মোদীর হুঙ্কার: দেখি মমতা সভা করতে দেন কিনা

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৬ মে ২০১৯, বৃহস্পতিবার
পশ্চিমবঙ্গের আইনশৃংখলা পরিস্থিতির দিকে নজর রেখে নির্বাচনী প্রচারের সময়সীমা আজ রাত ১০টাতেই শেষ করে দেওয়ার নির্দেশের পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেসের মধ্যে হুঙ্কার ও পাল্টা হুঙ্কার চলছে। মাত্র দুদিন আগেই তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মোদীর উদ্দেশ্যে ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে সব বুঝে নেবার হুঙ্কার দিয়েছিলেন। আর আজ উত্তর প্রদেশের প্রচার সভা থেকে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী হুঙ্কার দিয়ে বলেছেন, দেখি দিদি আজ আমাকে দমদমে সভা করতে দেন কিনা। গত মঙ্গলবার বিজেপি সভাপতি অমিত শাহর রোড শো ঘিরে যে গন্ডোগোল দেখা দিয়েছিল তাতে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙ্গার মতো ঘটনাও ঘটেছে। এই নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে প্রবল উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। এর পরেই নির্বাচন কমিশন নির্বাচনী প্রচারের সময়সীমা একদিন কমিয়ে দেওয়ায় তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী এই সিদ্ধান্তকে বিজেপির ষড়যন্ত্র বলে অভিহিত করেছেন। মমতার অভিযোগকে সমর্থন জানিয়েছেন বহুজন সমাজ পার্টির মায়াবতী সহ বিরোধী নেতারা। এর পরেই মোদী উত্তর প্রদেশ থেকেই মমতার বিরুদ্ধে আক্রমণ শুরু করেছেন। আজই মোদীর দক্ষিণ ২৪ পরগণার মধুরাপুর এবং উত্তর ২৪ পরগণার দমদমে সভা করার কথা রয়েছে। এদিকে মমতারও চারটি সভা ও র‌্যালি করার কথা রয়েছে। এই সভাগুলি থেকে পরস্পরকে আক্রমণ যে নতুন মাত্রা পাবে তা সকলেই মনে করছেন। এদিন মোদী অভিযোগ করেছেন, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঠাকুরনগর, কোচবিহারে তৃণমূলের গুন্ডারা হামলা চালিয়েছে। মমতার জমানায় পশ্চিমবঙ্গে অরাজকতা তৈরি হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। মঙ্গলবার অমিত শাহের রোড শোয়ে ব্যাপক উত্তেজনার পিছনে মমতা সরকারের ইন্ধন রয়েছে বলে নরেন্দ্র মোদীর অভিযোগ। তৃণমূলের গুন্ডারাই বিদ্যাসাগরের আবক্ষ মূর্তি ভেঙেছে বলে দাবি করেছেন মোদী। পাশাপাশি নরেন্দ্র মোদী প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তাদের সরকার যথাস্থানেই পঞ্চধাতুর মূর্তি পুনঃপ্রতিষ্ঠা করবে। মোদী অভিযোগ করেছেন, মমতাদিদি  তাকে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে মানেন না। হিন্দুস্তানের  প্রধানমন্ত্রীকে না মানলেও, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে মানেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতার পাশে মায়াবর্তীর সমর্থনের প্রশ্নে মোদী এদিন কটাক্ষ করে বলেছেন, বহেনজি কুর্সির চিন্তা করে মমতার পাশে দাঁড়িয়েছেন। তিনি ভালভাবেই জানেন, উত্তর প্রদেশ, বিহার-সহ পূর্বাঞ্চলের লোকদের বহিরাগত বলে রাজনীতি করছে মমতার সরকার। বহুজন সমাজ পার্টি প্রধান মায়াবতী মমতার প্রতি সমর্থন জানিয়ে বৃহস্পতিবার বলেছেন, একটা বিষয় স্পষ্ট অমিত শাহ ও নরেন্দ্র মোদী পরিকল্পনা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করেছেন। দেশের পক্ষে এটি একটি মারাত্মক প্রবণতা। প্রধানমন্ত্রীকে এ জিনিস মানায় না। মমতার সুরে সুৃর মিলিয়ে মায়াবতী বলেছেন, নির্বাচন কমিশন কেন্দ্রের চাপে কাজ করছে। আজ রাত দশটার পর থেকে প্রচার বন্ধ করেছে কমিশন। কারণ এদিন পশ্চিমবঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর দুটি সভা রয়েছে। প্রচার যদি বন্ধ করার প্রয়োজন ছিল তাহলে তা বৃহস্পতিবার সকাল থেকে করা হল না কেন বলে তিনিও প্রশ্ন তুলেছেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বিজেপি সুনামি

আড়াইহাজারে ব্যবসায়ীকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

প্রিয়াংকা গান্ধীর ইমেজ ব্যর্থ হয়েছে উত্তর প্রদেশে

হাইকোর্টকে হাইকোর্ট দেখাচ্ছেন? নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষকে আদালত

মোদিকে ‘বিজয়ী’ অভিনন্দন সুষমা স্বরাজের

মাটি কাটতে গিয়ে মিললো কষ্টি পাথরের মূর্তি, তুলকালাম

অন্ধ-অচল শতবর্ষী নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ, কিশোর গ্রেপ্তার

পশ্চিমবঙ্গে উল্কার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে বিজেপি

‘কমপক্ষে ৩৫০ আসন নিয়ে ক্ষমতায় ফিরবে বিজেপি’

গুরুদাসপুরে এগিয়ে অভিনেতা সানি দেওল

মমতা তখন পিয়ানো বাজাচ্ছেন

৩ মাস ২৩ দিন পর ফিরে এলেন নাটোরের নিখোঁজ যুবলীগ নেতা মিলন

এনডিএর বিজয়ের খবরে ভারতে শেয়ার বাজারে রেকর্ড

রায়বেরেলিতে এগিয়ে সোনিয়া গান্ধী

আবারও একক সংখ্যাগরিষ্ঠ বিজেপি!

টেকনাফে ‘বন্ধুকযুদ্ধে’ ইয়াবা কারবারি নিহত