ঈদে আরো বড় পরিসরে ‘উইন্ড অব চেঞ্জ’

বিনোদন

ফয়সাল রাব্বিকীন | ২০ মে ২০১৯, সোমবার
‘উইন্ড অব চেঞ্জ’। এটি এখন আর শুধুমাত্র নিছক সংগীত বিষয়ক অনুষ্ঠান নয়। এটি বাংলাদেশের সংগীতের সঙ্গে বিশ্ব সংগীতের একটি মিলনমেলা।  বাংলা সংগীতকে বিশ্বের কাছে তুলে ধরার একটি অনবদ্য প্রয়াস। আর গানকে ভালোবেসে এ কাজটি যিনি গত কয়েক বছর ধরে করে যাচ্ছেন তিনি হলেন দেশের একমাত্র সংগীতভিত্তিক চ্যানেল গানবাংলার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক কৌশিক হোসেন তাপস। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই সুরকার শুরু থেকেই সংগীতকে ভালোবেসে কাজ করে যাচ্ছেন সংগীত নিয়ে। আর গানবাংলায় ‘উইন্ড অব চেঞ্জ’ শুরুর মধ্যে দিয়ে দেশীয়র সঙ্গে বিদেশি সংগীতের অসাধারণ একটি সংমিশ্রণ ঘটিয়েছেন। ‘উইন্ড অব চেঞ্জ’ শুধু এখন বাংলাদেশে নয়, বিশ্বব্যাপীই পরিচিতি লাভ করেছে। আর এ আয়োজন সফল করতে তাপসকে যিনি ছায়ার মতো থেকে উৎসাহ যুগিয়েছেন তিনি হলেন তার স্ত্রী ফারজানা মুন্নী।
গানবাংলা চ্যানেলের চেয়ারম্যান তিনি। এদিকে আসছে ঈদ উপলক্ষে আবারো গানবাংলা চ্যানেলে আগের চাইতেও বড় পরিসরে অনুষ্ঠিত হবে ‘উইন্ড অব চেঞ্জ’। এরইমধ্যে সব প্রস্তুতি শেষ। বাংলাদেশ ও বিভিন্ন দেশের নামজাদা সব মিউজিশিয়ান ও শিল্পীরা অংশ নিয়েছেন এই আয়োজনে। এবারের আসর আগের চেয়ে অনেক পরিপক্ব। শিল্পী, মিউজিশিয়ান বাছাইয়ে অন্যরকম পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করা হয়েছে। বরাবরের মতো এবারের আসরের সব গানের সংগীত পরিচালনা করেছেন তাপস। এবারের আয়োজনে অংশ নেবেন বাংলাদেশ ও ভারতের ১২ জন শিল্পী। এফডিসিতে টানা ১০ দিন সেট তৈরি করে এর রেকর্ডিং হয়েছে। এবারের আসরের মাধ্যমে অনেক দিন পর ব্যান্ড তারকা হাসান ও আরফিন রুমি গান করেছেন। অংশ নেয়া অন্য শিল্পীদের মধ্যে আছেন শাহজাহান মুন্সী, বালাম, মিজান ও তন্ময় তানসেন। থাকছেন চলতি প্রজন্মের মাহতিম শাকিবও। গিটার লিজেন্ড ও ব্যান্ড তারকা আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি সম্মাননা জানিয়ে তার একটি জনপ্রিয় গান এবার গাইতে দেখা যাবে কৌশিক হোসেন তাপস, তন্ময় তানসেন, এলআরবির শামীমসহ কয়েকজনকে। অন্যদিকে ভারত থেকে অংশ নিয়েছেন কৈলাস খের, পাপন ও অদিতি সিং শর্মা। এবারের আসরে যুক্ত হয়েছেন বিশ্বের ২৭  দেশের  স্বনামধন্য যন্ত্রশিল্পীরা। এরমধ্যে রয়েছেন রন বাম্বলফুট, জার্মানির মার্কো মাইনম্যান, ভারতের আনন্দন শিবামনি, স্পেনের ড্যানিয়েল ক্যাসারেস, রোমানিয়ার অ্যামাডেস ইলেকট্রিক কোয়টের্টসহ অনেকে। তাপস এবারের আসর নিয়ে বলেন, আমরা প্রতি বছরই নিজেদের ছাড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি। ভিন্নমাত্রা আনার চেষ্টা করছি এ আয়োজনে। সেদিক থেকে এবার শিল্পী ও যন্ত্রশিল্পী নির্বাচনে আমরা আগে থেকেই পরিকল্পনা করেছিলাম। এবারের আয়োজনটি আগের সব আসরের চাইতে বড় পরিসরে করা হয়েছে। আর তা করতে গিয়ে আমাকে সবচাইতে বেশি সহযোগিতা ও উৎসাহ প্রদান করেছে আমার স্ত্রী ফারজানা মুন্নী। সে পাশে না থাকলে এ আয়োজন সফলভাবে সম্পন্ন করা কোনোভাবেই সম্ভব হতো না। এই সফলতার অন্যতম অংশীদার মুন্নী।  



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন