নলডাঙ্গায় মা ও প্রতিবন্ধী শিশুর মরদেহ উদ্ধার

বাংলারজমিন

নাটোর প্রতিনিধি: | ১৬ মে ২০১৯, বৃহস্পতিবার
নাটোরের নলডাঙ্গার বাঁশিলা গ্রামের এক ঘর থেকে মা শারমিন বেগম ও বাড়ির পাশের ডোবা থেকে ২ বছরের শিশু আব্দুল্লাহর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। দুর্বৃত্তরা শারমিনকে গলায় ওড়না প্যাঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে আর আব্দুল্লাহকে বাড়ির পাশের ডোবায় ফেলে যায়। উম্মে হালিমা আকতার শারমিনের স্বামী মাহমুদুল হাসান মুন্না ঢাকায় একটি গার্মেন্টসে চাকরিরত আছেন। নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়,  গত রাতে সেহ্‌রি খেতে উঠলে বাহির থেকে সব রুমের দরজা বন্ধ দেখে চিৎকার শুরু করে বাড়ির লোকজন। প্রতিবেশীরা চিৎকার শুনে বাড়ির গেট ও রুমের দরজা খুলে দেয়। পরে বাড়ির লোকজন শারমিনের রুমের দরজা খোলা পেয়ে ঘরে প্রবেশ করে শারমিনের গলায় ওড়না প্যাঁচানো অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। এ সময় ঘরের জিনিসপত্র মেঝেতে এলোমেলো অবস্থায় পড়ে ছিল। এরপরে তার ২ বছরের শিশু আব্দুল্লাহকে দেখতে না পেয়ে খোঁজ শুরু করে।
পরদিন সকালে তার মরদেহ বাড়ির পাশের ডোবায় ভাসতে দেখে তারা। তাদের ধারণা বাড়ির লোকজন ঘুমিয়ে গেলে প্রাচীর টপকে দুর্বৃত্তরা বাড়িতে প্রবেশ করে। বাড়ির কেউ যাতে ঘর থেকে বের হতে না পারে, সেজন্য বাইরে থেকে তারা দরজাগুলোতে শিকল লাগিয়ে দেয়। এ ব্যাপারে নলডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুর রহমান বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, গলায় ওড়না প্যাঁচিয়ে শারমিনকে হত্যা করে। এবং ছেলেকে পানিতে ফেলে হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে ও মামলার গভীর তদন্তে ঘটনার সত্যতা বেরিয়ে  আসবে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রংপুরেই এরশাদের সমাধি

লক্ষাধিক বিও অ্যাকাউন্ট বন্ধ

যে কারণে পুঁজিবাজারে পতন থামছে না

মিন্নি গ্রেপ্তার

হাসপাতালে হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীদের ভিড়

ছুরি নিয়ে কীভাবে গেল তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে

সব আদালতে নিরাপত্তা বাড়ানো হবে

ঘাতকের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি, মামলা ডিবিতে

উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে উপজেলা পর্যায়ে কারিগরি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হচ্ছে

বাসর হলো না নবদম্পতির

১১ কোম্পানির দুধে সিসা ও ক্যাডমিয়াম

চীনা ডেমু ট্রেন আর কেনা হবে না

বিচারকদের নিরাপত্তা চেয়ে রিট

আসাদকে পাল্টা জবাব আরিফের

৩ মাস পর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন শুরু

বাঁচানো গেল না সার্জেন্ট কিবরিয়াকে