নিকট আত্মীয়দের গুরুত্বপূর্ণ পদে বসালেন মায়াবতী

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৪ জুন ২০১৯, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:০২
বহুজন সমাজ পার্টির  (বিএসপি) প্রধান মায়াবর্তী তার দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে বসালেন নিকট আত্মীয়দের। এর মধ্যে রয়েছেন তার ভাই আনন্দ কুমার, ভাতিজা আকাশ আনন্দ। রোববার তিনি আনন্দ কুমারকে দলের জাতীয় পর্যায়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং ভাতিজা আকাশকে জাতীয় পর্যায়ের সমন্বয়কারী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। দলের সিনিয়র এক নেতাকে উদ্ধৃত করে এ খবর দিয়েছে মুম্বই মিরর।

এতে বলা হয়েছে, তিনি বিএসপি নেতা রামজি গৌতমকে দলের জাতীয় সমন্বয়কারী হিসেবেও নিয়োগ দিয়েছেন। এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে রোববার লক্ষেèৗতে এক বৈঠকে। এতে যোগ দিয়েছিলেন দলের শীর্ষ স্থানীয় নীতিনির্ধারকরা। ওই বৈঠকে লোকসভায় দলের নেতা নির্বাচিত করা হয়েছে আমরোহা থেকে নির্বাচিত এমপি দানিশ আলিকে।
চিপ হুইপ নিয়োগ করা হয়েছে নাগিনা থেকে নির্বাচিত এমপি গিরিশ চন্দ্রকে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, ভাই আনন্দ কুমারের ছেলে আকাশ কুমারকে দলে বড় পদে বসানোর মধ্য দিয়ে দলের ভিতরে আনন্দ কুমারের প্রভাব বৃদ্ধি হিসেবে দেখা হচ্ছে। ২৪ বছর বয়সী আকাশ এখন নিয়মিত বিএসপির অফিসিয়াল কাজকর্মে যোগ দেন। তাকে ২০১৭ সবালে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন মায়াবতী। তখন মায়াবতী বলেছিলেন, এমবিএ সম্পন্ন করে লন্ডন থেকে দেশে ফিরেছে আকাশ। দলের বিভিন্ন বিষয়ে সে দেখাশোনা করবে।

২০১৭ সালের মে মাসে রাজনীতিতে আকাশ কুমারের প্রকাশ্যে অভিষেক ঘটে। ওই সময় তিনি মায়াবতীর সঙ্গী হয়েছিলেন সাহারানপুরে। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে মায়াবতী ও পিতা আনন্দ কুমারের সঙ্গে মিরাটে এক জনসভায় একই মঞ্চে দেখা যায় তাকে। এ বছর লোকসভা নির্বাচনের আগে সমাজবাদী পার্টির সঙ্গে জোট করে বিএসপি। এ সময় আকাশ কুমারকে খুব বেশি সক্রিয় দেখা যায়। মায়াবতীর পক্ষে যেসব টুইট করা হয় তার জন্য কৃতিত্ব দেয়া হয় তাকে।

নির্বাচনী র‌্যালিগুলোতে ফুফু মায়াবতীর সঙ্গে তাকে দেখা গেছে। ১৬ই এপ্রিল নির্বাচন কমিশন আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে মায়াবতীকে ৪৮ ঘন্টার জন্য প্রচারণায় নিষিদ্ধ করে। ওই সময় এসপি দলের প্রধান অখিলেশ যাদব ও আরএলডি প্রধান অজিত সিংয়ের সঙ্গে আগ্রার জনসভায় বক্তব্য রাখেন আকাশ কুমার।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রংপুরেই এরশাদের সমাধি

লক্ষাধিক বিও অ্যাকাউন্ট বন্ধ

যে কারণে পুঁজিবাজারে পতন থামছে না

মিন্নি গ্রেপ্তার

হাসপাতালে হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীদের ভিড়

ছুরি নিয়ে কীভাবে গেল তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে

সব আদালতে নিরাপত্তা বাড়ানো হবে

ঘাতকের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি, মামলা ডিবিতে

উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে উপজেলা পর্যায়ে কারিগরি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হচ্ছে

বাসর হলো না নবদম্পতির

১১ কোম্পানির দুধে সিসা ও ক্যাডমিয়াম

চীনা ডেমু ট্রেন আর কেনা হবে না

বিচারকদের নিরাপত্তা চেয়ে রিট

আসাদকে পাল্টা জবাব আরিফের

৩ মাস পর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন শুরু

বাঁচানো গেল না সার্জেন্ট কিবরিয়াকে