে না- তা জানতে চেয়ে হাইকোর্ট রুল জারি করেছেন। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও দুদকের আইনজীবীদের এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। গতকাল জামিনের বিষয়ে করা আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কেএম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। হাইকোর্টের এই আদেশের ফলে আপাতত কারাগারেই থাকতে হচ্ছে আওয়ামী লীগ সরকারের সাবেক এই মন্ত্রীকে। যিনি সর্বশেষ ২০১৪ সালে তৃতীয়বারের মতো টাঙ্গাইল-৪ আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন। এ দিন আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। লতিফ সিদ্দিকীর পক্ষে ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন। অন্যদিকে দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম ও উমর ফারুক।
এর আগে, বগুড়ায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলায় সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর জামিন চেয়ে করা আবেদনের শুনানি শেষ হয়। গত ২০ জুন বগুড়া সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে আদালত তার জামিন বাতিল করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। তবে তার আইনজীবী হাইকোর্টের জামিন আবেদনে তিনি হৃদরোগ, পাইলস, স্পাইনাল কর্ড, কিডনি, লিভারসহ নানারোগে আক্রান্ত উল্লেখ করে উন্নত চিকিৎসার আবেদন করেন। এরপর জেল কর্তৃপক্ষ তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এর আগে গত ৩০শে জুন স্ত্রী লায়লা সিদ্দিকী হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন। গতকাল সেই আবেদনের শুনানি শেষ হয়। মামলার এজাহার অনুযায়ী দেখা যায়, ২০১৭ সালের ১৭ই অক্টোবর দুদকের সহকারী পরিচালক মো. আমিনুল ইসলাম লতিফ সিদ্দিকী ও বেগম জাহানারা রশিদকে আসামি করে আদমদীঘি থানায় মামলা করেন। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয় লতিফ সিদ্দিকী মন্ত্রী থাকাকালে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার জন্য বগুড়া আদমদীঘি উপজেলাধীন দরিয়ারপুর মৌজার সুরুজমল আগরওয়ালা (রানীনগর ক্রয় কেন্দ্র) বিলুপ্ত বাংলাদেশ জুট করপোরেশনের (বিজেসি) ২.৩৮ একর জমি দরপত্র বিজ্ঞপ্তি ছাড়াই বে-আইনিভাবে জনৈকা বেগম জাহানারা রশিদের নিকট ৬৪,৬৩,৭৯৫/১১ টাকার সম্পদ ২৩,৯৪,৭৭৪/ টাকায় বিক্রয় করার নির্দেশ দেন। এতে সরকারের ৪০,৬৯,০২১/১১ টাকার আর্থিক ক্ষতি হয়। বিষয়টি তদন্তে প্রমাণিত হলে দুদকের সহকারী পরিচালক মামলাটি দায়ের করেন। এরপর মামলার বাদী নিজেই মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা নিযুক্ত হয়ে চলতি বছরের ১৮ই ফেব্রুয়ারি আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। গত ৩০শে জুন লায়লা সিদ্দিকী হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হচ্ছে

ব্যবস্থা চান বিশিষ্টজনরা

কেলেঙ্কারি-জালিয়াতিতে ডুবছে ২২ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান

ত্রাণ-আশ্রয়ের জন্য ছুটছে মানুষ

ডেঙ্গু রোগীদের ৮০ ভাগই শিশু

ঢাকায় ডেঙ্গু পরিস্থিতি উদ্বেগজনক: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

‘জনগণকে নিয়ে গণঅভ্যুত্থান ঘটাতে হবে’

৪৮ ঘণ্টার মধ্যে বিএসটিআই পরিচালকের অপসারণ দাবি

ছেলেধরা সন্দেহে তিন জনকে পিটিয়ে হত্যা

রংপুর-৩ সদর শূন্য আসন নিয়ে আলোচনার ঝড়

পশ্চিমবঙ্গেও চালু হলো এনআরসি!

পর্নোগ্রাফি ও ব্ল্যাকমেইল নেশা সিলেটের এহিয়ার

গণপিটুনিতে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে

রাঘববোয়ালদের নিয়ে কাজ করতে সমস্যা হয়

মাদ্রাসাছাত্রীকে ইজিবাইক থেকে নামিয়ে ধর্ষণের পর হত্যা

ভারতের কৌশল ধ্বংস করছে সার্ককে