সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের অবরোধ, আশ্বাসে কর্মসূচি স্থগিত

শেষের পাতা

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | ২৫ এপ্রিল ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:০০
পাঁচ দফা দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত রাজধানীর সাত সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা। গতকাল সকাল ১১টা থেকে শুরু হওয়া এ অবরোধ কর্মসূচি চলে দুপুর ২টা পর্যন্ত। ঢাকার নিউ মার্কেট মোড়ে এ কর্মসূচি পালিত হয়। অবরোধের ফলে আশপাশের এলাকায় তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। দুপুরে উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতির সমাধান কল্পে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দশটি সুনির্দিষ্ট উদ্যোগের গ্রহণের কথা জানিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ ও প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রাব্বানীর আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেয় তারা। এ সময় প্রক্টর শিক্ষার্থীদের দাবিসমূহ লিখিতভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির কাছে জমা দেয়ার কথা বলেন। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো নিয়ে আমরা ভিসি স্যারের সঙ্গে আলোচনা করেছি। আগামী ২৮ তারিখ তোমাদের দাবি নিয়ে সিন্ডিকেট সভায় আলোচনা করা হবে।
সেখানে সাত কলেজের প্রতিনিধিও রাখা হবে। এ সময় তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নেয়া পদক্ষেপসমূহ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তুলে ধরেন।

এদিকে দ্বিতীয় দিনের অবরোধ কর্মসূচি স্থগিতের ঘোষণা দিয়ে ঢাকা কলেজের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী আবু বকর বলেন, আজকের মতো আমাদের কর্মসূচি সমাপ্ত ঘোষণা করছি। এরপর আমরা প্রত্যেক সেশনে কী সমস্যা রয়েছে, সেগুলো লিখিত আকারে নিয়ে স্যারদের সঙ্গে কথা বলবো। স্যারদের সঙ্গে কথা বলে কী সিদ্ধান্ত পাওয়া যায় এবং আমরা পরবর্তী সময়ে কী করবো, তা নিয়ে আগামীকাল সকাল ১০টায় ঢাকা কলেজ ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করে জানাবো। অবরোধ কর্মসূচি স্থগিতের পর বিকালে শিক্ষার্থীদের একটি প্রতিনিধি দল ভিসি অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এর আগে গত মঙ্গলবার থেকে সেশনজট নিরসন, ত্রুটিমুক্ত ফল প্রকাশ, স্বতন্ত্র প্রশাসনিক ভবনসহ পাঁচ দফা দাবিতে বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছে সাত সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা। দাবি আদায় না হওয়ায় গতকাল দ্বিতীয় দিনের মতো চলে অবরোধ কর্মসূচি। সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হলেও তাদের সঠিকভাবে মূল্যায়ন করা হচ্ছে না।

সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের পাঁচ দফা দাবি হলো- পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে ত্রুটি মুক্ত ফলাফল প্রকাশসহ ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের ২০১৬ সালের অনার্স চতুর্থ বর্ষ এবং ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ২০১৭ সালের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের লিখিত পরীক্ষাসহ সকল বিভাগের ফলাফল একত্রে প্রকাশ করা; ডিগ্রি, অনার্স, মাস্টার্স সকল বর্ষের ফলাফল গণহারে অকৃতকার্য হওয়ার কারণ প্রকাশসহ খাতার পুনর্মূল্যায়ন করা; সাত কলেজ পরিচালনার জন্য স্বতন্ত্র প্রশাসনিক ভবন; প্রতিমাসে প্রত্যেকটা বিভাগে প্রতি কলেজে দুইদিন করে মোট ১৪ দিন ঢাবির শিক্ষকদের ক্লাস নেয়া; সেশনজট নিরসনের লক্ষ্যে একাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রকাশসহ ক্রাশ প্রোগ্রাম চালু করা। শিক্ষার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ২০১৭ সালের ১৬ই ফেব্রুয়ারি ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি তিতুমীর কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, সরকারি বাঙলা কলেজ, কবি নজরুল সরকারি কলেজ ও সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করা হয়।

কিন্তু যথেষ্ট লোকবল না থাকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে এসব কলেজ অন্তর্ভুক্তির প্রথম থেকেই হিমশিম খেতে হয়। সাত কলেজের আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে থাকাকালে তাঁদের পরীক্ষা গ্রহণ ও ফলাফল প্রকাশে দীর্ঘসূত্রতা দেখা দেয়। হঠাৎ করে রাজধানীর সরকারি সাত কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করার পর তাঁরা ভেবেছিলেন সেশনজট কমবে। একই সঙ্গে শিক্ষার মানও বাড়বে। এর কিছুই হয়নি।


তবে এখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিভুক্ত থেকেই চলমান সব সমস্যার সমাধান চান তারা। অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নেয়া মিরপুরের সরকারি বাঙলা কলেজের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী শাহেদুল ইসলাম বলেন, আমরা অধিভুক্তি বাতিল নয়, আমরা আমাদের চলমান সমস্যার সমাধান চাই। কারণ, এখন অধিভুক্তি বাতিল করলে আমি মনে করি এই সমস্যা আরো বাড়বে। ইডেন মহিলা কলেজের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী জাকিয়া চৌধুরী বলেন, আমাদের মনে হয়েছে অধিভুক্ত হওয়ার পর ওরা আমাদের মেধাকে সঠিকভাবে মূল্যায়ন করেনি বা করা হচ্ছে না। কিন্তু আমরা অধিভুক্ত বাতিল চাই না, যেহেতু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আমাদের সাতটি কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করে দেয়া হবে। ওনার মতামতের ওপর কথা আমরা অবশ্যই বলবো না। আমরা অধিভুক্তই থাকতে চাচ্ছি কিন্তু আমরা চাই আমাদের মেধাকে সঠিকভাবে মূল্যায়ন করা হোক। তিনি বলেন, আমরা চাই আমাদের জন্য একটা আলাদা প্রশাসনিক ভবন করা হোক যেখানে আমরা আমাদের সমস্যাগুলো নিয়ে সহজে কাজ করতে পারি। এদিকে দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। এতে সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের দাবি পূরণের লক্ষ্যে নিজেদের পদক্ষেপের কথা তুলে ধরা হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন দাবি নিয়ে চলমান আন্দোলনের প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে।

শিক্ষার্থীদের এসব দাবির পরিপ্রেক্ষিতে জানানো যাচ্ছে যে, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যেসব শিক্ষার্থী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিভুক্ত হয়েছে তাদের কিছু জটিলতার কারণে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনায় সাময়িক অসুবিধা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে তাদের এসব সমস্যা সমাধান করার উদ্যোগ নিয়েছে। এ ছাড়া, অধিভুক্ত সরকারি ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৯০ কার্যদিবসের মধ্যে সকল বিষয়ের ফলাফল প্রকাশ করার ব্যাপারে ইতিমধ্যে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যেসব বিষয়ে অধিক হারে অকৃতকার্য হয়েছে, তদবিষয়ে আবেদনক্রমে পুনর্মূল্যায়নের ব্যবস্থা নেয়া হবে। সাত কলেজের একাডেমিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ইতিমধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনিক ভবনে স্বতন্ত্র সেল গঠন করা হয়েছে। ভবিষ্যতে সাত কলেজের জন্য স্বতন্ত্র নতুন ভবন নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে।

অধিভুক্ত সাত কলেজের সেশনজট নিরসনকল্পে ‘ক্রাশ প্রোগ্রাম’ বিষয়ে কলেজ অধ্যক্ষদের সঙ্গে আলোচনাক্রমে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তাদের জন্য একাডেমিক ক্যালেন্ডার তৈরির কাজও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ২০১৬ সালের ৪র্থ বর্ষ অনার্স পরীক্ষার ফলাফল (সি.জি.পি.এ সমন্বয় করে) ইতিমধ্যেই প্রকাশ করা হয়েছে। ডিগ্রি ১ম বর্ষ ২০১৭ পরীক্ষার রুটিনও প্রকাশিত হয়েছে। মাস্টার্স ২০১৬ অনলাইনে ফরম পূরণ শুরু হবে ২৮শে এপ্রিল ২০১৯ এবং পরীক্ষা শুরু হবে ১৭ই জুন ২০১৯ থেকে। অনার্স ২য় বর্ষ ২০১৮ পরীক্ষা শুরু হবে ১৯শে মে ২০১৯। আগামী ২৮শে এপ্রিল ২০১৯ তারিখে উপাচার্যের সভাপতিত্বে ৭ (সাত) কলেজের অধ্যক্ষদের সঙ্গে এক সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধানকল্পে করণীয় বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে। শিক্ষার্থীদের যেকোনো ধরনের একাডেমিক ভোগান্তি লাঘবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সকল নিয়মতান্ত্রিক পন্থা অবলম্বন করবে। তাই জনভোগান্তি নিরসনে শিক্ষার্থীদেরকে নিজ নিজ ক্যাম্পাসে থাকার জন্য আহ্বান জানানো যাচ্ছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

সবচেয়ে উত্তপ্ত জুন মাস ছিল চলতি বছর

সিরাজগঞ্জে পরিবহন ধর্মঘট চলছেই

তীব্র স্রোতে ভেঙ্গে গেলো ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়ক

প্রয়াণ দিবসে হুমায়ূন স্মৃতি

‘নাটক নির্মাণে সাহস পাই না’

হরমুজ প্রণালিতে ইরানি ড্রোন ভূপাতিত করার দাবি ট্রাম্পের

হুমায়ূন আহমেদের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

লন্ডনের পথে প্রধানমন্ত্রী

বর্ণবাদী মন্তব্যের পর বেড়ে গেছে ট্রাম্পের সমর্থন!

সৌদি আরবে সেনা পাঠানোর প্রস্তুতি আমেরিকার

ইস্টার সানডে ‘জঙ্গি হামলা’ ঘটিয়েছে মাদক কারবারিরা: শ্রীলংকান প্রেসিডেন্ট

দুর্ভোগে বানভাসি মানুষ পাশে নেই কেউ

ধরন পাল্টানোয় চিন্তিত চিকিৎসকরা

ডেঙ্গু রোগীর চাপে হিমশিম কর্তৃপক্ষ

প্রতিদিনই বাড়ছে রোগী

এরশাদের চেয়ারে জিএম কাদের