গাড়ি পাচ্ছেন সংসদের উপ-সচিবরা: বাজেট ৬ কোটি টাকা

শেষের পাতা

সংসদ রিপোর্টার | ২৪ মে ২০১৯, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:২৮
সরকারের অন্যান্য দপ্তরে দায়িত্ব পালনকারী উপ-সচিবদের মতো সার্বক্ষণিক সরকারি গাড়ির সুবিধা পাবেন সংসদ সচিবালয়ের উপ-সচিব পদমর্যাদার কর্মকর্তারাও। গতকাল সংসদ সচিবালয় কমিশনের বৈঠকে এ সংক্রান্ত প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বৈঠকে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ভাতা বৃদ্ধি, আগামী অর্থ বছরের বাজেট অনুমোদন ও কর্মকর্তা-কর্মচারী পদোন্নতির প্রস্তাব পাস হয়েছে। সংসদ সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন সংসদ কমিশনের চেয়ারম্যান স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। বৈঠকে কমিশনের সদস্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ও বিরোধী দলীয় নেতার পক্ষে উপনেতা রওশন এরশাদ এবং চিফ হুইপ নূর-ই আলম চৌধুরী লিটন উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের জাতীয় সংসদের জন্য উন্নয়ন ও অনুন্নয়ন খাতে মোট ৩২৮ কোটি ২২ লাখ টাকার বাজেট অনুমোদন দেয়া হয়। গত বছরের তুলনায় এ বাজেট ৯ দশমিক ৭১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এবারের বাজেটে উপ-সচিবদের গাড়ীর জন্য প্রায় ৬ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।
সংসদ সচিবালয়ের ২২ জন উপ-সচিব বা সমমর্যাদার কর্মকর্তা ওই প্রাধিকার পাবেন।

বৈঠক শেষে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী জানান, সরকারের উপসচিব ও তদুর্ধ্ব কর্মকর্তারা সরকারি গাড়ি ব্যবহারের সুবিধা পেলেও এতদিন সংসদের কর্মকর্তারা তা পেতেন না। সংসদ কমিশন প্রস্তাব অনুমোদন করায় এখন সেই সুবিধা পাবেন সংসদের নিজস্ব কর্মকর্তারাও। তবে সংসদ সচিবালয়ে প্রেষণে আসা কর্মকর্তাদের তাদের নিজস্ব মন্ত্রণালয় থেকে এই সুবিধা পাবেন। বর্তমানে সংসদ সচিবালয়ের নিজস্ব ২২ জন উপ-সচিব সংসদের গাড়ি বা গাড়ি কেনার জন্য সুদমুক্ত বিশেষ ঋণ পাবেন। এছাড়া বৈঠকে জাতীয় সংসদের ১৪ বছরের পুরনো পাজেরো জিপ গাড়ির জায়গায় নতুন ১০টি পাজেরো গাড়ি কেনার প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে জানিয়ে স্পিকার বলেন, সংসদ সচিবালয়ে ১০টি জিপ গাড়ির অবস্থা খুবই খারাপ। ওই সকল গাড়ি মেরামতের যে খরচ হয়, তা অনেক বেশি। তাই নতুন করে ১০টি জিপ গাড়ি কেনার কথা বলা হয়েছে। সেটা চলতি ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের বাজেটের অব্যয়িত ১২ কোটি টাকা ও আগামী অর্থবছরের বাজেটে বরাদ্দকৃত ১০ কোটি টাকা দিয়ে কেনা হবে।

সংসদের কাজের গতি বাড়াতে গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগের কথা উল্লেখ করে ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী জানান, কমিশন বৈঠকে সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিভিন্ন ভাতার পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে। এরমধ্যে সাংবাৎসরিক কর্মচারীদের ভাতা ৪৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫১০ টাকা করা হয়েছে। সংসদীয় কমিটির বৈঠকের আপ্যায়ন খরচ ১০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২০০ টাকা করা হয়েছে। আর সংসদীয় কমিটির সভাপতির দপ্তরের আপ্যায়ন ভাতা ১২ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২০ টাকা করা হয়েছে। তিনি জানান, নতুন কয়েকটি পদ সৃষ্টির পাশাপাশি সংসদ সচিবালয়ে পদোন্নতি জট খোলা হয়েছে। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়োগ ও পদোন্নতি সংক্রান্ত প্রস্তাবগুলো অনুমোদন করা হয়েছে। এছাড়া সংসদ ভবনের নিরাপত্তা বৃদ্ধি, মেরামতসহ সংসদ ভবনের সার্বিক উন্নয়নের জন্য বেশ কিছু সুপারিশ করা হয়েছে বলেও তিনি জানান। উল্লেখ্য, সার্বভৌম প্রতিষ্ঠান জাতীয় সংসদের সংশ্লিষ্টদের বেতন-ভাতাসহ আনুষাঙ্গিক ব্যয় নির্বাহের জন্য সংসদ সচিবালয় কমিশন বৈঠকে প্রতি বছর বাজেট বরাদ্দ অনুমোদন দেয়া হয়। পরে তা মূল বাজেটে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। এছাড়া কমিশন বৈঠকে সংসদ সচিবালয়ের নতুন পদ সৃষ্টি, প্রকল্প প্রণয়নসহ বিভিন্ন নীতি নির্ধারণী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন