খালেদা জিয়ার আদালত স্থানান্তরের প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহারে নোটিশ

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ২১ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৪:৫৭ | সর্বশেষ আপডেট: ৫:১৩
বিএনপি চেয়ারপাসন খালেদা জিয়ার বিচারে কেরানীগঞ্জের  কেন্দ্রীয় কারাগারের ভেতরে আদালত স্থানান্তর করা প্রসঙ্গে ১২ মে’র প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার চেয়ে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছে আইনজীবী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল । আজ মঙ্গলবার ডাক, রেজিস্ট্রি, ই-মেইল ও ফ্যাক্সযোগে খালেদা জিয়ার পক্ষে তিনি  আইন সচিবকে এই নোটিশ পাঠিয়েছেন। একইসঙ্গে ওই প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার করতে আইন মন্ত্রণালয় সচিবকে ২৪ ঘণ্টা সময় দিয়েছেন তিনি। অন্যথায়, নোটিশের জবাব না পেলে প্রয়োজনীয় আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করার কথা জানিয়েছেন।

নোটিশের বিষয়ে কায়সার কামাল বলেন, গত ১২ই মে আইন মন্ত্রণালয় থেকে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। ওই প্রজ্ঞাপন অনুসারে খালেদা জিয়ার মামলা শুনানির জন্য পুরানো কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে আদালত (বিশেষ জজ আদালত-৯) স্থানান্তর করে কেরানীগঞ্জে নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সেই প্রজ্ঞাপন খালেদা ও আমরা বেআইনি বলে মনে করি।

কারণ, সংবিধানের ৩৫ অনুচ্ছেদে স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে, যে কোনো বিচার হতে হবে উন্মুক্তভাবে। কারাগারের একটি কক্ষে উন্মুক্তভাবে বিচার হতে পারে না।
ফলে এই প্রজ্ঞাপন সংবিধানবিরোধী। তিনি বলেন, কোথায় কোথায় কারাগার স্থানান্তরিত হতে পারে তা ফৌজদারী কার্যবিধি আইনে দেয়া আছে। ফৌজদারী কার্যবিধি আইনে কোথাও উল্লেখ নেই যে, কারাগারের মধ্যে আদালত স্থাপন হতে পারে। সংবিধান ও ফৌজদারী আইনের বিরুদ্ধে সরকার অবস্থান নিয়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

অস্ট্রেলিয়ার রানের পাহাড়

দুই দিনেই বিকল্প সড়কগুলো বেহাল

রাজীবের দুই ভাইকে ৫০ লাখ টাকা দেয়ার নির্দেশ

যশোরে সড়কে ঝরলো দুই স্কুলছাত্রের প্রাণ

‘আর কারও সঙ্গে যেন এমনটি না হয়’

প্রধানমন্ত্রীর চীন সফরের প্রস্তুতি

গুলি করে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন ভূপাতিত করলো ইরান

রোহিঙ্গা সমস্যার জন্য জাতিসংঘও দায়ী: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

জামালপুর জোনে কৃষিভিত্তিক শিল্প স্থাপনের আহ্বান সালমান এফ রহমানের

বগুড়ায় দুদকের মামলায় লতিফ সিদ্দিকী কারাগারে

সাবেক এমপি রানার জামিন স্থগিত

‘ডপকি’ শারমিনে যে ক্ষোভ সিলেটে

এশিয়া-প্যাসিফিকে দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির দেশ বাংলাদেশ: এডিবি

তুরিন আফরোজের বিরুদ্ধে মায়ের সংবাদ সম্মেলন

রাজকীয় আয়োজনে নুসরাতের বিয়ে

বাণিজ্য ঘাটতি ছাড়ালো ১ লাখ কোটি টাকা