আশুলিয়ায় তিন নারীর লাশ উদ্ধার

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, সাভার থেকে | ২৩ জুন ২০১৯, রোববার
সাভারের আশুলিয়ায় পৃথক স্থান থেকে তিন নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বিকালে আশুলিয়ার কুটুরিয়া, শুক্রবার রাতে উপজেলার শিমুলিয়া ইউনিয়নের জিরানী পুকুরপাড় ও ইয়ারপুর ইউনিয়নের ইউসুফ মার্কেট এলাকা থেকে লাশ তিনটি উদ্ধার করা হয়। এরা হলেন- শাহিদা আক্তার (২২), রুবি আক্তার (৩০) এবং জান্নাতি বেগম (১৯)। আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এমদাদ হোসেন জানান, গতকাল বিকালে আশুলিয়ার কুটুরিয়া এলাকার মো. ফারুকের ভাড়া বাড়ির একটি কক্ষে বাঁশের আড়ার সঙ্গে শাহিদা আক্তারের (২২) ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় প্রতিবেশীরা। বিষয়টি থানায় ফোন করে জানালে আমরা ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহটি উদ্ধার করি। তিনি আরো বলেন, নিহত শাহিদা আক্তার টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর থানার বাজোয়ারটেক গ্রামের মো. শাহিনুরের স্ত্রী। সে কুটুরিয়া এলাকায় স্বামীর সঙ্গে ভাড়া থেকে আগে তৈরি পোশাক কারখানায় চাকরি করলেও গত কয়েক মাস ধরে বাসায় ছিলেন। এদিকে থানা পুলিশ জানায়, রাতে ছুটি শেষে রুবির ছেলে মাদরাসা থেকে বাসায় ফিরে মাকে ডাকাডাকি করতে থাকে সাড়া শব্দ না পেয়ে একপর্যায়ে জানালা দিয়ে ঘরের ভেতরে আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত অবস্থায় মাকে দেখতে পায়।
এ সময় সে চিৎকার করলে প্রতিবেশীরা এসে বিষয়টি থানায় জানায়। খবর পেয়ে আশুলিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহটি উদ্ধার করে পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করেন। নিহত রুবি আক্তার ঢাকার ধামরাই উপজেলার চন্ডিশ্বর গ্রামের সোনা মিয়ার মেয়ে। সে স্বামী-সন্তান নিয়ে আশুলিয়ার জিরানী পুকুরপাড় এলাকায় ভাড়া থেকে ডিইপিজেড পুরাতন জোনের লেনী ফ্যাশনে চাকরি করতো বলে জানিয়েছে পুলিশ। অন্যদিকে শুক্রবার রাতে আশুলিয়ার বেরন এলাকার নারী ও শিশু স্বাস্থ্য হাসপাতাল থেকে জান্নাতি বেগম (১৯) নামে এক নারী শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করেছে আশুলিয়া থানা পুলিশ। আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. জলিল জানান, শুক্রবার রাতে আশুলিয়ার ইয়ারপুর ইউনিয়নের ইউসুফ মার্কেট এলাকায় ইদ্রিস সরকারের ভাড়া বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে নারী শ্রমিক জান্নাতি বেগম। এ সময় তার স্বামী বাসায় ফিরে প্রতিবেশীদের সহায়তায় উদ্ধার করে স্থানীয় নারী ও শিশু স্বাস্থ্য হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি আরো বলেন, নিহত জান্নাতি বেগম রংপুর জেলার বদরগঞ্জ থানার সন্তোষপুর ইয়া মোল্লাপাড়া গ্রামের বেলাল হোসেনের মেয়ে। সে স্বামী শফিকুলের সঙ্গে ভাড়া বাসায় থেকে আশুলিয়ায় একটি পোশাক কারখানায় কাজ করতো। নিহতের পরিবারের কোনো অভিযোগ না থাকায় মৃতদেহটি ময়নাতদন্ত ছাড়াই স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রংপুরেই এরশাদের সমাধি

লক্ষাধিক বিও অ্যাকাউন্ট বন্ধ

যে কারণে পুঁজিবাজারে পতন থামছে না

মিন্নি গ্রেপ্তার

হাসপাতালে হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীদের ভিড়

ছুরি নিয়ে কীভাবে গেল তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে

সব আদালতে নিরাপত্তা বাড়ানো হবে

ঘাতকের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি, মামলা ডিবিতে

উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে উপজেলা পর্যায়ে কারিগরি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হচ্ছে

বাসর হলো না নবদম্পতির

১১ কোম্পানির দুধে সিসা ও ক্যাডমিয়াম

চীনা ডেমু ট্রেন আর কেনা হবে না

বিচারকদের নিরাপত্তা চেয়ে রিট

আসাদকে পাল্টা জবাব আরিফের

৩ মাস পর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন শুরু

বাঁচানো গেল না সার্জেন্ট কিবরিয়াকে