বিশ্বকাপে দল পরিচিতি

বিশ্বজয়ের স্বপ্ন টাইগারদের

খেলা

আরিফ বিন আজিজ | ২৬ মে ২০১৯, রোববার
শুরুটা ১৯৯৯ বিশ্বকাপ দিয়ে। এরপর ২০০৭ সালে সুপার এইট আর ২০১৫ তে কোয়ার্টার ফাইনাল। বিশ্ব ক্রিকেটে আলোড়ন তোলা টাইগাররা এবার ইংল্যান্ডে পা রাখে আরো বড় স্বপ্ন নিয়ে। মাশরাফি বিন মুর্তজার অধিনায়কত্বে ট্রফি নিয়ে বাড়ি ফিলতে চায় তারা। ক্রিকেট বোদ্ধারাও বলছেন, শিরোপা জয়ের সামর্থ্য আছে বাংলাদেশের।
ব্যাটিং নির্ভরতা
তিন বিশ্বকাপ খেলার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে মূল ভরসা। পরিসংখ্যান বিচারে তামিম গত বছরের অন্যতম সেরা ওপেনার। ১২ ম্যাচে ৭৬.৩৩ গড়ে ৬৪০ রান করেন তিনি। ২ সেঞ্চুরির সঙ্গে ৬ হাফসেঞ্চুরি। মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মুশফিক গত দু-তিন বছর ধরেই বাংলাদেশের নির্ভরতার প্রতীক। গত বছর ৫৫.০০ গড়ে ১৯ ম্যাচে ৭৭০ রান করেন তিনি। অলরাউন্ডার সাকিব গত বছর ৩৮ গড়ে রান তুলেছেন। সর্বশেষথ ত্রিদেশীয় সিরিজে ৩ ম্যাচে ২ হাফসেঞ্চুরি হাঁকানো সাকিব ৩ নম্বর পজিশনে স্বস্তি দিচ্ছেন বাংলাদেশকে। এ তিন জনের সঙ্গে রয়েছেন অভিজ্ঞ মাহমুদুল্লাহ। গত বিশ্বকাপে তিনি ব্যাক-টু-ব্যাক সেঞ্চুরি হাঁকান। এছাড়া ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয়েও অবদান ছিল মাহমুদুল্লাহর। ওপেনিংয়ে তামিমের সঙ্গী সৌম্য সরকার রয়েছেন তুখোড় ফর্মে। ত্রিদেশীয় সিরিজে প্রতিটি ম্যাচেই রান পেয়েছেন এ বাঁহাতি। লোয়ার মিডল অর্ডারে ঝড় তুলতে রয়েছেন সাব্বির রহমান ও সাইফুদ্দিন। বাংলাদেশের কোচ স্টিভ রোডস বলেছেন, ইংলিশ কন্ডিশনে বড় ব্যাটিং লাইনআপ খেলাবেন তিনি।
বোলিংয়ে ভরসা যারা
মোস্তাফিজুর রহমান। প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছেন ‘কাটার মাস্টার’ খ্যাত বাঁহাতি এ পেসার। রঙিন পোশাকে বাংলাদেশের সেরা বোলার তিনি। ৪৬ ওয়ানডেতে ২২.২৭ গড়ে নিয়েছেন ৮৩ উইকেট। ২৩ বছর বয়সী মোস্তাফিজ জ্বলে উঠলে প্রতিপক্ষের কপালে শনি আছে। মোস্তাফিজের সঙ্গে অভিজ্ঞ মাশরাফি। ২০৯ ওয়ানডেতে ২৬৫ উইকেট নেয়া মাশরাফি দারুণ ইকোনমি রেট বজায় রেখে বোলিং করতে পারেন। ব্রেক-থ্রো দিতেও পারদর্শী তিনি। গত বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সেরা বোলার রুবেল হোসেনও রয়েছেন দলে। এ তিনজনের সঙ্গে নেয়া হয়েছে আবু জায়েদ রাহীকে। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজে ৫ উইকেট নিয়ে রাহী তার সামর্থ্য দেখিয়েছেন। বলে সুইং থাকায় ইংলিশ কন্ডিশনে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারেন রাহী। অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন মিডল ওভারে অন্যতম সেরা বোলার। তবে টাইগারদের সাফল্য অনেকটাই নির্ভর করবে স্পিনারদের পারফরম্যান্সের ওপর। দলে বিশেষজ্ঞ স্পিনার হিসেবে রয়েছেন বাঁহাতি স্পিনার সাকিব আল হাসান ও অফস্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ। সাকিব বড় মঞ্চে পরীক্ষিত তারকা। প্রথমবার বিশ্বকাপ খেলতে আসা মিরাজ আত্মপ্রত্যয়ী বোলার। আয়ারল্যান্ডে পেস সহায়ক কন্ডিশনেও মিরাজ রান দিয়েছেন হিসাব করে।
প্রত্যাশা ও বাস্তবতা
বেশ কয়েকজন সাবেক ক্রিকেটার বলেছেন, এবার সেমিফাইনাল খেলার সম্ভাবনা আছে বাংলাদেশের। তবে বাংলাদেশের ক্রিকেটপাগল মানুষ অধিনায়ক মাশরাফির হাতে ট্রফি দেখতে চায়। দলের অন্যতম সেরা তারকা সাকিব আল হাসানসহ অন্যদের চোখেও শিরোপা জয়ের স্বপ্ন। স্বপ্ন বাস্তব করতে হলে ধারাবাহিক খেলতে হবে টাইগারদের। রাউন্ড রবিন লীগে বাংলাদেশের ম্যাচসূচি বেশ কঠিন। প্রথম দিকে দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড। আর শেষের দুটো ম্যাচ ভারত আর পাকিস্তানের বিপক্ষে। এই পাঁচ ম্যাচের ওপর অনেকটাই নির্ভর করবে টাইগাররে সেমিফাইনাল ভাগ্য। আর আফগানিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো অপেক্ষাকৃত সহজ প্রতিপক্ষের বিপক্ষে অবশ্যই জিততে হবে মাশরাফিদের।
৯ দলের বিপক্ষে বিশ্বকাপ পরিসংখ্যান
১৯৯৯ সালে নিজেদের প্রথম বিশ্বকাপেই বাংলাদেশ হারায় ক্রিকেটের অন্যতম পরাশক্তি পাকিস্তানকে। ২০০৩ সালের আসরে টাইগারদের বড় কোনো প্রাপ্তি ছিল না। তবে ২০০৭ সালের গ্রুপ পর্বে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারতকে হারিয়ে সুপার এইটে জায়গা করে নেয় বাংলাদেশ। সেখানে টাইগারদের শিকার হয় দক্ষিণ আফ্রিকা। ২০১১ সালে ঘরের মাঠে আয়োজিত আসরে ইংল্যান্ডকে পরাজিত করে বাংলাদেশ। গত আসরেও এই ইংল্যান্ডকে হারিয়েই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে মাশরাফির দল। বিশ্বকাপে কেবল অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড আর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় পাওয়া বাকি বাংলাদেশের। নিউজিল্যান্ডের (৪ ম্যাচ) ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে (৩) প্রতিটিতেই হার মানে তারা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৪ ম্যাচের ৩টিতে হার একটি পরিত্যক্ত হয়। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৩ ম্যাচে ২ হার দেখে বাংলাদেশ। একটি ম্যাচ কোনো ফল দেখেনি। তবে অস্ট্রেলিয়া বাদে বাকি তিন দলের বিপক্ষে টাইগারদের সাম্প্রতিক রেকর্ড বেশ ভালো।
স্কোয়াড
মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহীম, মোহাম্মদ মিঠুন, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মেহেদী হাসান মিরাজ, রুবেল হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান, আবু জায়েদ রাহী।
কোচ: স্টিভ রোডস (ইংল্যান্ড)
সেরা সাফল্য: কোয়ার্টার ফাইনাল ২০১৫
ম্যাচসূচি
তারিখ প্রতিপক্ষ ভেন্যু
২রা জুন দক্ষিণ আফ্রিকা ওভাল
৫ই জুন নিউজিল্যান্ড ওভাল
৮ই জুন ইংল্যান্ড কার্ডিফ
১১ই জুন শ্রীলঙ্কা ব্রিস্টল
১৭ই জুন ওয়েস্ট ইন্ডিজ অস্ট্রেলিয়া
২০শে জুন অস্ট্রেলিয়া নটিংহাম
২৪শে জুন আফগানিস্তান সাউদাম্পটন
২রা জুলাই ভারত বার্মিংহাম
৫ই জুলাই পাকিস্তান লর্ডস


এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

আটকের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিন রোহিঙ্গা যুবক নিহত

দেশব্যাপী ধর্মঘট ডেকেছেন শ্রীলঙ্কার চিকিৎসকরা

হামলায় ইরানের সম্পৃক্ততার প্রমাণ দেবে সৌদি আরব

‘এখন বিহারে শুটিং করছি’

ডি মারিয়ার জোড়া গোলে রিয়ালকে উড়িয়ে দিলো পিএসজি

ছাত্রদলের ভোট শুরু

সেই যুবলীগ নেতা গ্রেপ্তার

অভিযানে যুবলীগ নেতা খালেদের বাসায় যা পাওয়া গেল

পার্লামেন্ট স্থগিত নিয়ে রায় দেয়ার ক্ষমতা নেই আদালতের: সরকার পক্ষ

কী হবে যুবলীগের ট্রাইব্যুনালে?

দেশের অর্থনীতিতে বেক্সিমকোর অবদান অনস্বীকার্য: টিআইবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা

শেখ হাসিনা নরেন্দ্র মোদি বৈঠকে এনআরসি নিয়ে আলোচনা হবে

অর্থশাস্ত্রকে সামাজিক বিজ্ঞানে পরিণত করতে হলে পুনর্বিন্যাস জরুরি

নারায়ণগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১, লাশ দাফনে বাধা

পিয়াজের দাম আর কত বাড়বে?