যশোরে সড়কে ঝরলো দুই স্কুলছাত্রের প্রাণ

প্রথম পাতা

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি | ২১ জুন ২০১৯, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৫৬
মণিরামপুরে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী বাসের (হানিফ পরিবহন) চাপায় আশিকুর রহমান ও আল-আমিন নামে মেধাবী দুই স্কুল ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে যশোর-চুকনগর সড়কের বিজয়রামপুর খইতলা মোড়ে দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিহত আশিকুর রহমান উপজেলার ধলিগাতী গ্রামের স্কুল শিক্ষক খাইরুল বাসারের ছেলে। আর আল-আমিন জামলা গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে। তারা দুই জনই উপজেলার ধলিগাতী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র।

এদিকে, দুর্ঘটনায় দুই স্কুলছাত্র নিহতের ঘটনার প্রতিবাদে সহপাঠীরাসহ এলাকাবাসী যশোর-চুকনগর সড়কের সুন্দলপুর বাজারে গাছের গুঁড়ি ফেলে অবরোধ করে। প্রত্যক্ষদর্শী ও স্বজনরা জানান, গতকাল সকালে মণিরামপুর বাজারের একটি কোচিং সেন্টার থেকে প্রাইভেট পড়ে এক সাইকেলে চড়ে বাড়ি ফিরছিল আশিকুর রহমান ও আল-আমীন। আটটার দিকে তারা সড়কের বিজয়রামপুর খইতলা মোড়ে পৌঁছুলে ঢাকাগামী হানিফ পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাস তাদের চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়।
স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আশিকুরকে মৃত ঘোষণা করেন। গুরুতর আহত আল-আমিনকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আশরাফুর রহমান বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই আশিকুরের মৃত্যু হয়েছে। আহত আল-আমিনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে যশোর সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। সদর হাসপাতালে পৌঁছানো মাত্রই আল-আমিনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে।
ধলিগাতী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দীলিপ কুমার পাল বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত আশিকুর রহমান ও আল-আমিন আমার বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের দশম শ্রেণির ছাত্র। তারা দুইজনে শ্রেণির ফার্স্ট ও সেকেন্ড বয় এবং গোল্ডেন জিপিএ-৫ পাওয়ার মতো মেধাবী ছাত্র। তাদেরকে হারিয়ে আমরা শোকাহত।

এদিকে, দুর্ঘটনায় দুই স্কুলছাত্র নিহতের ঘটনার প্রতিবাদে ও চালক-হেলপারের আটকের দাবিতে সকাল নয়টা থেকে সহপাঠীরাসহ এলাকাবাসী যশোর-চুকনগর সড়কের সুন্দলপুর বাজারে গাছের গুঁড়ি ফেলে অবরোধ করে। এ সময় রাস্তার দুই পাশে যানবাহনের দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়। খবর পেয়ে বেলা ১০টার দিকে থানার ওসি ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করে। পুলিশ দেখে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে আন্দোলনকারীরা। পরে ওসির আশ্বাসে রাস্তা থেকে গুঁড়ি সরিয়ে ফেলা হয়।
মণিরামপুর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, দুর্ঘটনায় দুই ছাত্র নিহত হওয়ার পর শিক্ষার্থীরাসহ এলাকাবাসী গাছের গুঁড়ি ফেলে সড়ক অবরোধ করে। ফলে কিছু সময়ের জন্য যান চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে জড়িতদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বানভাসি মানুষের দুর্ভোগ বাড়ছে

নৈরাজ্য

১৯ জনকে গণপিটুনি নিহত ৩

মার্কিন দূতাবাসের দুরভিসন্ধি

মিন্নির জামিন মেলেনি

পুঁজিবাজারে একদিনেই ৫ হাজার কোটি টাকার মূলধন হাওয়া

মশায় অতিষ্ঠ মানুষ ঘরে ঘরে ডেঙ্গু আতঙ্ক

অর্থনৈতিক কূটনীতির ওপর গুরুত্ব দিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের আন্দোলনে অচল ঢাবি

যে কারণে সিলেটে মহিলা কাউন্সিলর লাকীর ওপর হামলা

৬ ঘণ্টা বিদ্যুৎ ও পানিবিহীন শাহজালাল বিমানবন্দর

সাত দিনের মধ্যে প্রথম কিস্তি পরিশোধের নির্দেশ

এ যেন খোঁড়াখুঁড়ির নগরী

বৃষ্টি হলেই জলজট

শিমুল বিশ্বাসের পাসপোর্ট প্রদানের নির্দেশ হাইকোর্টের

এক সিগন্যালেই ৬৭ মিনিট