নতুন মোড়কে চলছে ‘সুপ্রভাত’

শেষের পাতা

মারুফ কিবরিয়া | ২৫ এপ্রিল ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৩৯
বাসচাপায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরীর মৃত্যুর পর আন্দোলনের মুখে বন্ধ হয়ে যায় গাজীপুরা-সদরঘাট রুটে চলাচলকারী সুপ্রভাত পরিবহন। এক মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ থাকার পর ওই কোম্পানির বাস আবার সড়কে চলতে শুরু করেছে। তবে সুপ্রভাত নয়, চলছে আকাশ এন্টারপ্রাইজ নামে। গত কয়েকদিন ধরেই নতুন নতুন মোড়কে চলাচল করছে বাসটি। রাজধানীর রামপুরা, বাড্ডা, নতুনবাজার, খিলক্ষেত, উত্তরা ও আব্দুল্লাহপুরসহ বেশ কয়েকটি বাস স্টপেজে  আকাশ এন্টারপ্রাইজ নামের ওই বাসটি চলাচল করতে দেখা গেছে। এই বাস কিছুদিন আগেও ‘আকাশ-সুপ্রভাত’ নামে চলাচল করতো। গত কয়েকদিন ধরে ‘সুপ্রভাত’ মুছে দিয়ে সেই স্থানে এন্টারপ্রাইজ লিখে চালানো হচ্ছে। প্রায় প্রতিটি স্টপেজ থেকেই যাত্রী ওঠানামা করতে দেখা গেছে। এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বাস চালক বলেন, কয়দিন বন্ধ থাকবো। আমাগো তো পেট চলে না। বউ বাচ্চা নিয়া না খাইয়া মরতেছি।  আরেকটি বাসের চালকের সহকারী বলেন, চলতে তো হইবোই। আমরা কিছু জানি না। মালিক কইছে বাস নামাইতে। আমরা চালাইতাসি।

নতুন মোড়কে সুপ্রভাত চলাচল নিয়ে যাত্রীদের মাঝেও রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। যাত্রীদের কেউ বাসটি নতুন করে ফেরায় বেশ স্বস্তি আবার অনেকেই বলছেন  বিনা অনুমতিতে যদি এই বাস চলে তাহলে আবরারের মতো আরো ঘটনা ঘটতেই থাকবে।

রামপুরা থেকে গুলিস্তানগামী শাওন নামের এক যাত্রী বলেন, সুপ্রভাত বন্ধ হয়ে আমরা বেকায়দায় পড়েছি। এখান থেকে গুলিস্তান-সদরঘাট পর্যন্ত যাওয়ার আর কোনো বাস নেই। এখন যে নামেই চলুক আমাদের সমস্যা তো দূর হয়েছে। সরকারের বাস বন্ধ করার আগে বিকল্প ব্যবস্থা রেখে বন্ধ করা দরকার ছিল। এদিকে হারুণ নামের আরেক যাত্রী বলেন, আমাদের কষ্ট হলেও এটার একটা সুরাহা হওয়া উচিৎ। নতুন নাম দিয়ে বাস আবার চালু হয়েছে। একই কথাই তো হইলো। সেই সুপ্রভাত আবার রাস্তায় বেপরোয়া বাস চালিয়ে মানুষ মারবে। আরিফুল হক নামের এক ব্যবসায়ী বলেন, আমি যাবো গুলিস্তান। আগের নামটা বদলে শুধু এন্টারপ্রাইজ লাগানো হলো। এটা তো প্রতারণা। সরকার এখন দেখে না কেন? কোনো ব্যবস্থা নেয় না কেন? কয়দিন দেখানোর জন্য বন্ধ  করে রেখে এখন আবার চালু করছে। এই দেশে এভাবেই চলবে।

সুপ্রভাত বাসটি বন্ধ হওয়ার পর নতুন নাম ‘সম্রাট’ দিয়ে চালানোর চেষ্টা করা হয়েছিল। তবে তখন গণমাধ্যমে খবরটি  প্রকাশ হয়ে যাওয়ায় সেটি আর করতে পারেনি বাস কোম্পানি। অবশ্য এরপর আরেক দফা সুপ্রভাত পরিবহনের বাসগুলোর রঙ বদলে নতুন নাম দেয়া হয় আকাশ এন্টারপ্রাইজ। কিছুদিন আগেই ঢাকা ডেমরার আমুলিয়া মডেল টাউনে সুপ্রভাত পরিবহনের নাম পরিবর্তনের খবর পাওয়া যায়। মডেল টাউনের প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করে ৫০ গজ দূরে হাতের বামে অন্তত ৭০টি বাস পার্কিং করে রাখা ছিল। সেখানে কিছু বাসের পুরনো রঙ তুলে ফেলার কাজ চলছিল বলে স্থানীয় লোকজনের বরাতে জানা গেছে। গত মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে সেখানে বাসগুলোর রঙের কাজ সম্পন্ন হয়। ১৯শে মার্চ বসুন্ধরার আবাসিক এলাকার গেটের সামনে বাসচাপায় বিইউপির শিক্ষার্থী আবরারের মৃত্যুর পর বন্ধ হয়ে যাওয়া সুপ্রভাত বিভিন্ন গ্যারেজে নিয়ে রাখা হয়। এদিকে সুপ্রভাত বাসটি নতুন মোড়কে চলাচললের বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ট্রাফিক) যুগ্ম কমিশনার মীর রেজাউল আলম কিছু জানেনা বলে মন্তব্য করেন। তিনি মানবজমিনকে বলেন, এ ব্যাপারে কোনো তথ্য আমাদের কাছে নেই। একই মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) পরিচালক মাহবুবে রাব্বানী। তিনি বলেন, এ ব্যাপারে কিছু জানা নেই।

অন্যদিকে সুপ্রভাত পরিবহনের ১৬৩টি বাস চলাচলের অনুমতি চেয়ে করা পরিবহনটির আবেদন ৩০ দিনের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষকে (বিআরটিএ) নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। সুপ্রভাত প্রাইভেট লিমিটেডের এমডির করা আবেদনের শুনানি নিয়ে ১৬ই এপ্রিল বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদেশের পর আইনজীবী জানান, ২০শে মার্চ বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ এক নির্দেশে সুপ্রভাত পরিবহনের সব বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়। এর পর ১লা এপ্রিল সুপ্রভাত পরিবহন কর্তৃপক্ষ বাস চলাচলের অনুমতি চেয়ে বিআরটিএর কাছে চিঠি পাঠায়। কিন্তু ওই চিঠির পরও বাস চলাচলের অনুমতি না মেলায় ৮ই এপ্রিল ২৪ ঘণ্টা সময় বেঁধে দিয়ে বিআরটিএকে উকিল নোটিশ দেয় সুপ্রভাত পরিবহন কর্তৃপক্ষ। ওই নোটিশের জবাব না পেয়ে ১৫ই এপ্রিল হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় বিআরটিএর চিঠি চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করেন সুপ্রভাত পরিবহনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আশরাফ আলী। সে রিটের শুনানি নিয়ে বিআরটিএ চেয়ারম্যানকে এ নির্দেশ দিয়ে আবেদনটি নিষ্পত্তি করে দেন আদালত।

এ ব্যাপারে বিআরটিএ ভূমিকা কি জানতে চাইলে পরিচালক মাহবুবে রাব্বানী বলেন, আমাদের কাছে এখনো আদালতের পাঠানো চিঠিটি আসেনি। এ বিষয়ে আমাদের আইনজীবী আছেন। তিনি যে পরামর্শ দেন সে অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ১৯শে মার্চ সকালে রাজধানীর প্রগতি সরণিতে সুপ্রভাত পরিবহনের বাসের চাপায় প্রাণ হারান বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরী। এর প্রতিবাদে আবরারের সহপাঠীসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নিরাপদ সড়কের দাবিতে বিক্ষোভ করেন। পর দিন সুপ্রভাত পরিবহনের চলাচল বন্ধ করে দেয় বিআরটিএ।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Dupur

২০১৯-০৪-২৫ ০৯:২২:২৮

Can we burn it?

আপনার মতামত দিন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভিপি নুরের ইফতারে ছাত্রলীগের বাধা, রেস্টুরেন্টে তালা

বাংলাদেশ দলের নিউক্লিয়াস

সৌভাগ্যের কার্ডিফে টাইগারদের বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু

ছোট নৌকায় দ্বিগুণ যাত্রী তুলে ভাসিয়ে দেয় সাগরে

রাজনৈতিক দলে না থাকলেও ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে থাকবো

ওদের কান্নার যেন শেষ নেই

দ্বিতীয় মেঘনা, গোমতী সেতুর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

নরসিংদীতে অভাবের তাড়নায় দুই কন্যাকে হত্যা করেছে বাবা

একদিনে দুই ইফতার

মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রয়োজন বৃহত্তর ঐক্য

ফ্রান্সের লিওনে পার্সেল বোমা বিস্ফোরণ আহত ১৩

কসাইখানা থেকে কলেজে মহিষ...

নগরীতে ‘বাস বে’ করা একটি বড় চ্যালেঞ্জ: ডিএনসিসি মেয়র

জীবন উৎসর্গ করা ১২ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীর প্রতি জাতিসংঘের সম্মাননা

লোকসভায় বেড়েছে মুসলিম এমপি

বান্দরবানে অপহৃত আওয়ামী লীগ নেতার লাশ উদ্ধার